সেলিম উদ্দীন, ঈদগাঁও:
স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী তমিজিয়া ইসলামিয়া ফাজিল ডিগ্রী মাদরাসায় পালিত হয়েছে। এদিন সকালে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ, কালো পতাকা উত্তোলন, কালো ব্যাজ ধারণ, আলোচনা সভা এবং খতমে কোরআন-দোয়া মাহফিল-চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করা হয়।

সকাল ৯ টায় অধ্যাপক জহিরুল হক ও শিক্ষিকা ইছমত আরা বেগমের সঞ্চালনায় পৃথক পৃথক অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন অধ্যক্ষ মু. ওমর হামজা ও উপাধ্যক্ষ মাওলানা রাহমাতুচ্ছালাম।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুটাখালী ইউপি চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুর রহমান। তিনি তাঁর বক্তব্যে তরুণ প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশ গড়ার কাজে সবাইকে আত্মনিয়োগ করার আহ্বান জানান।

এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মাদরাসার গর্ভণিং বডির সদস্য ইউনিয়ন আ’লীগ সহ-সভাপতি বাহাদুর হক ও শেখ বশির আহমদ হেলালী।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আরবী প্রভাষক মাওলানা আবুল ফজল, মাওলানা রশিদ আহমদ, ইংরেজি প্রভাষক মাঈনুদ্দীন ও ইবি প্রধান জসিম উদ্দীন।

এসময় কর্মরত শিক্ষকদের মধ্যে বাংলা সহ-অধ্যাপক রমিজ উদ্দীন শরফী, সহকারী শিক্ষক আব্বাস উদ্দীন, জমির উদ্দীন, মাওলানা কুতুব উদ্দীন, বেলাল উদ্দীন, মুফাচ্ছেল আহমদ আজিজী, মনির উদ্দীন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

১৫ আগস্ট ১৯৭৫ এ শাহাদত বরণকারী বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারবর্গের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া পরিচালনা করেন নুরানী শিক্ষক মাওলানা নজরুল ইসলাম।

অনুষ্ঠান শেষে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদান এবং শোকাবহ ১৫ আগস্ট শীর্ষক নির্ধারিত বক্তৃতা ও প্রাথমিক শাখায় চিত্রাংকন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •