ট্রাস্টি এড. দিপংকর বড়ুয়া পিন্টুর বিবৃতি : মামলা ও অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করুন

সিবিএন :

২৯ ও ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১২ সাল। কক্সবাজার জেলার রামু, উখিয়া, টেকনাফের বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের জন্য অত্যন্ত বেদনাময় ও আতংকের দু’টি রাত। প্রথম রাতে রামু’র ১২ টি বৌদ্ধ বিহার ও বৌদ্ধদের ৩০টি বসত বাড়ি, দ্বিতীয় রাতে উখিয়া, টেকনাফের ৭টি বৌদ্ধ বিহার ও বৌদ্ধদের ১১টি বসত বাড়ি নরপিপাষু দূর্বৃত্তরা পুড়িয়ে দিয়েছিল। বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি ও কক্সবাজার জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের কার্যকরী সভাপতি এডভোকেট দিপংকর বড়ুয়া পিন্টু সেই বেদনাবিদূর কালো ২টি রাতের স্ম্মরণে এক বিবৃতি প্রদান করেছেন। বিবৃতিতে তিনি বলেন, এই জঘন্য হামলায় নষ্ট হয়ে গিয়েছিল শত বছরের অনেক ঐতিহাসিক ঐতিহ্য ও নিদর্শন। আস্হাহীনতায় পড়েছিল হাজার বছরের লালিত সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি। এই ঘটনায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে বিশ্বনেতৃবৃন্দ, সীমাহীন আস্হার সংকটে পড়ে সারাদেশের বৌদ্ধ সম্প্রদায়। এই পৈচাশিক নারকীয় ধ্বংসজঙ্গের পর প্রধানমন্ত্রীর তড়িৎ হস্তক্ষেপ, স্হানীয় প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি, সেনাবাহিনী, রাজনৈতিক দল, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়, দেশী বিদেশী এনজিও, সামাজিক ও ধর্মীয় সংগঠন, স্হানীয় জনসাধারণ সহ বিভিন্ন মহলের অভুতপূর্ব সহযোগিতায় পুড়িয়ে দেয়া বৌদ্ধ বিহার গুলো নান্দনিক স্হাপত্য শৈলীতে পূণঃনির্মান ও বসতবাড়ি পুড়িয়ে দেয়া বৌদ্ধ পরিবার গুলোকে পূর্ণবাসন করা হলেও এখনো কিছু কাজ অসমাপ্ত রয়েছে। এ ঘটনায় ৩৭৮ জনকে এজাহারভূক্ত করে দায়েরকৃত ১৯টি মামলার মধ্যে বাদী কর্তৃক ১টি মামলা প্রত্যাহার করা হলেও অবশিষ্ট ১৮ টি মামলায় ৯৯৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট দেয়া হয়। এই ঘৃন্য ও নিন্দনীয় ঘটনার দীর্ঘ ৬ বছর অতিক্রান্ত হলেও সাক্ষীর অভাবে মামলা গুলো এখনো নিষ্পত্তি হয়নি। এখনো শাস্তি পায়নি এ ঘটনার প্রকৃত দোষীরা। মামলাগুলোর অগ্রগতি খুবই হতাশাব্যান্জ্ঞক। বাংলাদেশ বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি এডভোকেট দিপংকর বড়ুয়া পিন্টু তাঁর দেয়া বিবৃতিতে এই ধ্বংসজঙ্গ থেকে তড়িৎ উত্তরনে সহযোগিতা করায় প্রধানমন্ত্রী সহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের পক্ষে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি বলেন, সকলের প্রশংসনীয় উদ্যোগে বৌদ্ধ ও অন্যান্য সম্প্রদায়ের মাঝে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি পূণঃ প্রতিষ্ঠা ও আতংক অনেকটা দূর হয়েছে। তিনি অসমাপ্ত কাজগুলো দ্রুত সমাপ্ত করার অনুরোধ জানান। তাছাড়া এ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলা গুলোর সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহন ও অন্যান্য আইনী প্রক্রিয়া শেষ করে মামলাগুলো চুড়ান্তভাবে নিষ্পত্তি করার জন্য তিনি এই কালো দুটি রাত্রি স্মরণে প্রদত্ত বিবৃতিতে আহবান জানিয়েছেন।

সর্বশেষ সংবাদ

আ. লীগ নেতা হত্যার প্রতিবাদে লামায় পালিত হচ্ছে অর্ধদিবস হরতাল

‘গোপন অস্ত্র’ দিয়ে মার্কিন যুদ্ধজাহাজ ডুবিয়ে দিতে পারি: ইরানের সেনা উপদেষ্টা

টেকনাফে গাঁজাসহ ২ মহিলা আটক

৬৫ দিন মাছ ধরা বন্ধ রেখে জনগণের পেটে লাথি মেরেছে সরকার

ভারতের লোকসভায় মুসলিম সাংসদ বেড়ে ২৭ জন

আছিফুল ইসলাম ফরিয়াদের মৃত্যুতে শোক সভা, দোয়া ও ইফতার মাহফিল

খামার বাড়ীতে যাওয়ার পথে বন্য হাতির আক্রমণ, মারা গেল উপজাতীয় ব্যক্তি

আজীবন স্বামী হত্যার বিচার চাইবো: ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত একরামের স্ত্রী

কক্সবাজার ব্লাড ডোনেটিং ক্লাবের ইফতার মাহফিল

আমিরাতে প্রবাসি হিফযুল কোরআন প্রতিযোগিতায় ১ম বিজয়ী আজিজ

চকরিয়ায় ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে স্কুল ছাত্র নিহত

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে মাদকমুক্ত করতে বদ্ধপরিকর

বরইতলী কালিমন্দিরে সভা

বেনাপোলে সাজাপ্রাপ্ত আসামীকে গ্রেফতার

দুসস এর কক্সবাজার জেলার দায়িত্ব পেলেন এইচ.এম আমান

ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা বিএনপির ইফতার মাহফিল সম্পন্ন

জেলা পুলিশের মাসিক কল্যাণ সভা, ৩৯ কর্মকর্তা পুরস্কৃত

চট্টগ্রামে শীর্ষ সন্ত্রাসী `কিরিচ বাবুল’র দুই ছেলে ছুরিসহ গ্রেফতার

কক্সবাজার ক্রীড়া লেখক সমিতির ইফতার মাহফিল অনুষ্টিত

কক্সবাজারে নজরুল আড্ডা ও ইফতার অনুষ্ঠান