রাজনৈতিক ঐক্যে যৌথ নেতৃত্ব চান ড. কামাল

ডেস্ক নিউজ:

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের বাইরে একটি বৃহৎ রাজনৈতিক ঐক্যে যৌথ নেতৃত্ব চান খ্যাতনামা আইনজীবী ড.কামাল হোসেন। বিএনপি ও সমমনা রাজনৈতিক দলগুলোর সম্ভাব্য ঐক্য কার নেতৃত্বে হবে, এমন প্রশ্ন আর সংশয়ের মধ্যে ড. কামাল হোসেন নিজের অবস্থান ব্যক্ত করলেন। তার ভাষ্য— এক দল নয়, এক ব্যক্তিও নয়, যৌথ নেতৃত্বে সম্ভাব্য বৃহৎ রাজনৈতিক ঐক্য প্রতিষ্ঠা পাবে।

শনিবার (১৮ আগস্ট) বিকালে গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘দেশের বৃহত্তর ঐক্যের বিষয়ে আমি অনেক আশাবাদী। অতীতেও দেখেছি দেশের সংকটকালে মানুষ একত্রিত হয়েছে। মানুষ সংকট থেকে উত্তরণের জন্য ঐক্যবদ্ধ হতে আগ্রহী।’

ড. কামাল হোসেনের মতো ঐক্যে আগ্রহী সমমনা সব নেতাই আশাবাদ ব্যক্ত করছেন— একটি বৃহত্তর রাজনৈতিক ঐক্য হবে। তবে সম্ভাব্য এই ঐক্যে বিকল্প ধারার একিএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী ও কামাল হোসেনকে কেন্দ্র করে তৈরি জটিলতায় ঐক্যের আলোচনাও থমকে আছে। প্রচারণা রয়েছে, ড. কামাল হোসেন সম্ভাব্য জোটের নেতৃত্বে নিজেকে দেখতে চান। এমনকী আসন্ন নির্বাচনে জোট বিজয়ী হলে প্রধানমন্ত্রীর পদেও বসতে চান এই খ্যাতনামা আইনজীবী।

বাংলা ট্রিবিউনের সঙ্গে এ বিষয়েও কথা বলেন ড. কামাল হোসেন। তিনি বলেন, ‘জোটের প্রধান-এর কথা বলে তো বিতর্ক সৃষ্টি করা হয়। বরং আমরা যারা থাকবো এই প্রক্রিয়ায় সবাই মিলে একটা যৌথ নেতৃত্বে একটি ঐক্য প্রতিষ্ঠা হবে। কোনও এক ব্যক্তি বা এক দলের নেতৃত্ব নয়। যারা থাকবে সবাই মিলে ঐক্যের নেতৃত্বে থাকবেন। এভাবেই ঐক্য এগিয়ে নিতে হবে।’

ড. কামাল হোসেন আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী হতে চাই, এ ধরনের কোনও কথা বলা ঠিক না। আমার ৮০ বছর বয়স হয়েছে। এখন এসে এসব কথা বলার কোনও মানে হয় না। আমি বিন্দুমাত্র এর মধ্যে নেই। আমি চাই, সুষ্ঠু রাজনীতির বিকাশ হবে। আমি আগ্রহভরে দেখতে চাই, একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সুন্দর রাজনৈতিক নেতৃত্বের বিকাশ। এটা আমি তাদেরকেও (যারা ঐক্য নিয়ে কথা বলেছেন)বলেছি, যে আপনারা এসব কথা বলবেন না।’

ড. কামাল হোসেনএদিকে, ড. কামাল হোসেনের ডাকে আগামী ২২ সেপ্টেম্বর সমাবেশের ঘোষণাকে কেন্দ্র করে যুক্তফ্রন্টে অস্থিরতা তৈরি হয়েছে। যুক্তফ্রন্টের একাধিক নেতার সঙ্গে গণফোরামের নেতারা দেখা করলেও সমাবেশে অংশগ্রহণ নিয়ে এখনও সিদ্ধান্ত নেননি তারা। কোনও কোনও নেতা সমাবেশটি গণফোরামের ব্যানারে করার পরামর্শ দিলেও এখন অব্দি গণফোরামের তরফে কোনও যোগাযোগ হয়নি। গত দুয়েকদিনে যুক্তফ্রন্টের বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বি চৌধুরীর কাছে যাওয়ার কথা ড. কামাল হোসেনের। বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, ‘আগামী দুয়েকদিনের মধ্যে সমাবেশের দাওয়াত নিয়ে আমি তার কাছে যাবো।’

উল্লেখ্য, গত ১১ মে ‘সমঝোতাপত্রে’ সই করে ঐক্যবদ্ধ থাকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছিলেন অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী ও ড. কামাল হোসেন।
জানা গেছে, সম্প্রতি বিএনপির স্থায়ী কমিটির দুই সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ সাক্ষাৎ করেন কামাল হোসেনের সঙ্গে। বিএনপির নেতারা ওই সাক্ষাৎকে ঐক্যের প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে বললেও ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘তাদের সঙ্গে ঐক্য নিয়ে কোনও আলাপ হয়নি। বিএনপির চেয়ারপারসনের মামলার বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে তারা এসেছিলেন।’

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

চকরিয়া কোরক বিদ্যাপীঠে আন্ত:ফুটবল টুর্ণামেন্ট উদ্বোধন

উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হোপ ফাউন্ডেশনের ৪০শয্যার হসপিটাল উদ্বোধন

পৌর কাউন্সিলরসহ ৪ মাদক কারবারির বাড়িতে অভিযান, নারীসহ দুই জনের সাজা

কক্সবাজার সিটি কলেজে পদার্থ বিজ্ঞান ও প্রাণ-রসায়ন অনার্স অধিভুক্তি লাভ

সাবেক এমপি মরহুম এড. খালেকুজ্জামান স্মরণে সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচী

কুতুবদিয়ায় অস্ত্রসহ আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৩ সদস্য আটক

কক্সবাজারে ‘শেখ হাসিনার উন্নয়নের গল্প’ প্রচারে ছাত্রনেতা ইশতিয়াক

লামায় কারিতাস টেকনিক্যাল ট্রেনিং কোর্সের সনদ বিতরণ

গোলদিঘীর সৌন্দর্য্য বর্ধন, মাস্টার প্ল্যান নিয়ে ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের সাথে কউকের মতবিনিময়

টেকনাফের ইয়াবা রানী ইয়াসমিনসহ দুইজন আটক, মিললো বস্তাভর্তি ৭২ হাজার ইয়াবা

টেকনাফে ২০ হাজার ইয়াবাসহ তিনজন আটক

বালুখালী শরণার্থী ক্যাম্প থেকে রোহিঙ্গা বৃদ্ধ অপহরণ, মুক্তিপণ দাবী

যানজটমুক্ত করতে মাঠে অটোবাইক মালিক চালকরা

বিতর্কিত ডিজিটাল আইন সংবিধান বিরোধী

কাঁদতে কাঁদতে মাঠ ছাড়লেন রোনালদো

ঘামের গন্ধে কাছে আসে যে সাপ

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব ফের গ্রেফতার

সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্কবার্তা

এক নিয়োগ আবেদনে ৪০ কোটিরও বেশি আয়

আলোচনায় বসতে মোদিকে ইমরানের চিঠি