বিনোদনের নতুন স্পট ইসলামপুর খাঁনঘোনা জাপানি সড়ক

সেলিম উদ্দীন, ঈদগাঁওঃ

কক্সবাজার সদরের ইসলামপুর খাঁন ঘোনা বেশ ক’টি চিংড়ি ঘেরের কলকলিয়ে পানির শব্দ। চাষীদের মাছ ধরা সব মিলে যেন একাকার শিল্প এলাকার বিনোদনের স্পট খাঁন ঘোনা- জাপানি সড়কের পোকখালী স্কুল পয়েন্ট। সড়কের দক্ষিণ খাঁন ঘোনা পাড়া থেকে সাদা ঘোনা ব্রীজ পর্যন্ত সকাল থেকে ভ্রমণ পিপাসু মানুষের সারক্ষণ আনাগোনা। গুমোট আবহাওয়া জনজীবনে ত্রাহি অবস্থা। এমন গরমেও একটু স্বস্তি নিতে মৃদু হাওয়া শান্তির পরশ পেতে ছুটে যান খাঁন ঘোনা সড়কের তীরে। স্থানীয়রা ছাড়াও বিভিন্ন যায়গা থেকে ঘুরতে আসেন ভ্রমণপিপাসুরা।

বিশেষ করে পড়ন্ত বিকেলে লোকারণ্য হয়ে যায় সড়কের দু’পাশ, যা আরও বৃদ্ধি পায় সন্ধ্যার আগ মুহুর্তে। বিশুদ্ধ বাতাস আর প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের টানে ছুটে আসেন হাজারও মানুষ। তাদের কেউ সড়কের ফুটপাতে বসে আড্ডা দেন, কেউ বা মগ্ন থাকেন প্রকৃতির সৌন্দর্য উপভোগে, আবার কেউ কেউ বেড়ানোর জন্য ঘেরের নৌকায় ওঠে পড়েন। দর্শনার্থীদের ভিড়ে বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত জমজমাট থাকে প্রায় ২ কিলোমিটার এলাকা।

গত শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত সরেজমিনে সড়ক তীর ঘুরে দেখা যায়, চিংড়ি ঘেরের ছোট ছোট ঢেউ। আছে নৌকা, ঘেরের টং ঘর। দুপুর, সন্ধ্যা নেই সব সময় মুখরিত সড়ক তীর। তবে বসার জন্য নিদিষ্ট জায়গা নেই। সড়কের গাইডওয়ালের পাশ দর্শনার্থীদের বসার স্থান। এ সড়ক দিয়ে সহজেই হেঁটে অপরূপ সৌন্দর্য্য দেখতে পারছেন আগতরা। শীতল বাতাসে প্রাণ জুড়িয়ে যাচ্ছে দর্শনার্থীদের।

স্থানীয়রা জানান, যে কোন উৎসবের ছুটিতে সড়কের পাড়ে তিল ধারণের জায়গা থাকে না। বছরের অন্য সময়গুলোতে এখানে মানুষের বেশ উপস্থিতি থাকে। ওয়াকওয়ের পথে হেঁটে হেঁটে অনেকে নেমে যান চিংড়ি ঘেরের লবণ পানিতে। প্রতিদিনই মানুষ এখানে কমবেশি এলেও ছুটির দিনগুলোতে থাকে সবচে উপচে পড়া ভিড়।

এ সড়কে ঘুরতে আসা কক্সবাজার সরকারি মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী কাউছার জান্নাত বলেন, নির্মল বিনোদনের জায়গা সড়কের পাড়। এখানকার মতো এমন বিশুদ্ধ বাতাস আর কোথাও নেই। তাই এখানে মাঝে মধ্যে ঘুরতে আসি। তবে প্রত্যেক দিন সবচেয়ে বেশি যারা ঘুরতে আসেন তাদের অধিকাংশ বিভিন্ন স্কুল এবং কলেজের শিক্ষার্থী।

তাছাড়া অবসর সময় কাটানোর জন্য পুরো ইসলামপুরবাসির মানুষের কাছে এই স্থানটি খুবই প্রিয়। সুযোগ পেলেই বিশুদ্ধ বাতাস নিতে ছুটে আসেন তারা। এর মধ্যে তরুণদের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

ছেলেকে নিয়ে ঘুরতে আসা ব্যবসায়ী জসিম উদ্দীন বলেন, ছেলেকে নিয়ে সড়কের পাড়ে ঘুরতে এসেছি। এখানের মতো বিশুদ্ধ বাতাশ, চিংড়ি ঘেরে নৌকা ও জাল ফেলানোর দৃশ্য দেখার সুযোগ আছে। তাই প্রাকৃতিক পরিবেশের দৃশ্য দেখতে এসেছি।

দর্শনার্থীদের ভীড় বেশি হলেও গড়ে উঠেনি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান বা খাবার দোকান।

রফিক নামের এক ডাব বিক্রেতা বলেন, বিশেষ করে ছুটির দিনে মানুষ বেশি হয়। এখনে অনেক মানুষ আসে তবে সাবাই তো আর খায় না অনেকে শুধু ঘোরা-ফেরা করে চলে যায়। আগের চেয়ে বর্তমানে অনেক মানুষ ঘুরতে আসে তাই বিক্রি একটু বাড়ছে। তবে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বিক্রি একটু কম হলেও সন্ধ্যায় বিক্রি ভালোই হয়।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

প্রসঙ্গ : প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চলতি দায়িত্ব

বৃহত্তর ঈদগাঁওয়ের প্রায় ১শ কি.মি সড়ক চলাচলের অনুপযোগী, সেতুমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ

টেকপাড়ায় মাঠে গড়াল বৃহত্তর গোল্ডকাপ ফুটবল টূর্ণামেন্টের ৫ম আসর

মাতারবাড়ী কয়লাবিদ্যুৎ প্রকল্প পরিদর্শনে গেলেন বিভাগীয় কমিশনার

নতুন বাহারছড়ার সেলিমের অকাল মৃত্যু: মেয়র মুজিবসহ পৌর পরিষদের শোক

জেলা আ’ লীগের জরুরী সভা

মাদক কারবারীদের বাসাবাড়ীতে সাঁড়াশি অভিযান, ইয়াবাসহ আটক ৩

সৈকতে অনুষ্ঠিত হলো জাতীয় উন্নয়ন মেলা কনসার্ট

পেকুয়ায় অটোরিকশা চালককে তুলে নিয়ে মারধর

পুলিশ সুপারের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ

ফেডারেশন অব কক্সবাজার ট্যুরিজম সার্ভিসেস এর সভাপতি সংবর্ধিত

কাউন্সিলর হেলাল কবিরকে বিশাল সংবর্ধনা

কলাতলীতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, দুইজনকে জরিমানা

আ. লীগের কেন্দ্রীয় টিমের জনসভায় সফল করতে জেলা শ্রমিকলীগ প্রস্তুত

মানবপাচারকারী রুস্তম আলী গ্রেফতার

দেশে গণতান্ত্রিক অধিকার নেই, পুলিশী রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে : শাহজাহান চৌধুরী

১২দিনেও খোঁজ মেলেনি মহেশখালীর ১৭ মাঝিমাল্লার

শেখ হাসিনার উন্নয়নের লিফলেট বিতরণ করলেন ড. আনসারুল করিম

কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার-১০

১ অক্টোবর থেকে সারাদেশে সভা-সমাবেশ করার ঘোষণা