ইসলামাবাদে এক মাজারের নামে বিদ্যুতের খুঁটি স্থাপনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের আশঙ্কা

মোহাম্মদ মিজানুর রহমান আজাদ, ঈদগাঁও :

কক্সবাজার সদরের ইসলামাবাদ ইউনিয়নের পশ্চিম গজালিয়াস্থ হযরত শাহ পেঠান ফকিরের মাজারে বিদ্যুৎ স্থাপনের জন্য ২/১টি খুঁটিই যথেষ্ট। পশ্চিম গজালিয়াস্থ স্থান দিয়ে মাত্র ২টি খুঁটি স্থাপন করলেই মাজারে বিদ্যুৎ চলে যায়। তা না করে কতিপয় প্রভাবশালী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষকে ভুল তথ্য দিয়ে পশ্চিম গজালিয়াস্থ ঐতিহাসিক ফুটবল মাঠের পশ্চিম দিক থেকে বনবিভাগের জায়গা ও ১০ পরিবারের বসতঘরের উপর দিয়ে বর্তমানে জোর পূর্বক খুঁটিগুলি স্থাপিত করতে যাওয়ায় গ্রামবাসী ও বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছে। গ্রামবাসীর দাবী ও সরেজমিনে দেখা যায় ৬/৭টি খুঁটির জন্য কয়েক শতাধিক বাঁশ ও বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কেটেই এ সংযোগটি চালু করতে হবে। গত রমজান মাসে খুঁটিগুলি জোর পূর্বক স্থাপন করতে গিয়ে বাঁধার সম্মুখীন হলে ঠিকাদার মানিক খুঁটিগুলি স্থাপন না করেই বন্ধ করে রাখে। এদিকে কতিপয় স্বার্থান্বেষী মহল বিদ্যুৎ ও পুলিশ কর্তৃপক্ষকে ভুল তথ্য দিয়ে পল্লী বিদ্যুতের কাজে বাঁধা প্রদানের অযুহাতে ভূক্তভোগী এক পরিবারকে আটকেরও চেষ্টা করে। সম্প্রতি নাপিতখালী বনবিট ও ভোমরিয়াঘোনা বিটের কতিপয় কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে এসে গাছ না কেটে বিকল্প জায়গা দিয়ে খুঁটি স্থাপনের অনুরোধ করেন। সরেজমিন দেখা যায়, ৩টি খুঁটি একেবারে স্থানীয় বসতভিটার ভিতরে। ঐ খুঁটির উপর বিদ্যুতের তার স্থাপন করলে কয়েক শতাধিক গাছ কেটে ফেলতে হবে। এদিকে সরকার গাছ লাগান, পরিবেশ বাচান, গাছে সত্যি টাকা ফলে এ শ্লোগানকে সামনে রেখে প্রতি বছর গাছ রোপন করে আসলেও মুষ্টিমেয় ২/৩ পরিবারের জন্য কেন গাছ কেটে বিদ্যুৎ নিয়ে যেতে হবে। তাই উর্ধ্বতন বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের কাছে গ্রামবাসীর অনুরোধ সরেজমিন তদন্ত পূর্বক বিকল্প জায়গা দিয়ে যেন বিদ্যুৎ স্থাপন করা হয়। অন্যথায় তারাও বিকল্প চিন্তা করতে বাধ্য হবে বলে স্থানীয় সংবাদকর্মীদের জানান। গ্রামবাসীর মধ্যে শাহ আলম, রাকিবুল হাসান, আলী আকবর, জামাল হোছন, মোক্তার আহমদ, ফরিদুল আলম, মোঃ ইসলাম ও তাছলিমার বসতঘর এবং ৫ শতাধিক গাছ রয়েছে বলে এ প্রতিবেদককে জানান। বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ সুদৃষ্টি দিলেই মাজারে বিকল্প তথা পশ্চিম পাশ দিয়ে ৩টি খুঁটি স্থাপন করলে মাজারসহ বিভিন্ন জায়গায় বিদ্যুৎ চলে যাবে। তাই তদন্ত পূর্বক স্থাপিত ২/৩টি খুঁটি উপড়ে ফেলে বিকল্প সড়ক দিয়ে নতুন সংযোগ স্থাপনের জোর দাবী জানান এলাকাবাসী। বিষয়টি নিয়ে ঠিকাদার মানিকের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও না পাওয়ায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

সর্বশেষ সংবাদ

জজকোর্টের জারীকারক মনির আর নেই : রোববার জুহুরের পর জানাজা

‘ফুলটাইম’ রাজনীতি করবেন চিত্রনায়ক ফেরদৌস

টেকনাফে পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধ’ ইয়াবাকারবারি নিহত

পকেটে থাকা আগ্নেয়াস্ত্রে ঢাবিতে ছাত্রলীগ নেতা গুলিবিদ্ধ

গোমাতলীর ছুরত হাজী আর নেই

মস্কোয় হাজারো মানুষের বিক্ষোভ

এবার ঈদের আগেই খালেদা জিয়ার মুক্তি!

দেশদ্রোহী হিসেবে প্রিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে

উদ্দেশ্য খুঁজতে প্রিয়া সাহার কল রেকর্ড-ট্রাভেল হিস্ট্রি যাচাই

২,৯৬০টি ইয়াবা নিয়ে ধরা পড়লো রোহিঙ্গা নারী

প্রথম-লঘু অপরাধে শাস্তি নয়, ‘শিক্ষানবিশ আইন’ চূড়ান্ত

চকরিয়ায় পুলিশের হাতে ইয়াবাসহ ২ পাচারকারী আটক

বদলে গেলো কক্সবাজার সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসা পদ্ধতি

‘নতুন যুগে’ প্রবেশ করলো কক্সবাজার সদর হাসপাতাল

ইসলামপুরে ৫ ট্রাক লবণ জব্দ, আমদানিকারক ও মিল মালিক সমিতি মুখোমুখি

কক্সবাজারে উন্নয়নের মহাযজ্ঞ বাস্তবায়ন করছে সরকার : সাংবাদিকদের ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া

উখিয়া সংবাদকর্মীর উপর ইয়াবা ব্যবসায়ীর হামলা

ট্রাম্পের কাছে করা অভিযোগের সাথে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটের কোন সম্পর্ক নেই : ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া

দৈনিক হিমছড়ি আয়োজিত বিশ্বকাপ কুইজের পুরষ্কার বিতরণ

রাজপথে নামুন, বিজয় সুনিশ্চিত ইনশাল্লাহ : নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে কাজল