দুই দিক দিয়ে বাজারের প্রবেশ মুখ বন্ধ

ঈদগাঁও বাজারে ব্যবসা বানিজ্যে ভয়াবহ ধস!

শাহিদ মোস্তফা শাহিদ, কক্সবাজার সদর :

সড়ক ও ব্রীজ সংস্কারের ধীরগতির কারনে জেলার ২য় বানিজ্যিক কেন্দ্র ঈদগাঁও বাজারের ব্যবসা বাণিজ্যে ধস নেমেছে। জেলার বৃহত্তম বাণিজ্যিক কেন্দ্রে এখন ক্রেতা শূন্য হয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যে অনেক দোকানপাট বন্ধ হয়ে গেছে। এ বাজারে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মরত অনেক কর্মচারী বেকার হয়ে পড়েছে।গত কয়েকদিন সরেজমিনে খোঁজ-খবর নিয়ে এবং অনুসন্ধানে নিশ্চিত হওয়া গেছে,বাজারে ব্যবসা খাতে বিনিয়োগকারীরা চরম লোকসানের মূখে পড়ে চরমভাবে হতাশ হয়ে পড়ছে। বাজারের প্রায় ৩ হাজার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ২ হাজারের মত খোলা থাকলেও ক্রেতা শূন্য। অথচ ঈদুল আযহার মৌসুমের এই সময়ে বাজারে অগনিত ক্রেতা থাকার কথা। সোমবার বিকালে বাজারের দক্ষিন পাশের ডিসি সড়ক,বাঁশঘাটা সড়ক,তরকারী বাজার সড়ক,মসজিদের পশ্চিম গলি, কাপড়ের গলি,ফার্নিচার বাজার, হাসপাতাল সড়ক, সওদাগর পাড়া রাস্তার মাথা,মরিচ বাজার, চাউল বাজারসহ একাধিক স্থান সরেজমিনে দেখা গেছে, ঐসব পয়েন্টে ক্রেতা প্রায় নেই বললে চলে। ঐসব পয়েন্ট গুলো ক্রেতা সাধারণের অনুপস্থিতে প্রায় নির্জীব নিস্তব্ধ হয়ে পড়েছে। মরিচ বাজারের ব্যবসায়ীদের সাথে আলাপ করে জানা গেছে, ঈদুল আযহা হচ্ছে ভরা মৌসুম, এখন সময় পুরোদমে বিক্রয় করা। কিন্তু ক্রেতা আসছে না। তবে বাজারের প্রবেশমূখ বাঁশঘাটা ব্রীজ ও বংকিম বাজারের পয়েন্ট দিয়ে সংস্কারের নামে কচ্ছপ গতিতে কাজ চলমান থাকায় বাজার মুখী হচ্ছে না সর্বসাধারণ। বাজারের ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান জানায়, অন্যান্য বছর এই সময়ে আমার দোকানে দৈনিক বেচা বিক্রি হত ২ লাখের অধিক টাকা। আর এখন ৫০ হাজার টাকাও বিক্রি করা দুরূহ ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মচারীরা চলে গেছে অন্যত্রে। বাজারের দক্ষিন পাশের দোকানদার জাহাঙ্গীর আলম জানান, তাদের মার্কেটে প্রায় দোকান বন্ধ রয়েছে। তার দোকানটিও বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম দেখা দিয়েছে। বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাবেক সদস্য ডাঃ মমতাজুল ইসলাম বলেন বাজারে ক্রেতা শূন্যতায় বিরানভূমিতে পরিনত হয়েছে। বর্তমান অবস্থায় বাঁশঘাটা ব্রীজ ও ডিসি সড়কের অসমাপ্ত কাজ সম্পন্ন করা না হলে বাজারের ৫ শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান অচিরেই বন্ধ হয়ে যাবে। কারন এ বাজারে ব্যবসা খাতে বিনিয়োগকারীরা দীর্ঘদিন ধরে লোকসান গুনতে গুনতে আর পেরে উঠছে না। বাঁশঘাটা সড়কের ব্যবসায়ী মোহাম্মদুল হক জানায়,তাদের মার্কেটে ১৪/১৫ টি দোকান রয়েছে। এর মধ্যে ৩/৪ মাস পুর্বে ৬টি দোকান বন্ধ হয়ে গেছে। এই সময়ে প্রতিবছর প্রতিটি দোকানে কমপক্ষে ৪০/৫০ হাজার টাকা বেচাবিক্রি হতো। গত কয়েকমাস ধরে ৫/৬ হাজার টাকাও বেচাবিক্রি হচ্ছে না। এভাবে কচ্ছপ গতিতে বাঁশঘাটা ব্রীজের কাজ চললে এ সড়কের সব দোকানপাট বন্ধ হয়ে যাবে। ব্যবসায়ী হারুন অর রশিদ বলেন, কয়েকমাস ধরে প্রচুর কষ্টে আছি। ক্রেতা শূন্য হওয়ায় বেচাবিক্রি হচ্ছে না। ব্যবসায়ী প্রকাশ কান্তি দে দৈনিক সকালের কক্সবাজারকে জানায়, ব্যাংক ও এনজিও থেকে ঋন নিয়ে ভরা মৌসুমে ভালো ব্যবসার আশায় দোকানে পণ্য সাজিয়েছিল। কিন্ত বেচাবিক্রি নেই বললে চলে। দোকান ভাড়া, বিদ্যুৎ বিল, ঋনের সুদ ও কর্মচারীর বেতন কি ভাবে পরিশোধ করছি একমাত্র ইশ্বর জানে। তার মত অনেকেই চরমভাবে উৎকন্ঠিত। সারাদিন দোকান খোলে বসেও ক্রেতা আসছে না। বাজারের এক হোটেল মালিক জানায়, তার হোটেলে উন্নত মানের খাবার পরিবেশনে খ্যাতির কারনে হোটেল খুলে রাখছি। কিন্তু আগের মতো বেচাবিক্রি নেই। প্রতিদিন বিভিন্ন খাতে ব্যয় মিটাতে ৪/৫ হাজার লোকসান গুনতে হচ্ছে। কাপড় ব্যবসায়ী আয়ুব আলী জানায়, বাজারে তেমন ক্রেতা নেই। বাজারে প্রবেশের দুই পাশের যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল না হওয়ায় কক্সবাজার কিংবা চকরিয়াতে গিয়ে কেনাকাটা করতেছে। ব্যাটারি চালিত টমটম চালক মোহাম্মদ হোসাইন, হানিফ, এজাহার, সিএনজি চালক বেলাল, মহিউদ্দীন সহ অনেকেই জানায়, আগে প্রতিদিন ১ হাজার টাকা থেকে ১৫০০ টাকা পর্যন্ত আয় হতো। এখন ঈদগাঁও বাজারের প্রবেশ মুখ সংস্কারের কারনে বিকল্প সড়ক হিসাবে সওদাগর পাড়া ও আলমাছিয়া সড়ক ব্যবহার করতে হচ্ছে। এ সড়ক দুটিও মরণ ফাঁদে পরিনত হওয়ায় যাত্রীরা বাজারে আসতে চাই না। সড়কের অবস্থা ভালো না হওয়ায় প্রতিদিন গাড়ীর যন্ত্রাংশ নষ্ট হয়ে অধিক টাকা মেরামত খরচ আসছে। গোমাতলী সড়কের গাড়ী চালকরা বাঁশষ্টেশন হয়ে বাজারে আসতেছে। এ ক্ষেত্রে আরকান সড়কের চলাচলরত বড় বড় গাড়ীর ধাক্কায় ক্ষতিগ্রস্ত ও প্রাণহানির আশংকা রয়েছে। অনেকেই এ পেশা ছেড়ে অন্য স্থানে গিয়ে দৈনিক দিন মজুরী করছে। তারপরও কিছু চালক সংসারের আহার যোগাতে জীবনযুদ্ধে রয়ে গেছে। আপনার ক্লিনিকে রোগী কেমন আসছে জানতে চাইলে একটি উন্নতমানের ক্লিনিক মালিক অত্যন্ত বেদনা ও ক্ষোভের সাথে বলেন,এই মুহুর্তে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিয়ে চিংড়ি প্রজেক্ট করা ছাড়া কিছুই দেখছি না। বৃহত্তর ঈদগাঁওয়ের সচেতন নাগরিক সমাজের দাবী দ্রুত সময়ের মধ্যে ডিসি সড়কের অসমাপ্ত কাজ ও বাঁশঘাটা ব্রীজের নির্মান কাজ সমাপ্ত করে ব্যবসায়ী ও সর্বস্তরের জনসাধারণের দুঃখ দুর্দশা লাগব করা হোক।

