প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

সরকারি আইন শৃংখলা বাহিনী পরিচয়ে মুখোশধারি অপরিচিত ব্যক্তিদের হাতে ‘অপহৃত’ হয়ে দীর্ঘ দুই মাস পর ভারতের মেঘালয় রাজ্যের শিলংয়ে উদ্ধার হওয়া বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারনী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য, কক্সবাজার জেলার বিএনপির প্রাণপুরুষ, এই অঞ্চলের মানুষের প্রিয় মুখ, সাবেক মন্ত্রী সালাহউদ্দিন আহমদের মামলার রায়কে সামনে রেখে পেকুয়া-চকরিয়াবাসী সহ দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন পেকুয়া উপজেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদক কামরান জাদিদ মুকুট।

ভারতে অনুপ্রবেশের মিথ্যা অভিযোগে শিলংয়ের একটি আদালতে চলমান মামলার রায় ঘোষণার সময় দেয়া হয়েছে ২৮ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার)। দীর্ঘ প্রায় চারবছর পর এই মামলার রায় ঘোষণা করা হচ্ছে। তাই প্রিয় নেতা সালাহউদ্দিন আহমদের মামলার রায়কে যেন মহান আল্লাহ সত্যের পক্ষেই প্রদান করান সেজন্যই দোয়া চেয়েছেন তিনি। এদিকে এ উপলক্ষে পেকুয়া উপজেলা যুবদলের আওতাধীন সকল ইউনিটের স্ব-স্ব নেতার্কমীদের আগামীকাল দোয়া মাহফিলের আয়োজন করার ঘোষনা দেন।

পেকুয়া উপজেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদক কামরান জাদিদ মুকুট বলেন, বিগত স্বৈরাচারী সরকারের অবৈধ প্রন্থায় নির্বাচনের পর গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনার আন্দোলনে নেতৃত্ব দিতে গিয়ে স্বৈরাচারী অবৈধ সরকারে রোষানলে পড়ে দীর্ঘ ৬২ দিন গুম পরবর্তী ভারতের শিলংয়ে উদ্ধার হওয়ার পর থেকে আজবধি লাখো কক্সবাজার বাসীর তাদের প্রাণপ্রিয় নেতাকে ফিরে পাওয়ার অধীর আগ্রহের অপেক্ষামান। আশা করি ন্যায় বিচার বাস্তবায়ন হলে আমাদের প্রিয় নেতা মামলা থেকে অবশ্যই অব্যহতি পাবেন। অব্যহতি পেয়ে দেশে ফিরে লাখো কক্সবাজারবাসী অপেক্ষার অবসান ঘটাবেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালের ১১ মে ভারতে অনুপ্রবেশের দায়ে সালাহউদ্দিন আহমেদের বিরুদ্ধে মামলা করে মেঘালয় রাজ্যের শিলং পুলিশ। প্রায় সাড়ে চার বছর বিচার চলার পর এই মামলার রায় ঘোষণা করা হচ্ছে। চলতি বছরের ১৩ আগস্ট এই মামলার বিচারিক কার্যক্রম শেষ হয়। এরপর তা রায়ের জন্য অপেক্ষমান রাখেন আদালত।

এব্যাপারে সালাহউদ্দিন আহমদ সাংবাদিকদের জানান, বাংলাদেশের মানুষ জানে কী ঘটেছিল। আদালতে এই বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়েছে। এর আগে চারবার মামলার রায় ঘোষণার তারিখ পিছিয়েছে। তারপরেও তিনি আশা করছেন ন্যায়বিচার পাবেন।

সালাহউদ্দিন আহমেদের আইনজীবী এ পি মহন্তে বলেন, এ ধরনের মামলার কার্যক্রম শেষ হতে এত সময় লাগার বিষয়টি ‘বিরল’।

তিনি আরো বলেন, তাঁর মক্কেল ন্যায়বিচার পাবেন। আদালতে সবকিছুই তুলে ধরা হয়েছে।

সালাহউদ্দিন আহমদের ঘনিষ্ট একটি সূত্র জানায়, ২০১৫ সালে মার্চে তাঁকে ঢাকার উত্তরার বাসা থেকে অপহরণ করা হয়। এর প্রায় দুই মাস পর কে বা কারা তাঁকে শিলংয়ে ফেলে যায়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •