মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু, নাইক্ষ্যংছড়ি:

রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের গর্জনিয়া বাজারের দক্ষিণ পূর্ব পাশে থানার বিল নামক স্থানে ইউনিয়নের মিয়াজির পাড়া এলাকার এক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও কৃষকের ২০ শতক জমির গত দেড় মাস আগে রোপিত আমন ধান ক্ষেত বিষাক্ত গ্যাস প্রয়োগ করে সম্পূর্ণ জ্বালিয়ে নষ্ট করে পেলেছে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় কৃষকদের মাঝে চলছে অজানা আতংক। আলোচিত এই ঘটনার অভিযোগ পাওয়ার পর কচ্ছপিয়া ও গর্জনিয়া ইউনিয়নের দুই কৃষি উপ-সহকারী কর্মকর্তা জহিরুল ইসলাম ও উত্তম কুমার সড়েজমিনে পরিদর্শন করেন।

এ বিষয় জানতে চাইলে কৃষি কর্মকর্তা জহির বলেন, রাসায়নিক জাতীয় বিষাক্ত গ্যাস ব্যবহারে এ ভাবে জমির আমান ধান ক্ষেত জ্বলে নষ্ট হয়। এ ধরণের মন্তব্য করেন পরিদর্শনে আসা দুই উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা। ক্ষতিগ্রস্ত আমিনুল্লাহ ভুট্টো জানান, রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া মৌজার বি.এস সৃজিত ২১১৪নং খতিয়ানের বি.এস দাগ নং ২৭১৭.২৭১৮, আপোষ দখল মতে ২৭১৮ নং দাগের ৪৬ শতক জমির আন্দর থেকে ২০ শতক জমি গত ১০ অক্টোবর ২০১৭ ইং সনে ১৮৪৫ নং রেজিষ্ট্রি দলিল মুলে খরিদ করে দখলামল বুঝিয়া নিই। এর পর আমার নামে নাম জারি করে শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোগ দখলে স্থীত আছি। সম্প্রতি একই এলাকার জমি বিক্রেতা নুর জাহান বেগম লোভের বশিভূত হইয়া লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। অন্যথায় জমির ফসল ঘরে তুলতে দেবে না বলে হুমকি দেয়। গত ৩ জুলাই ঔ জমির রোপিত ধান ক্ষেত উপড়ে পেলার সময় স্থানীয়রা দেখতে পায়। এ বিষয়ে ৬ জুলাই গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ীতে অভিযোগ করা হয়। এর পর ক্ষিপ্ত হইয়া উক্ত নুর জাহান তার ছেলেদের নিয়ে প্রকাশ্যে আমাকে মারবে খুন ও ঘুম করার হুমকি দেওয়ায় গত ২৯ জুলাই রামু থানায় সাধারণ ডায়েরী করি যার নং ৮৪৫। এর ধারাবাহিকতায় নুর জাহান বা তার ছেলেরা আমার ধান ক্ষেতে বিষাক্ত গ্যাস প্রয়োগ করেন বলে অভিযোগ আমিনুল্লাহর।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ধান ক্ষেতে বিষাক্ত গ্যাস প্রয়োগের কথা অস্বীকার করেন অভিযুক্ত নুর জাহান। এ বিষয়ে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক আমিনুল্লাহ প্রশাসনের হস্থক্ষেপ কামনা করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •