ইসলামাবাদে এক মাজারের নামে বিদ্যুতের খুঁটি স্থাপনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের আশঙ্কা

মোহাম্মদ মিজানুর রহমান আজাদ, ঈদগাঁও :

কক্সবাজার সদরের ইসলামাবাদ ইউনিয়নের পশ্চিম গজালিয়াস্থ হযরত শাহ পেঠান ফকিরের মাজারে বিদ্যুৎ স্থাপনের জন্য ২/১টি খুঁটিই যথেষ্ট। পশ্চিম গজালিয়াস্থ স্থান দিয়ে মাত্র ২টি খুঁটি স্থাপন করলেই মাজারে বিদ্যুৎ চলে যায়। তা না করে কতিপয় প্রভাবশালী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষকে ভুল তথ্য দিয়ে পশ্চিম গজালিয়াস্থ ঐতিহাসিক ফুটবল মাঠের পশ্চিম দিক থেকে বনবিভাগের জায়গা ও ১০ পরিবারের বসতঘরের উপর দিয়ে বর্তমানে জোর পূর্বক খুঁটিগুলি স্থাপিত করতে যাওয়ায় গ্রামবাসী ও বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছে। গ্রামবাসীর দাবী ও সরেজমিনে দেখা যায় ৬/৭টি খুঁটির জন্য কয়েক শতাধিক বাঁশ ও বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কেটেই এ সংযোগটি চালু করতে হবে। গত রমজান মাসে খুঁটিগুলি জোর পূর্বক স্থাপন করতে গিয়ে বাঁধার সম্মুখীন হলে ঠিকাদার মানিক খুঁটিগুলি স্থাপন না করেই বন্ধ করে রাখে। এদিকে কতিপয় স্বার্থান্বেষী মহল বিদ্যুৎ ও পুলিশ কর্তৃপক্ষকে ভুল তথ্য দিয়ে পল্লী বিদ্যুতের কাজে বাঁধা প্রদানের অযুহাতে ভূক্তভোগী এক পরিবারকে আটকেরও চেষ্টা করে। সম্প্রতি নাপিতখালী বনবিট ও ভোমরিয়াঘোনা বিটের কতিপয় কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে এসে গাছ না কেটে বিকল্প জায়গা দিয়ে খুঁটি স্থাপনের অনুরোধ করেন। সরেজমিন দেখা যায়, ৩টি খুঁটি একেবারে স্থানীয় বসতভিটার ভিতরে। ঐ খুঁটির উপর বিদ্যুতের তার স্থাপন করলে কয়েক শতাধিক গাছ কেটে ফেলতে হবে। এদিকে সরকার গাছ লাগান, পরিবেশ বাচান, গাছে সত্যি টাকা ফলে এ শ্লোগানকে সামনে রেখে প্রতি বছর গাছ রোপন করে আসলেও মুষ্টিমেয় ২/৩ পরিবারের জন্য কেন গাছ কেটে বিদ্যুৎ নিয়ে যেতে হবে। তাই উর্ধ্বতন বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের কাছে গ্রামবাসীর অনুরোধ সরেজমিন তদন্ত পূর্বক বিকল্প জায়গা দিয়ে যেন বিদ্যুৎ স্থাপন করা হয়। অন্যথায় তারাও বিকল্প চিন্তা করতে বাধ্য হবে বলে স্থানীয় সংবাদকর্মীদের জানান। গ্রামবাসীর মধ্যে শাহ আলম, রাকিবুল হাসান, আলী আকবর, জামাল হোছন, মোক্তার আহমদ, ফরিদুল আলম, মোঃ ইসলাম ও তাছলিমার বসতঘর এবং ৫ শতাধিক গাছ রয়েছে বলে এ প্রতিবেদককে জানান। বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ সুদৃষ্টি দিলেই মাজারে বিকল্প তথা পশ্চিম পাশ দিয়ে ৩টি খুঁটি স্থাপন করলে মাজারসহ বিভিন্ন জায়গায় বিদ্যুৎ চলে যাবে। তাই তদন্ত পূর্বক স্থাপিত ২/৩টি খুঁটি উপড়ে ফেলে বিকল্প সড়ক দিয়ে নতুন সংযোগ স্থাপনের জোর দাবী জানান এলাকাবাসী। বিষয়টি নিয়ে ঠিকাদার মানিকের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও না পাওয়ায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

লামায় পাহাড় কাটার দায়ে শ্রমিককে ১ লাখ টাকা জরিমানা

নতুন জেলা জজ কর্মস্থলে যোগ দিতে এখন কক্সবাজারে

‘সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে সবার সচেতনতা প্রয়োজন’

টেকনাফে ঘুর্ণিঝড় প্রস্তুতিমূলক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

চট্টগ্রামে ছিনতাইকারী ধরতে ফায়ার সার্ভিস!

মাদক ব্যবসায়িদের গুলি করুন, কেউ কাঁদবে না

২৩ সেপ্টেম্বর কর্ণফুলীতে আসছেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

কচ্ছপিয়াতে আবারও বজ্রপাতে ১ মহিলা আহত

ঈদগাঁওতে চাঁন্দের গাড়ির হেলফার নিহত , চালক গুরুতর আহত

ধর্ষণের শিকার নারীর গর্ভের সন্তানের বিধান কী?

মালয়েশিয়ায় ভেজাল মদ খেয়ে বাংলাদেশিসহ ১৫ জনের মৃত্যু

মধু খেলেই ৭ জটিল সমস্যার সমাধান

মুসলমান মেয়েদের হাত মেলানো উচিত না : পপি

নাইক্ষ্যংছড়িতে সেরা শিক্ষক বুলবুল আক্তার

পেকুয়া সড়ক দুর্ঘটনা : চালকের আসনে ছিল হেলপার , নিহত -১

কেঁওচিয়া ইউনিয়ন ছাত্রদলের ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি অনুমোদন

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে সাপে কাটা ৩৬ রোগীর চিকিৎসা

পেকুয়ায় যাত্রীবাহী বাস খাদে, নিহত-১ আহত-২

বৃহত্তর ঐক্যের বড় বাধা বিএনপিতেই!

আল্লাহর বন্ধু হবেন যেভাবে