ইমাম খাইর, সিবিএন:
কক্সবাজার শহরকে যানজট মুক্ত করতে অন্তত ২০টি স্পটে অভিযান চালানো হয়েছে। কক্সবাজার অটোবাইক মালিক-চালকদের উদ্যোগে শনিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত অভিযান চলে। এ সময় সবার গায়ে হাফহাতা কালো টী-শার্ট ছিল।
শহীদ সরণি সড়ক, পৌরসভা মোড়, থানার পিছনের সড়ক (হোটেল কস্তুরীর পূর্ব পাশ), ইডেন গার্ডেন, বিলকিস শপিং, শেখ রাসেল সড়ক, শফিক সেন্টার, পানবাজার সড়ক, ফায়ার সার্ভিস, ইসলামী ব্যাংক, কোরাল রীফ, আইবিপি মাঠ, বাজারঘাটা মসজিদ সড়ক, জমজম টাওয়ার, বার্মিজ মার্কেট ইত্যাদি এলাকায় অভিযান চালানো হয়।
অভিযানে ড্রাইভিং লাইসেন্স, গাড়ির লাইসেন্স চেক করা হয়। বেশ কিছু অটোবাইক/টমটম আটক করে চালকদের সতর্ক করা হয়। যানজটের বিরুদ্ধে সাত দিনব্যাপী কর্মসূচির দ্বিতীয় দিনে প্রচুর পরিমাণ সাড়া লক্ষ্য করা গেছে।
এতে সার্বিক সহযোগিতা করেছে থানা পুলিশ ও ট্রাফিক বিভাগ। এর আগে দুই দফায় ট্রাফিক পুলিশের সাথে সার্বিক বিষয় নিয়ে বৈঠক করেছে টমটম মালিক, চালক ও শ্রমিকরা।
অটোবাইক মালিক-শ্রমিকদের পক্ষে নেতৃত্ব দেন শ্রমিক নেতা রুহুল কাদের মানিক। ট্রাফিক পুলিশের পক্ষে ছিলেন-টিআই বিকে বড়ুয়া, কামরুজ্জামান বকুল, নাসির উদ্দিন, শফিক, মাহবুব প্রমুখ।
কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নে কক্সবাজার শহরকে যানজটমুক্ত করতে ব্যতিক্রমী ও জনসচেতনতামূলক এই কর্মসূচি হাতে নিয়েছে অটোবাইক শ্রমিক কল্যাণ সোসাইটি।
বৃহস্পতিবার (২০ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে কর্মসূচি আরম্ভ হয়। শনিবার দ্বিতীয় দিনের অভিযানে বিভিন্ন স্পটে ছিলেন- সংগঠনের কক্সবাজার জেলা কমিটির যুগ্ম সম্পাদক শাহাদাত হোসাইন, মোহাম্মদ বাবুল, সদস্য খলিল, শহিদুল্লাহ হিরু, শহর কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ আবদুল্লাহ, মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ, আব্দুল করিম, সাইফুল ইসলাম, মুসা কোম্পানী, মাহবুব কোম্পানী, ভুট্টু কোম্পানী, আনোয়ার হোসাইন, রফিক, করিম, কাইট্যু, জাকারিয়া, আবদুর রশিদ, ইউসুফ, সাইফুল-২, আবুল কালাম, জমির, সাদ্দাম, আলম, শামসুল আলম, ইলিয়াছ, ভুট্টু, জরিফ আলী, সোহেল, তাজ উদ্দিন, শাহ আলম, শাহ জাহান, আবদুল্লাহ, নাজিম, করিম, হামিদ, দিদার, পর্যটন এলাকার সভাপতি ইউসুফ, ইসলাম, সাদ্দাম প্রমুখ।
ভ্রাম্যমান টিমে ছিলেন- অটোবাইক শ্রমিক কল্যাণ সোসাইটির জেলা সভাপতি রুহুল কাদের মানিক, শহর শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. দিদার, শ্রমিক নেতা হামিদ, রশিদ, শাহ আলম, সিদ্দিক, ফরিদ, আবদুল করিম, আবদুল খালেক।
মূলতঃ সবার মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি করতে এই কর্মসুচি হাতে নেয়া হয়েছে বলে জানান রুহুল কাদের মানিক। এ জন্য তিনি সংশ্লিষ্টদের সার্বিক সহযোগিতা চেয়েছেন। সেইসাথে পর্যটন নগরীকে যানজটের অভিশাপমুক্ত করতে পৌরপিতা মুজিবুর রহমানের সাথে থাকার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
কক্সবাজার পৌরসভায় বৈধ অবৈধ মিলে ৮ হাজারের অধিক ইজিবাই, টমটম চলাচল করে। নবনির্বাচিত পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান দায়িত্ব গ্রহণের পর শহরের সড়কগুলোতে শৃঙ্খলা আনতে অবৈধ টমটম বিরোধী কঠোর সিদ্ধান্ত নেন। সেই সিদ্ধান্তের অংশ হিসেবে প্রাথমিকভাবে বৈধ টমটমগুলোকে দুই শিফটে চলাচলের ঘোষণা দেন। তা শীগ্রই কার্যকর করার কথা রয়েছে। পৌরপিতার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের আগে পরিশুদ্ধি অভিযানে নেমেছে টমটম সংশ্লিষ্টরা। যা ইতিবাচক হিসেবে দেখছে পৌরবাসী।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •