চবিতে বঙ্গবন্ধুর স্মরণ সভা

জুবাইর উদ্দিন, চবি
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের অডিটোরিয়ামে “বাঙ্গালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস- ২০১৮” পালন উপলক্ষে এক আলোচনা ও স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১ টায় সভায় বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদ ও জাতির পিতাসহ তাঁর পরিবারের শহীদদের পারলৌকিক শান্তি কামনা করে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয় ।

এরপর সভায় বক্তারা জাতির পিতার অবদানের উপর আলোকপাত করেন। বক্তারা বলেন, জাতির পিতা সারাটি জীবন উৎসর্গ করেছিলেন বাঙালির মুক্তির জন্য, বাঙালির স্বাধিকারের জন্য, যার জন্ম না হলে বাংলাদেশ নামক স্বাধীন রাষ্ট্রের জন্ম হতো না।

শিক্ষক সমিতি প্রফেসর ড. আহমদ সালাহ উদ্দিনে সভাপতিত্বে উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী।

তিনি বলেন, ৭৫ এ বঙ্গবন্ধু হত্যার পর ২১ বছর নিষিদ্ধ ছিল ৭ই মার্চের ভাষণ।রেডিও টিভিতে এই ভাষণ প্রচার করা হতো না কখনোই।অনেকে মাইকে এই ভাষণ প্রচার করতে গিয়ে গ্রেফতার হয়েছেন, প্রাণ দিয়েছেন।আজ সেই ভাষণই শীর্ষ খেতাব পেয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডে শুধু বাঙ্গালী এতিম হয় নি,বিশ্ববাসি হারিয়েছে একজন মহান নেতাকে

তিনি মোবাইল ফোনে দেয়া হুমকির বিষয়ে বলেন,আমাকে ভয় দেখিয়ে চুপ রাখা যাবে না।আমি সত্যের পক্ষে বলবই।

সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার।

প্রধান আলোচক ছিলেন একুশে পদকপ্রাপ্ত শিক্ষাবিদ ও সাবেক ইউ. জি. সি অধ্যাপক অর্থনীতি বিভাগের প্রফেসর ড. মইনুল ইসলাম।

এছাড়া বিভিন্ন অনুষদের ডিন ও বিভিন্ন বিভাগের সভাপতি সহ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির তিন শতাধিক সদস্য সভায় উপস্থিত ছিলেন।

শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. অলক পালের সঞ্চালনায় সভায় প্রধান আলোচক প্রফেসর ড. মইনুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করার ক্ষমতা ও অভিজ্ঞতা আমার মোটেই নেই। যে দিন রেডিওতে বঙ্গবন্ধু -কণ্ঠের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ এর ভাষণ শুনেছি, সে দিন থেকে শেখ মুজিব আমার হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধু সত্যের পথ অবলম্বন করেছেন, সত্য থেকে বিচ্যুত হননি। তাই আজকের প্রজন্মের সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মূল্যবোধের সেতুবন্ধন তৈরি করে দিতে হবে। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে তা অব্যাহত রেখে আমাদের দায়িত্ববোধের প্রমাণ রাখতে হবে। আমাদের দায়িত্ব পূরণের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধু সাধারণ মানুষের প্রতি যে মমতা ও অঙ্গীকার রেখেছেন- অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষ্যে আমাদের সবাইকে কর্মের মধ্য দিয়ে সেই অঙ্গীকার বাস্তবায়নের জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান।

বিশেষ অথিতির বক্তব্যে প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার বলেন,বঙ্গবন্ধুর জীবনে অনেক হুমকি আসলেও তিনি বাঙালি জাতির কথা চিন্তা করে তার রাজনীতি থেকে এক পা পরিমাণ পিছু হটেন নি। বঙ্গবন্ধু আমার বাবার সমতুল্য। তার বিরুদ্ধে কোন অপপ্রচার হলে আমার সহ্য হয় না।বঙ্গবন্ধুর আদর্শ আমাদের ধরে রাখতে হবে।

সর্বশেষ সংবাদ

হুফফাজুল কুরআন সংস্থার উদ্যোগে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

অপহরণকারী সন্দেহে ৩ সাংবাদিকের উপর রোহিঙ্গাদের হামলা

চকরিয়ায় হেলিকপ্টারে এসে মাদ্রাসা উদ্বোধন করলেন আল্লামা আহমদ শফি

বেনাপোল নোম্যান্সল্যান্ডে দু‘বাংলার হাজার হাজার ভাষাপ্রেমী মানুষের মিলন মেলা

শহীদ মিনারে ইইডি কক্সবাজার জোনের শ্রদ্ধা নিবেদন

মানবপাচারের মামলায় চৌফলদন্ডী ছাত্রলীগ নেতা জিকু গ্রেফতার

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে রামু লেখক ফোরামের আলোচনা সভা

শহীদ মিনারে জেলা পরিষদের শ্রদ্ধা নিবেদন

একুশ তুমি

চট্টগ্রাম শহীদ মিনারে কক্সবাজার সমিতির শ্রদ্ধা নিবেদন

শহীদ মিনারে আইনজীবী সমিতির শ্রদ্ধা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

শহীদ মিনারে জেলা পুলিশের শ্রদ্ধা নিবেদন

২৬ দিনেই বিধবা হলেন স্মৃতি

আলীকদম উপজেলা নির্বাচনে হেভিওয়েট প্রার্থী আবুল কালাম

আলীকদমে পদত্যাগী চেয়ারম্যান ও প্রার্থীর বিরুদ্ধে মামলা

ডিলাইট হলিডে ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে মহান একুশে ফেব্রুয়ারি উদযাপিত

সেন্টমার্টিন বঙ্গোপসাগর থেকে ১১ জন মাঝিমাল্লা ও ট্রলারসহ ১লাখ ইয়াবা উদ্ধার

আমি বাংলায় ভালোবাসি , বাংলাকে ভালোবাসি

কক্সবাজার হাশেমিয়া কামিল মাদ্রাসায় শহীদ দিবস উদযাপন

ফুলে ফুলে ভরে গেছে ঈদগাঁও কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার