সৈকতে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আলোকচিত্র প্রদর্শনী সমাপ্ত

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জীবন ভিত্তিক ছবি দেশের আনাচে-কানাচে ছড়িয়ে দিয়ে নতুন প্রজন্মের নিকট প্রকৃত ইতিহাস তুলে ধরতে হবে। জাতির জনকের অপ্রকাশিত ছবিগুলো ব্যাপকভাবে প্রদর্শন করার উপরও তিনি গুরুত্বারোপ করেছেন। তিনি  বৃহষ্পতিবার সকালে কক্সবাজার সৈকতের ল্বাণী পয়েন্টের বালুচরে আয়োজিত বঙ্গবন্ধুর চিত্র প্রদর্শনী দেখতে গিয়ে এসব কথা বলেন।

বিভাগীয় কমিশনার এসময় চট্টগ্রাম বিভাগীয় শহরের গ্যালারীতেও বাঙ্গালীর বেদনার মাস আগষ্টের শেষ সপ্তাহে কক্সবাজার সৈকতের আদলে আরো একটি চিত্র প্রদর্শনী আয়োজনের ঘোষণা দেন। তিনি আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন চিত্র সাংবাদিক পাভেল রহমানকে উক্ত প্রদর্শনীতে আরো বেশী ছবি রাখার অনুরোধ জানান। বিভাগীয় কমিশনারের সাথে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ মাহিদুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (পর্যটন সেল) এস,এম সরওয়ার কামাল, সহকারি কমিশনার তানভীর আহমদ ও সেলিম শেখ সহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে কক্সবাজার সাগর পাড়ের লাবণী পয়েন্টে মঙ্গলবার থেকে শুরু হওয়া তিন দিন ব্যাপি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আলোকচিত্র প্রদর্শনী গতকাল বৃহষ্পতিবার শেষ হয়েছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ৪৩ তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজন করা হয় এই প্রদর্শনী। সাগর পাড়ে এই প্রথম বারের মত ব্যতিক্রমধর্মী এমন প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন ও বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটি।

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আলোকচিত্র সাংবাদিক পাভেল রহমানের নিজের তোলা ও সংগৃহীত শতাধিক ছবি নিয়েই আয়োজন করা হয় প্রদর্শনীর। এসব ছবির মধ্যে অনেকগুলোই রয়েছে দুর্লভ ছবি। প্রদর্শনী নিয়ে আলোকচিত্র সাংবাদিক পাভেল রহমান বলেন-‘ সাগরের গর্জনের মতই বঙ্গবন্ধু গর্জে উঠেছিলেন পাকিস্তানীদের বিরুদ্ধে। সাগরের মতই ছিল তাঁর হ্রদয়।’ তিনি বলেন, কক্সবাজার জেলা প্রশাসন ও বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটি জাতীয় শোক দিবসের এমন এক সময়ে প্রদর্শনী আয়োজনের ব্যবস্থা করে দিয়ে বেশ ভালই করেছে।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক ও বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির সভাপতি মোঃ কামাল হোসেন এ প্রসঙ্গে বলেন, কক্সবাজারে রয়েছে জাতির জনকের অনেক স্মৃতি। কক্সবাজার সৈকতের রক্ষাকবচ হিসাবে পরিচিত ঝাউবিথীও জাতির জনকের স্মৃতিকে বহন করে চলেছে। এজন্য জাতির জনকের শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে বিশ্বের দীর্ঘতম সৈকত তীরকে তাঁর স্মৃতি প্রদর্শনীর জন্য বাছাই করে নেওয়া হয়েছে। সৈকতের লাবনী পয়েন্টে সার্বক্ষনিক সময় ধরে প্রদর্শনী সবার জন্য উন্মুক্ত ছিল। প্রতিদিন জেলা শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্টানের বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী সহ সাগর পাড়ে ভ্রমণে আসা পর্যটকরা এ চিত্র প্রদর্শনী দেখতে সমবেত হন।

cbn
কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

লেমশীখালী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু ইউসুফ আর নেই

রামু কলেজে উগ্রবাদ-সহিংসতা প্রতিরোধে বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও ওরিয়েন্টেশন

আওয়ামী লীগের সঙ্গে সম্পর্ক নেই ওলামা লীগের

বিয়েতে সৌদি নারীদের পছন্দের শীর্ষে বাংলাদেশি পুরুষরা

চুরি যাওয়া মোবাইল লক করে দেওয়ার সেবা চালু করছে বিটিআরসি

মহেশখালীতে বসতি উচ্ছেদ করে কয়লাবিদ্যুৎ প্রকল্পের রাস্তা নির্মাণ, উৎকন্ঠা

ফেরিওয়ালা

‘ওয়ার্ল্ড হিজাব ডে’ পালিত হবে ১ ফেব্রুয়ারি

সাবেক ফুটবলার কায়সার হামিদ কারাগারে

লাগাতার হাট-বাজার বয়কটে চরম দূর্ভোগে বাঘাইছড়ির লাখো মানুষ

সাবমেরিন ক্যাবলের কনসোর্টিয়ামে যুক্ত হলো বাংলাদেশ

রোহিঙ্গাদের দেখতে কক্সবাজারে জাতিসংঘের বিশেষ দূত

৩৭তম বিসিএস নন-ক্যাডারের ফল ফেব্রুয়ারিতে

একটি ব্রীজের জন্য ১০ গ্রামের মানুষের সীমাহীন দূর্ভোগ

কঠিন সময় পার করছে রেলওয়ে

ওয়াইফাই জোন স্থাপনের নিমিত্তে কউক’র আলোচনা সভা

স্বল্পমূল্যে অস্ত্র পাবেন সাংবাদিকরা

উখিয়ায় থেকে গাঁজাসহ তিনজনকে আটক করেছে র‌্যাব

মংডুতে বিজিবি-বিজিপির পতাকা বৈঠক

ঘুমধুমে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত