মালয়েশিয়ায় সাতদিনে বাংলাদেশিসহ ৪ শতাধিক অভিবাসী আটক

আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া:

অবৈধ অভিবাসীদের বিরুদ্ধে মালয়েশিয়ার চলমান অভিযানে গত সাতদিনে বাংলাদেশিসহ ৪ শতাধিক অভিবাসীকে আটক করা হয়েছে। বৈধ কাগজপত্র না থাকা কিংবা দেশটিতে বিভিন্ন অবৈধ কাজে যুক্ত থাকার অভিযোগে তাদের আটক করে ইমিগ্রেশন বিভাগ। তবে আটকের মধ্যে বাংলাদেশি কতজন আছে এখনো জানা যায়নি।

মালয়েশিয়ার সংবাদমাধ্যম দ্য স্টার ডট কমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশটির অভিবাসন বিভাগ শুধুমাত্র অবৈধদের আটক করছে। ২১ সেপ্টেম্বর মোট ৩৩৮ জন বিদেশি শ্রমিককে আটক করা হয়। অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক মুসতাফার আলি জানিয়েছেন, আটক শ্রমিকদের মধ্যে ৫৫ জন বাংলাদেশি পুরুষ রয়েছেন।

এছাড়া ইন্দোনেশিয়ার ৩৬ জন পুরুষ ও ১৭২ জন নারী শ্রমিককে আটক করা হয়েছে। অভিযানে আটক হয়েছে মিয়ানমারের ২৫ জন পুরুষ ও তিনজন নারী শ্রমিক। এছাড়া ৪৭ জন নেপালি পুরুষ শ্রমিককেও আটক করা হয়েছে।

মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ জানিয়েছে, আটক শ্রমিকদের কাজ করার উপযুক্ত বৈধতা ছিল না। দাতুক সেরি মুসতাফার আলি বলেন, ‘আমরা প্রায় ২ হাজার ২৩০ জনের কাগজপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছি। পরে ৩৩৮ জনকে আটক করা হয়। তাদের বেশির ভাগই বিদেশি শ্রমিক হিসেবে অস্থায়ীভাবে কাজ করার অনুমতি নিয়ে বিভিন্ন কোম্পানির হয়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছিল।’

এছাড়া গত তিনদিনে (২২ সেপ্টেম্বর ৫৫ জন), দেশটির সেগামবাতে একটি নির্মাণ সাইটে অভিযান চালিয়ে মোট ১৭৭ জন অবৈধ অভিবাসীকে আটক করা হয়, যার মধ্যে ১৪৫ জনই বাংলাদেশি।

দেশটির ফেডারেল টেরিটরিজ ইমেগ্রেশন ডিপার্টমেন্ট, ফেডারেল টেরিটরিজ কন্সট্রাকশন ইনডাস্ট্রি ডেভলপমেন্ট বোর্ড এবং মেম্বার অব দ্যা পিপলস ভলান্টিয়ার কোর্পস যৌথভাবে এই অভিযান পরিচালনা করে।

কুয়ালালামপুর ইমিগ্রেশনের পরিচালক হামিদি আদম বলেন, ‘এই অভিযানে মোট ১৪৫ জন বাংলাদেশি ও ২৯ জন ইন্দোনেশিয়ান নাগরিক আটক হয়েছেন। এছাড়াও এই অভিযানে দুই মিয়ানমার নাগরিক ও একজন ভারতীয় নাগরিক আটক হয়েছেন। অভিযানে মোট ৩২০ জন শ্রমিকের তথ্য উপাত্ত যাচাই করা হয়েছে।’

৩০ জুন পুনর্বাসন কর্মসূচি শেষ হওয়ার পর মালয়েশিয়া অনিয়মিত অভিবাসীদের ওপর অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে ইমিগ্রেশন বিভাগ।

আটকের বিষয়ে জানতে চাইলে ইমিগ্রেশন বিভাগের মহাপরিচালক মুস্তাফার আলী বলেন, অভিযান অব্যাহত থাকবে। ১৪ সেপ্টেম্বর মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা বার্নামার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, আটক বাংলাদেশিদের সঠিক সংখ্যা নিশ্চিত করা যায়নি। তবে জানুয়ারি থেকে ৩০ হাজার বিদেশি কর্মীকে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে ৬ হাজার বাংলাদেশি।

বর্তমানে, প্রায় ১০ লাখ বাংলাদেশি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এ দেশটি রয়েছেন। তাদের মধ্যে, প্রায় অর্ধেক অভিবাসী। তাদের অধিকাংশই কাজের অবস্থা নিয়মিতকরণের জন্য প্রযোজ্য এবং প্রক্রিয়াগুলোর জন্য ৬ থেকে ১০ হাজার রিংগিট ব্যয় করেন। তবে প্রায় ৮০ শতাংশ এখনও পারমিট না পাওয়ায় অনিশ্চয়তা ও আতঙ্কে দিন পার করছেন।

সর্বশেষ সংবাদ

সাতকানিয়া উপজেলায় মোতালেব বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত

সিপিপি শ্রেষ্ঠ স্বেচ্ছাসেবক পুরষ্কার পেলেন মহেশখালী ভাইস চেয়ারম্যান মিনুয়ারা

পেকুয়ায় চালককে জবাই করে টমটম ছিনতাই

বিবর্তন’র প্রবারণা পূর্ণিমা সংখ্যা ২০১৯ এর মোড়ক উন্মোচন

চট্টগ্রামের কোতোয়ালিতে ৩০০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার ১

‘কেয়ার’ এর আয়োজনে পালিত হল আন্তর্জাতিক দূর্যোগ প্রশমন দিবস-২০১৯

ঘুমধুম ইউনিয়নে জাহাঙ্গীর বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত

ফেনীতে ৬৩ লাখ টাকার ভারতীয় ট্যাবলেট জব্দ

ডুলাহাজারায় অবৈধ সার বিক্রয়ের মহোৎসব

অসাম্প্রদায়িক চেতনায় অদম্য গতিতে কক্সবাজার এগিয়ে যাচ্ছে : ডিসি কামাল হোসেন

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার- ৬

আবরার স্মরণে কক্সবাজার সরকারি কলেজে শোক র‍্যালী ও মানববন্ধন

চকরিয়ায় আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় যানজট, ছিনতাই ও মাদকমুক্ত করার সিদ্ধান্ত

নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুমে ভোট কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা: নিহত ২ (আপডেট)

ফোর মার্ডার : পুলক বড়ুয়াকে আইও নিয়োগ

পেকুয়ায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার

সোনাইছড়িতে এ্যানিং মার্মা বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত

নাইক্ষ্যংছড়ি সদরে আবছার বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত

রামু সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির উর্বর ভূমি : কল্প জাহাজ ভাসা উৎসবে এমপি কমল

প্রেমিকের সাথে বিয়ে না দেয়ায় আলীকদমে তরুণীর আত্মহত্যা