cbn
কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

লাইনে দাঁড়িয়ে বার্গার কিনলেন বিল গেটস!

সৌদিতে আমরণ অনশনে রোহিঙ্গারা

একটি পুলিশী মানবতার গল্প

বৃহত্তর বার্মিজ মার্কেট ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির কমিটি গঠিত

পেকুয়ার বাবুল মাষ্টার আর নেই

শহরে খাস জমিতে নির্মিত স্থাপনা উচ্ছেদ

ফেসবুককে টপকে শীর্ষে হোয়াটসঅ্যাপ

মান খারাপ, ভিটামিন ‘এ’ খাওয়ানো বন্ধ

হানিমুন পিরিয়ডেই সরকারের দুই চ্যালেঞ্জ

বাংলাদেশ প্রেসক্লাব ইউএই’র অভিষেক আজ

চেয়ারম্যানকে না পেয়ে সহকারীর হাতের আঙ্গুল কেটে নিলো দুর্বৃত্তরা

৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ : হিউম্যান রাইটস ওয়াচ

ঐক্যফ্রন্টের জাতীয় সংলাপ ৬ ফেব্রুয়ারি, থাকছে না জামায়াত

হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া কমল ১০ হাজার টাকা

থেমে নেই বাঁকখালী দখল

চকরিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সেবাগ্রহীতাদের তথ্য ও পরামর্শ সেবা

বাড়ছে বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা

বাংলাদেশে বিতাড়নের প্রতিবাদে সৌদি আরবে অনশন ধর্মঘটে রোহিঙ্গারা

কর্ণফুলীতে সড়ক দুর্ঘটনায় পিডিবির কর্মচারী নিহত

পশ্চিম মেরংলোয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মা সমাবেশ অনুষ্ঠিত