মাটি ক্ষয়ে বিপজ্জনক হয়ে উঠেছে কেরানীহাট-বান্দরবান সড়ক

মোঃ নাজিম উদ্দিন, দক্ষিণ চট্টগ্রাম:
সড়কের পাশ থেকে সরে গেছে মাটি, একাধিক স্থানে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে বিপজ্জনক হয়ে উঠেছে কেরানীহাট-বান্দরবান সড়ক। চলতি বর্ষার শুরুতে ভারি বর্ষণে সড়কটির একাধিক স্থানে গর্ত, ব্রীজের পাশে মাটি ধস ও মাঝেরপাড়া লম্বা রাস্তা আইডিএফ কার্যালয় এলাকায় সড়ক থেকে পঞ্চাশ মিটারের বেশি এলাকাজুড়ে মাটি সরে বিপজ্জনক হলেও রামত হয়নি। দ্রুত ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে মাটি ও ইট দিয়ে ভরাট করা না গেলে যেকোনো সময় সড়কটি ভেঙে গিয়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনাসহ বান্দরবানের সাথে সারাদেশের সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা। তবে সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) বলেছে বর্ষার আগেই সমস্যার সমাধান হবে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, সড়কটির  প্রবেশ মুখ সাতকানিয়া উপজেলার কেরানীহাট, বড়দুয়ারা মাহালিয়া রাস্তার মাথা, সোয়ালক ফরেস্ট গেইটের পূর্বে ব্রীজের পাশে মাটি ধস ও মাঝেরপাড়া এলাকায় সড়কের মাঝ পথে ছোট বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। কেরানীহাট এলাকায় কয়েকটি গর্তে ইট বিছানো হলেও বেশিরভাগ গর্ত ভরাট বা মেরামত হয়নি। মাঝেরপাড়া লম্বা রাস্তায় মৎস্য হ্যাচারীর উত্তর পাশে ব্রীজের পশ্চিমে সড়কের কিছু অংশ ধসে গেছে। সেখানে কিছু মাটি দিয়ে ভরাট দেখা যায়। এই স্থানে সড়কের সাথে পশ্চিমে লাগানো একটি ঝিরি রয়েছে। প্রতিবছর এখানে পাহাড় থেকে নামা বৃষ্টির পানিতে মাটি ক্ষয় যাওয়ায় সড়ক রক্ষায় গাইডওয়াল দেয়া হয়েছে ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে। এতেও ঠিকছেনা সড়ক। আইডিএফ কার্যালয়ের পশ্চিম দক্ষিণে গাইড ওয়ালের ভিতর থেকে সম্পূর্ণভাবে মাটি সরে গেছে। সেখানে সড়কের উপর বালিভর্তি বস্তার লাইন দিয়ে রাখা হয়েছে। এছাড়া দু’টি লাল পতাকা দিয়ে মেরামত কাজ শেষ বলে দেখে মনে হয়েছে। সড়কের ওই
স্থানে একটি গাড়ি আরেকটিকে পাশ কাটাতে গেলে দাঁড়িয়ে যেতে হচ্ছে।

সাতকানিয়া বাজালিয়ার বাসিন্দা মো. জামাল উদ্দিন বলেন, এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন বান্দরবানে যাতায়াত করি। লম্বা রাস্তা এলাকায় গাইডওয়াল থাকার ফলেও সড়ক থেকে যেভাবে মাটি সরে গেছে, দেখে আমার ভয় লাগে। সওজের লোকজন সড়ক এতো বিপজ্জনক হয়ে উঠলেও কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। কিন্তু সড়কের দশা দেখলে ভয়ে থাকি কখন দুর্ঘটনায় পড়ি।

বাস চালক আবু তালেব বলেন, সড়কটির বেহাল দশা। কয়েকটি স্থানে সড়কের মাটি সরে যাওয়ায় কোনো গাড়িকে পাশ কাটাতে গেলে ভয়ের মধ্যে থাকি। সড়কটি সবচেয়ে বিপজ্জনক হয়েছে লম্বা রাস্তা এলাকায়। প্রতিদিন সড়কটি দিয়ে দূরপাল্লার বাস ও কাঠ ভর্তি ভারি ওজনের ট্রাকসহ অসংখ্য গাড়ি চলাচল করছে। মাটি সরে সড়কটি বিপজ্জনক হয়েছে। দ্রæত মেরামত করা না গেলে বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে।

জানা যায়, পার্বত্য জেলা বান্দরবানে নীলাচল, শৈলপ্রপাত, মেঘলা, স্বর্ণমন্দির, নীলগীরিসহ অসংখ্য দর্শনীয় পর্যটন স্পট রয়েছে। ফলে দর্শনীয় স্থানগুলো দেখার জন্য প্রতিবছর লাখো পর্যটকের আগমনে মুখর হয়ে উঠে বান্দরবান। কিন্তু, সড়কের দুরাবস্থার কারণে দুর্ঘটনার আশঙ্কায় এখানে পর্যটদের সংখ্যা দিন দিন কমছে। ফলে বেকার হচ্ছে পর্যটনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা।

এ ব্যাপারে বান্দরবান সড়ক ও জনপদ বিভাগ (সওজের) নির্বাহী প্রকৌশলী বলেন, সজিব আহমেদ বলেন, ইতিমধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বালি ভর্তি বস্তা ও লাল প্লেক দিয়ে সতর্ক করে দিয়েছি। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে অস্থায়ী কাজ শুরু হবে। লাগাতার বৃষ্টির কারণে সড়ক মেরামত করা যাচ্ছে না।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

কলেরা টিকা পাবে আরো তিন লক্ষাধিক রোহিঙ্গা

নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করছে সরকার: ফখরুল

খালেদার দু’টি আসন পাচ্ছেন দুই পুত্রবধূ!

সেন্টমার্টিনে ২ লাখ ৩০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার

ডেসটিনির চেয়ারম্যানের ৩ বছর কারাদণ্ড

যশোরে বিদেশী পিস্তল ও ম্যাগজিনসহ যুবক আটক

বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস উপলক্ষে রাঙামাটিতে আলোচনা সভা

উখিয়ার কলেজছাত্রী হত্যাকারী সন্ত্রাসী কবিরের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

চকরিয়ায় গ্রাম আদালত বিষয়ক কর্মশালা

আলমগীর ফরিদের বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার

নয়াপল্টনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ

যুক্তরাষ্ট্রও রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের বিরোধী

গণভবনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা

এড. সালাহ উদ্দীন কক্সবাজার-৪ আসনে বিএনপি’র ফরম সংগ্রহ করলেন

প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ার কথা শুনে ক্যাম্প ছেড়ে পালানোর চেষ্টা রোহিঙ্গাদের

কারাবন্দির পাকস্থলিতে মিললো ৪০০ ইয়াবা

লামায় বিষপানে যুবকের মৃত্যু

আলীকদমে পাহাড় কেটে ইটভাটা

লুৎফুর রহমান কাজল মনোনয়ন ফরম জমা করেছেন

একটি পোপা মাছের দাম কেন ৮ লাখ টাকা?