ডেস্ক নিউজ:
ইদানীং বিএনপির কোনো কর্মসূচিতে দেখা যাচ্ছে না দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীকে। যোগাযোগ নেই দলের অন্য নেতাদের সঙ্গেও। আগামী ২৮ আগস্ট দুদকের প্রধান কার্যালয়ে তলব করা হয়েছে তাকে। রাজনৈতিক ও সামাজিক কর্মসূচিতে অনুপস্থিতির কারণে প্রশ্ন উঠেছে তাহলে কোথায় আছেন আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী?

চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে দলবল নিয়ে যোগ দেয়ার জন্য নওমী নামে এক কর্মীর সঙ্গে মোবাইল ফোনালাপ উদ্ধার করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। ১ মিনিট ৪৯ সেকেন্ডের ওই ফোনালাপের জের ধরে ষড়যন্ত্রের অভিযোগে ওই দিনই রাত ১১টায় চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর সিএমপির কোতোয়ালি থানায় তার বিরুদ্ধে ৫৭ ধারায় মামলা দায়ের করেন। এরপর ওই রাতেই আমীর খসরুর ঢাকার বাসায় প্রায় ৩ ঘণ্টা তল্লাশি চালায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

জানা গেছে সর্বশেষ বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশানের অফিসে বিভাগীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠক চলাকালে নিজের বিরুদ্ধে মামলার খবর পান আমীর খসরু। সেদিন থেকেই থেকেই আত্মগোপনে চলে যান তিনি। তার মুঠোফোনের দুটো নম্বরই বন্ধ।

এদিকে রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন আছে, ক্ষমতাসীন দলের এক ব্যবসায়ী নেতার পাঁচ তারকা হোটেলে সময় কাটাচ্ছেন সাবেক এই বাণিজ্যমন্ত্রী।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবীর খান বলেন, ‘তিনি কোথায় আছেন আমার জানা নেই।’

সহ-দফতর সম্পাদক মো. মুনির হোসেন বলেন, ‘আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর সঙ্গে আমার যোগাযোগ নেই।’

দলের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল বলেন, ‘তার নামে মামলা হয়েছে শুনেছি। দলীয় প্রোগ্রামেও তিনি আসছেন না। আমার সঙ্গে তার যোগাযোগ হয়নি। ’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •