মোঃ নিজাম উদ্দিন,  চকরিয়া:
চকরিয়ায় এক স্কুল ছাত্রকে গাছের সাথে বেঁধে অমানুষিক মারধর করে গুরুতর আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত মোঃ হারুনর রশিদ (১০) মালুমঘাট মডেল পাবলিক স্কুলের ৭ম শ্রেণীর ছাত্র ও ডুলাহাজারা ইউনিয়নের পূর্ব ডুমখালী গ্রামের ওয়ার্ড যুবলীগের সহ-সভাপতি মোঃ আবু ছালেকের পুত্র। শনিবার সকাল ১১টায় পূর্ব ডুমাখালী চলাচল সড়কে এ ঘটনাটি ঘটে।
থানায় দায়ের করা পিতার এজাহারে জানা যায়, ঘটনার দিন সকালের দিকে পুত্র হারুনর রশিদ তার বন্ধুদের সাথে পূর্ব ডুমখালী সামাজিক বনায়নের পাশ দিয়ে চলাচল সড়কে যায়। এসময় একই এলাকার মৃত মোহাম্মদ আলীর পুত্র জসিম উদ্দিন (৫০) হীন উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতে তাদের দৌড়িয়ে নিয়ে যায়। আত্মরক্ষার্থে অন্যান্যরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও শিশু হারুনকে ঝাপটে ধরে। তাকে প্রাননাশের চেষ্টায় সর্বশরীরে আঘাত করতে থাকে। একপর্যায়ে শিশু হারুনকে বনের লতা দিয়ে গাছের সাথে বেঁধে লাথি, কিল, ঘুষি মারতে থাকে। এমনকি শিশুটির নাকের ডগা ছিড়ে রক্তাক্ত জখম করে। এসময় চলাচল সড়ক দিয়ে এলাকার দুই ব্যক্তি মোটরসাইকেলে আসতে দেখে হামলাকারী জসিম উদ্দিন পালিয়ে যায়। এসময় গুরুতর আহতাবস্থায় শিশুটি উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়। বিষয়টি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের মাধ্যমে সমাধান চেষ্টায় ব্যর্থ হলে আহতের পিতা আবু ছালেক চকরিয়া থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন।
এ ব্যপারে চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বকতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, ডুলাহাজারায় এক শিশুকে বেঁধে মারধর করেছে বলে এজাহার পেয়েছেন। বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •