এখনও কাটেনি ঈদের আমেজ

নুরুল আমিন হেলালী

ঈদুল আযহার নির্ধারিত ছুটি শেষে অফিস আদালত খুললেও পর্যটন নগরী কক্সবাজারের বিনোদন স্পটগুলোতে এখনও কাটেনি ঈদের আমেজ। এখনও ভ্রমন পিয়াসী মানুষের পদচারণায় মূখরিত পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতসহ বিনোদন কেন্দ্রগুলো। ফলে খোশ মেজাজে রয়েছে পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা। চাঙ্গা রয়েছে কক্সবাজারের অর্থনীতি। শহরের অভ্যন্তরিণ সড়ক-উপসড়কে চলছে রিক্সা, টমটম ও সিএনজি ট্যাক্সির দাপট।

তবে দেখা গেছে, ফিরতি যাত্রী বাড়তে থাকায় বাসষ্টেশন ও বিমান বন্দরে যাত্রীদের ভীড় ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। মেঘের কোলে রোদ হেসেছে বাদল গেছে টুটি, আজ আমাদের ছুটি ও ভাই আজ আমাদের ছুটি। কবি গুরুর কবিতার লাইনগুলোর মতোই যেন মেঘ-রোদ্দুরের এই লুকোচুরির বিকেল বেলা বাবা-মায়ের সঙ্গে হাত ধরে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের লাবণী পয়েন্টে ঘুরছিল আলিফ ও রামিসা নামের দুই ভাই-বোন। তাদের চোখে-মুখে ছিল খুশির ঝিলিক। তারা গাল ফোলানো হাসিতে জানায়, ঈদের ছুটির এই দিনগুলো তাদের ভালই কাটছে। কেননা যে কদিন তারা এইখানে আছে নেই বাবা-মায়ের বকা-ঝকা, নেই চোখ রাঙানি, নেই পড়ার ঝামেলা। শুধুই আনন্দ আর আনন্দ। এখনও হাজারো পরিবার মনের আনন্দে ঘুরে বেড়াচ্ছে বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে। তবে অনেক পর্যটকের অভিযোগ সৈকতে ভ্রাম্যমান মৌসুমী ব্যবসায়ীদের বিড়ম্বনায়ও তাদের পড়তে হচ্ছে।

চট্রগ্রামের চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা থেকে স্ব-পরিবারে কক্সবাজারে বেড়াতে আসা পুলিশ কর্মকর্তা বশিরুল ইসলাম জানান, এখানে এসে দেখলাম ঈদের ছুটির আমেজ এখনও পুরোপুরি কাটেনি। ভ্রমণ পিয়াসী মানুষের পদচারণায় পর্যটন শহরে এখনও বিরাজ করছে ঈদের আমেজ। এদিকে পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা জানান, এবারে বিদেশী পর্যটক কম থাকলেও ঈদের পরদিন থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আগত পর্যটকদের উপছে পড়া ভিড় ছিল কক্সবাজারের ইনানী, হিমছড়ি, ছেরাদ্বীপ, মহেশখালীর আদিনাত, রামুর বৌদ্ধমন্দ্বির, ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক, লাবণী সমুদ্র সৈকতসহ বিনোদন কেন্দ্রগুলো।

সরেজমিনে দেখা গেছে, শহরের পর্যটন স্পটগুলো এখনও পর্যটকদের পদচারণায় মূখরিত। এদিকে কলাতলী হোটেল-মোটেল জোনের কয়েক ব্যবসায়ীর সাথে কথা বলে জানা যায়, সুন্দর আবহাওয়া বিরাজমান থাকায় এবং রাজনৈতিক অস্থিরতা না থাকায় এবার ঈদুর আযহা পরবর্তী পর্যটকের ঢল নেমেছে। জমে উঠেছে ব্যবসা বাণিজ্য। ব্যবসায়ীরাও মন্দা কাটিয়ে আলোর মুখ দেখতে শুরু করেছে।

অন্যদিকে আতিক, বক্কর, সোনিয়াসহ কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দ্বা জানান, পর্যটন মৌসুম আসলেই শহরের অভ্যন্তরীণ সড়কে চলাচলকারী গণপরিবহন গুলোতে চলে ভাড়ার নামে যাত্রীদের পকেট কাটা বাণিজ্য। এসব পরিবহনের অনৈতিক ভাড়া বাণিজ্যের কারণে ঘর থেকে বের হওয়া দায় হয়ে পড়েছে। যেন দেখার কেউ নেই। পৌরসভার নির্ধারিত ভাড়া তালিকা থাকলেও পর্যটক আসার সাথে সাথে তা কেউ মানছে না। যে যেভাবে পারছে যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া নিয়ে নিচ্ছে। এনিয়ে চালক ও যাত্রীদের মাঝে চলছে বাকবিতন্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা।

অপরদিকে সৈকতে পর্যটকদের নিরাপত্তায় নিয়োজিত ট্যুরিস্ট পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, শহরে পর্যটকদের জন্য চব্বিশ ঘন্টা নিরাপত্তা দিচ্ছে পুলিশ প্রশাসন।

সর্বশেষ সংবাদ

তুমব্রু খালে এবার স্লুইচ গেইট নির্মাণ করছে মিয়ানমারঃ বিজিবি ও বিজিপির পতাকা বৈঠক সম্পন্ন

সদর হাসপাতালে সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে পদক্ষেপ নেয়া হবে : এমপি কমল

কক্সবাজারের সন্তান কায়িদ ঢাকায় শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত

জলকেলি উৎসবে মুখরিত রাখাইন পল্লীগুলো

উচ্চ শিক্ষা অর্জনে বিদেশ গমনে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীকে আর্থিক সহযোগীতা দেয়া হবে- এমপি কমল

হোপ ফাউন্ডেশনে ‘জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ ২০১৯’ উৎযাপন

খরুলিয়ার সেই মা-মেয়েকে মামলা দিয়ে কারাগের প্রেরণ

এড. কবির ছিলেন একজন সফল মানুষ : জেলা জজ হাসান মোঃ ফিরোজ

কক্সবাজার সরকারি কলেজে ইতিহাস বিভাগের ৪র্থ বর্ষে পদার্পণ উৎসব

চতূর্থবারের মতো চট্টগ্রাম রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ টেকনাফের ওসি প্রদীপ

চকরিয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতে মাদকসেবীকে ৩ মাসের সাজা

বদরমোকাম সমাজের পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠিত

সাংবাদিক হানিফসহ তিনজনকে শ্রেষ্ঠ সন্তান ও ছয় জনকে শ্রেষ্ঠ প্রবীণ সম্মাননা

নবম শ্রেণির প্রশ্নে সানি লিওন-মিয়া খলিফা!

আবুধাবি দূতাবাসে বাংলা নববর্ষ ১৪২৬ উদযাপন

এক পা দিয়ে লাফিয়ে লাফিয়ে টিউশনি করে পড়াশোনা ও সংসারের ঘানি টানছেন যিনি

হোপ ট্রেনিং সেন্টারের নতুন ফ্লোর উদ্বোধন

লামায় সতেরটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুর্ঘটনার ঝুঁকি নিয়ে চলছে পাঠদান

চকরিয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতে মাদকসেবীকে ৩ মাসের সাজা

জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল সৌদি আরব প্রবাসী কক্সবাজার জেলা কমিটি অনুমোদন