যমুনা অনলাইন : ফেসবুক লাইভে এসে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে মডেল ও অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য র‍্যাব-১ কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

শনিবার রাতে উত্তরা থেকে তাকে আটক করা হয়। বিকেলে কাজী নওশাবা তার ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে জানান, হামলায় আন্দোলনরত দুই শিক্ষার্থী মারা গেছে। আন্দোলনরত এক শিক্ষার্থীর চোখ তুলে নিয়েছে বলেও গুজব ছড়ায় বলে অভিযোগ নওশাবার বিরুদ্ধে। দেড় মিনিটির একটু বেশি সময় ধরে চলা সেই লাইভে তিনি সবাইকে রাস্তায় নামারও আহ্বান জানান। পরে ফেসবুক থেকে সংরক্ষিত হওয়া লাইভ ভিডিওটি ডিলেট করেছেন নওশাবা।

ফেসবুক লাইভটি প্রকাশ করার পরপরই যমুনা অনলাইন থেকে কাজী নওশাবার সাথে যোগাযোগ করা হয়। তিনি তখন রাজধানীর উত্তরায় অবস্থান করছিলেন। উত্তরায় থেকে জিগাতলার ঘটনা তাৎক্ষণিকভাবে নিশ্চিত হলেন কীভাবে এমন প্রশ্নের জবাবে নওশাবা জানান, আন্দোলনকারীদের সাথে প্রথম থেকেই আমার যোগাযোগ ছিল। তারাই আমাকে বিষয়টি জানিয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত না হয়ে সংবেদনশীল বিষয়ে এভাবে লাইভে আসাটা যৌক্তিক হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, আমি একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে বাচ্চাদের পাশে সবাইকে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছি। আন্দোলনকারীদের সাথে আমার যোগাযোগ ছিল। তারাই আমাকে আপডেট করেছে। আমি জেনেই প্রথমে পুলিশকে জানিয়েছি। আমার মনে হয়েছে বিষয়টা মিডিয়ায় আসা দরকার তাই লাইভে এসে জানিয়েছি।

তবে, নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে কাদের কাছ থেকে তিনি এমন তথ্য পেয়েছিলেন তা জানাতে রাজি হননি নওশাবা। পরে, তিনি তার বক্তব্যের স্বপক্ষে একটি ছবি পাঠান যেটি থেকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত যায়নি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •