হাবিবুর রহমান সোহেল, নাইক্ষ্যংছড়ি:
জম্ম হলেই মৃত্যু অনিবার্য এ কথা যেমন সবাইকে মেনে নিতে হয়। ঠিক তেমনি অকালে কোন প্রাণ ঝরে পড়া কারো পক্ষে কাম্য নয়। এরকম ঝরতে বসা একটি প্রাণ হলো কোরবান আলী ( ০৮) পিতা- আবুল মনসুর রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের দৌছড়ির ছোট গ্রামে। ছোট্ট ওই ছেলেটির  মাথায় বাসা বেঁধেছে মরণব্যাধী ব্রেইন টিউমার। তার  পিতা পেশায় একজন অটোরিকশা চালক। অবুঝ শিশুটি জানেনা,  তার কি হয়েছে। দরিদ্র পিতা মাতার পক্ষে তার এই ব্যয় বহুল চিকিৎসা করা সম্ভব  হচ্ছে না বলে জানান। তাই সমাজের সকল বিত্তবানদের কে ওই শিশুটির জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসার আহ্বান জানানো হয়েছে।
এদিকে মরনব্যাধী ক্যানসারে বাসা বেধেছে রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের দৌছড়ি গ্রামের মাদ্রাসা শিক্ষক মাওলানা আজিজুল হকের। তার পরিবারের সাথে কথা বলে জানা যায়, শিক্ষক আজিজুল হকের ওই মরনব্যাধী রোগ থেকে বাচঁতে ১০/১৫ লাখ টাকা দরকার। তাদের পক্ষে এত টাকা জোগাড় করে ওই চিকিৎসা করা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন। তাই সমাজ ও দেশের বিত্তবানদের কে ওই শিক্ষক ও শিশুর জীবন বাচাতে এগিয়ে আসার আহবান জানানো হয়েছে।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •