স্পোর্টস ডেস্ক:

মাত্র ১৯ বছর বয়সে ফুটবল বিশ্বকাপ ফাইনালের মতো বড় ম্যাচে খেলতে নামবেন ফ্রান্সের তরুণ তারকা কাইলিয়ান এমবাপে। শুধু খেলতে নামবেন বললে ভুল হবে, নিজ দেশের বিশ্বকাপ জেতার স্বপ্নটাও নিজের কাঁধে নিয়েই খেলবেন এমবাপে।

চলতি বিশ্বকাপে এখনো পর্যন্ত এই দায়িত্বটা ভালোভাবেই পালন করেছেন এমবাপে। ফাইনালে ওঠার পথে ফ্রান্সের হয়ে করেছেন ৩টি গোল। রোববারের ফাইনাল ম্যাচে এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে চান প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের এই তারকা ফরোয়ার্ড।

ফাইনাল ম্যাচের আগে ফ্রান্সের সংবাদ মাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এমবাপে জানিয়েছেন ম্যাচটি তার জীবনের সেরা একটি ম্যাচ হতে যাচ্ছে। এই ম্যাচে যতোই স্নায়ু চাপ থাকুক বা প্রত্যাশার পারদ যতোই উঁচু থাকুক, নিজের সেরাটা দিয়েই খেলতে চান এমবাপে।

তিনি বলেন, ‘এই ম্যাচটা আমার জীবনের সেরা ম্যাচ হবে। আমি সবসময় বলেছি বিশ্বকাপ মানেই আলাদা এক অনুভূতি। আমাদের নিজেদের সবটুকু দিয়ে দিতে হবে, তা যতোই কঠিন বা চাপের হোক না কেন। আমি ধন্য যে এই ম্যাচে খেলতে পারবো, আক্রমণ করতে পারব, দৌড়াতে পারব, সবকিছু করতে পারবো। নিঃসন্দেহে এটি আমার জীবনের সেরা ম্যাচ।’

এসময় ফাইনালের প্রতিপক্ষের ব্যাপারেও কথা বলেন এমবাপে। ইউরোপিয়ান লিগে খেলায় ক্রোয়েশিয়ার অনেককেই ভালোভাবে চেনে এই ফরাসি তারকা। তাদের বিপক্ষে জিততে হলে বিন্দুমাত্র ছাড় দেয়া যাবে না বলে মনে করেন এমবাপে।

প্রতিপক্ষের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করে তিনি বলেন, ‘আমি তাদের প্রায় সবাইকে চিনি। ক্রোয়েশিয়া খুব গভীরতার সাথে খেলে, তাদের ম্যাচ পরিকল্পনা দুর্দান্ত এবং প্রয়োজন পড়লে পেশীর খেলাতেও কম যায় না। তাদের দলে রাকিটিচ, মদ্রিচ, পেরিসিচ, মানজুকিচদের মতো তারকা খেলোয়াড় রয়েছে। তাদের মানসিকতা খুবই দৃঢ়। ম্যাচে পিছিয়ে পড়লেও তারা হাল ছাড়ে না। বরং যোদ্ধার মতো লড়ে যায় এবং ম্যাচের ফলাফল নিজেদের পক্ষে নিয়ে আসে।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •