নৌকার প্রার্থীদের জয় নিশ্চিতে গণগ্রেফতার করা হচ্ছে

ডেস্ক নিউজ:
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আসন্ন তিন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনও খুলনা-গাজীপুরের মতোই ভীতিকর অবস্থায় পরিণত হয়েছে। তিন নির্বাচনী এলাকাতেই বিএনপিসহ বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদেরকে গণগ্রেফতার, ভয়-ভীতি প্রদর্শন, নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় বাধা, ধানের শীষের সমর্থক, এজেন্টদের সাদা পোশাকে তুলে নেয়া ও পরে তা অস্বীকার করার ধুম শুরু হয়েছে।

রোববার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, গত কয়েক দিনে তিন সিটির (রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট ) আসন্ন নির্বাচনে নৌকা মার্কার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, স্থানীয় প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তারা খুলনা-গাজীপুরের সন্ত্রাসের আবহে নতুন মডেলের ভোট জালিয়াতির আসল রূপে আত্মপ্রকাশ করেছেন।

রিজভী বলেন, ‘আওয়ামী চেতনায় সাজানো প্রশাসন নির্বাচনী এলাকাগুলোতে বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর ইউরোপে মধ্যযুগীয় ‘ডাইনি শিকার’ এর ন্যায় অভিযানে নেমেছে।’

তিন সিটিতেই সরকার দলীয় প্রার্থীরা প্রতিনিয়ত নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, তারা কোটি কোটি টাকা খরচ করছে। পক্ষান্তরে বিএনপি নেতাকর্মীদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় বাধা দেয়া হচ্ছে। গত পরশু থেকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি হানা দেয়া তীব্র আকার ধারণ করেছে। ভোটারদের ভয় দেয়াই এই পুলিশী অভিযানের মূল লক্ষ্য।

সাবেক এই ছাত্রনেতা বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ অন্যান্য নির্বাচন কমিশনাররা সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হিসেবে বিশ্বস্ততার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের শপথ নিয়েছেন। কিন্তু খুলনা-গাজীপুরসহ চলমান সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনগুলোতে ঢালাও অনিয়ম ও অনাচারে সমগ্র নির্বাচনী ব্যবস্থা তছনছ হওয়ার পরও তাদের নীরব দর্শকের ভূমিকা অনাকাঙ্ক্ষিত, অনভিপ্রেত ও অপ্রত্যাশিত। ভোট সন্ত্রাসকে মহিমান্বিত করতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য ও কমিশনের বক্তব্য অভিন্ন।

তিনি বলেন, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা- কর্মচারী এবং অস্থায়ীভাবে নিয়োগপ্রাপ্তদের (মাস্টাররোল) জোরপূর্বক ভয়ভীতি প্রদর্শন, হুমকি দিয়ে নৌকার পক্ষে নির্বাচনী প্রচার কার্যক্রম চালাতে বাধ্য করা হচ্ছে। রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট বিএনপিসহ ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা, তাদের বাড়িঘর ও নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর, হয়রানিসহ চলছে গ্রেফতারের হিড়িক।

খালেদা জিয়ার আবারও নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসা দাবি করে রিজভী বলেন, শনিবার কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার আইনজীবী ও পরিবারের সদস্যরা সাক্ষাৎ করেছেন। তিনি এখনও গুরুতর অসুস্থ। তার জ্বর ও শরীরে প্রচণ্ড ব্যথা কোনোভাবেই কমছে না। অসুস্থতার কারণে তিনি দোতলা থেকে নিচে নামতেই পারছেন না। তার শারীরিক সমস্যা আরও বেড়েছে।

তিনি বলেন, ‘বারবার ইউনাইটেড হাসপাতালে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার দাবি জানানো হলেও সরকার ভ্রূক্ষেপহীন ও উদাসীন।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, শনিবার গণসংবর্ধনায় প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নের কথা বললেও যেসব গায়েবের উন্নয়ন হচ্ছে সে কথা বলেননি। যেমন বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টের ২২ ক্যারেটের সোনা ১৮ ক্যারেট হয়ে যায়। জলি সোনা মিশ্র ধাতু হয়ে যায়। আবার বড় পুকুরিয়া কয়লা খনি থেকে আড়াই লাখ টন কয়লা গায়েব হয়ে যায়। মূলত প্রধানমন্ত্রী দেশের মানুষের উন্নয়ন না করলেও দলীয় নেতাকর্মীদের উন্নয়ন করছেন।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এমএ মান্নান, চেয়ারপারসনে

সর্বশেষ সংবাদ

আত্মসমর্পণের পর ইয়াবা ব্যবসায়ীরা আরো বেপরোয়া!

ফুলে ফুলে ভরে গেছে ঈদগাঁও কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার

ইটিএস ইয়ুথ ডেভেলমেন্টের ভাষা শহীদদের স্মরণে শ্রদ্ধাঞ্জলি ও দিনব্যাপী ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্প

শহীদ মিনারে জেলা আওয়ামীলীগের শ্রদ্ধান্ঞ্জলি

শহীদদের শ্রদ্ধা জানালো কক্সবাজার পৌরসভা

একুশের প্রথম প্রহরে শহীদদের শ্রদ্ধা জানালো জেলা বিএনপি

সাবেক ছাত্রদল নেতা হাবিব উল্লাহ ১০ হাজার ইয়াবাসহ আটক

নাইক্ষ্যংছড়িতে বিনম্র শ্রদ্ধায় ভাষা শহীদদের স্মরণ

পুরান ঢাকার আগুন নিয়ন্ত্রণে, ৬৫ লাশ উদ্ধার

‘দিনাজপুরে সপ্তম শ্রেণির মেয়েরা ইয়াবায় আসক্ত’

২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ হবে বাংলাদেশ

কক্সবাজারে ফুলে ফুলে অমর একুশের শহীদদের স্মরণ

পুরান ঢাকার চকবাজারে আগুন, ৫৬ লাশ উদ্ধার

ভারুয়াখালীতে স্কুলছাত্রকে অপহরণের চেষ্টা  ‘ভাই গ্রুপের’

আজ আন্তর্জা‌তিক মাতৃভাষা দিবস

মুজিবুর রহমান ও এমপি জাফরের দোয়া নিলেন ফজলুল করিম সাঈদী

মাতৃভাষার প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছে রাখাইনদের নতুন প্রজন্ম

শুদ্ধ সংস্কৃতির চর্চার মধ্য দিয়ে অপশক্তিকে রুখতে হবে- মেয়র মুজিব

একুশে ফেব্রুয়ারি : প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা

টেকনাফে সাড়ে ১৫ লক্ষ টাকার স্বর্ণালংকার উদ্ধার