শাহিদ মোস্তফা শাহিদ, কক্সবাজার সদর :

কক্সবাজার সদরের ভারুয়াখালী ইউনিয়নের ত্রাস,বহুঅপকর্মের হোতা,পুলিশের উপর হামলাকারী, বয়োবৃদ্ধ আবদুল হাকিমকে হত্যা চেষ্টাকারী অর্ধ ডজন মামলার পলাতক আসামী জয়নাল উদ্দীন (৪০)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারের সংবাদে স্থানীয়রা স্বস্তির নিঃশ্বাস পেলেছে।কয়েকটি এলাকায় মিষ্টি বিতরণের খবরও পাওয়া গেছে।গ্রেফতারকৃত জয়নাল ৮নং ওয়ার্ডের ননামিয়া পাড়া এলাকার মৃত ছৈয়দের ছেলে।পুলিশ সূত্রে জানা যায়,জয়নালের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলায় গ্রেফতারী ফরোয়ানা জারী ছিল।দীর্ঘদিন ধরে পলাতক জীবন যাপন করে আসছিল সে।২৬ সেপ্টেম্বর রাত আনুমানিক ৮ দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালায় পুলিশ।ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মিনহাজ মাহমুদ ভুঁইয়ার নেতৃত্বে তদন্ত কেন্দ্র ও সদর মডেল থানা পুলিশের কয়েকটি টিম পৃথক টিম গঠন করে যৌথ অভিযান চালায়।পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালানোর সময় ননামিয়া পাড়াস্থ তার গোপন আস্তানা থেকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।গ্রেফতারকৃত জয়নাল এলাকার ত্রাস হিসাবে পরিচিত। গত ২৮ আগস্ট একই এলাকার হাজী আবদু শুক্কুরের ছেলে হাজী আবদুল হাকিমকে পুর্বশত্রুতার জের ধরে হত্যার চেষ্টা চালায় সে।তার একটি মিনি সন্ত্রাসী বাহিনী রয়েছে। ঐ ঘটনায় সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করলে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে পুনরায় হত্যার চেষ্টা চালায় আবদুল হাকিমকে।জয়নালকে গ্রেফতার করায় তার সিন্ডিকেটের সদস্য একই এলাকার মৃত চাঁন মিয়ার পুত্র ফোরকান হুমকি দিয়ে আসছে হাকিমকে।এমন পরিস্থিতিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছে মামলার বাদী ও তার স্বজনরা।খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে জয়নালের নেতৃত্বে এলাকায় একটি সিন্ডিকেট গড়ে তুলে বিভিন্ন অপকর্ম করে আসছিল।গত বছর পুলিশের উপর হামলা চালিয়ে আসামী ছিনতাই করেন তার বাহিনীর সদস্যরা।বিভিন্ন জনের জমি দখল, মারধর, হামলা করে এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি খারাপ করে তুলছিল।ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মিনহাজ মাহমুদ ভুঁইয়া গ্রেফতারের বিষয়টি সিবিএনকে নিশ্চিত করে বলেন তার বিরুদ্ধে জিআর ৭৭৬/১৬,৭৭৩/১৬,সিপি ১৪৯/১৭,জিআর ১০২৪/১৭ সহ কয়েকটি মামলা ছিল।এদিন খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয়।তিনি আরো জানান, অপরাধী কোন ভাবেই পার পাবে না,সন্ত্রাসীদের অবস্থান নিশ্চিত করে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •