নুরুল হক বুলবুল


সুদীর্ঘ সুখ-দুঃখের অমৃত বন্ধন ছেড়ে

অবশেষে আমি চলে যাচ্ছি

চলে যাচ্ছি হাজারো চেনা মুখ পেছনে ফেলে

কিশোর-কিশোরীর সহাস্য মুখ

যুবকের সশ্রদ্ধ সালাম-ভক্তি

প্রবীণের মধুমাখা স্নেহ-ভালোবাসা ফেলে

আমি চলে যাচ্ছি অকৃতজ্ঞের মতো

দ্বিতীয় মৃত্যুর পূর্বেও আর ফিরবো না ।।

এই বটবৃক্ষের দেখা আর হবে না

এই মিতালি নদীর দেখা আর হবে না

ডিঙির মাঝিরও দেখা আর হবে না

ভাবতে কী অদ্ভুত !

আজ ভোর থেকে কাঁদছে এরা

আমিও কাঁদছি অবিরত

তাদের ফেলে চলে যাচ্ছি বলে ।।

কতো রং-বেরঙের  কাপড় আর

শতশত বেলুন, লাল-নীল বাতি দিয়ে

আজ সুবিশাল মঞ্চ তৈরি হয়েছে

আমাকে জমকালো বিদায় জানাতে ।

দুঃখের এই দিনেও আমি খানিকটা খুশি

আমার শূন্যতায় অনেকে মুক্তি পাবে বলে

কোনো জবাবদিহিতা থাকবে না বলে

কোনো প্রভুত্ব থাকবে না বলে ।।

আজ দিন শেষে খুব দ্রুত সন্ধ্যা ঘনাচ্ছে

হৃদয়ে অব্যক্ত রক্তক্ষরণ হচ্ছে

চোখ দিয়ে স্নিগ্ধ অসহায় জল গড়াচ্ছে

চারিদিকে অসহ্য বিদায়ের ধ্বনি বাঁজছে

অশ্রুসিক্ত চোখ দু’টি বারবার ফিরে তাকাচ্ছে

মনের আর্তনাদ হৃদয় ক্যানভাসে প্রতিধ্বনিত হচ্ছে

চিৎকার দিয়ে বলছে-

তোমায় কখনো ভুলবো না, ভালো থেকো ।।

রচনাকালঃ ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ খ্রিস্টাব্দ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •