মাদকমুক্ত সমাজ বিনির্মাণ ও অত্যাধুনিক পৌরসভায় রূপান্তর আমার মূল লক্ষ্য : রফিকুল ইসলাম

 মো: আকতার হোছাইন কুতুবী ॥
কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি তথা-ধানের শীর্ষ মনোনীত মেয়র প্রার্থী, জননেতা রফিকুল ইসলাম বলেছেন, মাদকের মরণ নেশায় যুব সমাজ ধ্বংসের পথে ধাবিত হচ্ছে। মাদক সমাজকে নানাভাবে কলুষিত করে বিভিন্ন সংকটের জন্ম দিচ্ছে। এই শহরে কারা মাদক ব্যবসা করে, কারা তাদের গডফাদার, কারা তাদের লভ্যাংশভোগী তা সবার জানা। জনগণের রায়ে মেয়র নির্বাচিত হতে পারলে তিনি মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলবেন বলে অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন। বিভিন্ন ওয়ার্র্ডে গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণকালে এবং পথসভায় তিনি এ অঙ্গীকারের কথা ব্যক্ত করেন। স্থানীয় জনগণ ও ব্যবসায়ী, পথচারী, যানবাহনের চালক ও যাত্রীদের হাতে ধানের শীষ প্রতীকের লিফলেট তুলে দেন। তিনি তাদের কাছে ভোট ও দোয়া কামনা করেন।
কক্সবাজার পৌর এলাকার সচেতন ভোটাররাও ২৫ জুলাই নির্বাচনে ধানের শীষে ভোট দেয়ার জন্য স্বতঃস্ফূর্ত প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। তারা এই জালিম সরকারের অপশসানের জবাব ব্যালটের মাধ্যমে দিতে চায়। ভোটারদের এই গণজাগরনকে ধরে রাখতে হবে এবং তারা যাতে নির্বিঘেœ কেন্দ্র গিয়ে নিজের ভোট দিতে পারে, নির্বাচন কমিশনকেই তার জন্য যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে। তিনি বলেন, সিটি নির্বাচনে বিজয় মানেই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনের এক ধাপ অগ্রগতি। এই ভোট নিয়ে শাসক দলের যে কোন চক্রান্ত ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে রুখে দাড়ানোর জন্য প্রস্তুত থাকতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান। বিভিন্ন এলাকায় পথসভায় বিএনপি মনোনিত প্রার্থী রফিকুল ইসলামের বক্তব্যগুলো শ্রবণ করে এ প্রতিবেদক আরো জানান, অবকাঠামো ও যোগাযোগ ব্যবস্থা, পরিবেশ, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, কৃষি ও সেচ ব্যবস্থার উন্নয়ন, শিল্পাঞ্চল গড়ে তোলা, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত সমাজ গঠন, নারী ও শিশু কল্যাণ, পৌর কর-খাজনা বৃদ্ধি না করার এগুলো পূরণে শতভাগ সচেষ্ট থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধানের শীষ প্রার্থী আরো বলেন, পর্যটন নগরী কক্সবাজার পৌর এলাকার অন্যতম প্রধান সমস্যা জলাবদ্ধতা ও মাদক। পৌরসভার উন্নয়নে সরকার প্রতি বছর যে বাজেট পাঠায় তার শতভাগই কাজে লাগে। একই সড়ক নির্মাণের কিছু দিন তা ভেঙে যায় এটা শুধু কাজের মানের জন্য নয়, এক্ষেত্রে ঘাট ওয়াল না থাকাটা বড় সমস্যা। পৌরসভার কাবিখা (কাজের বিনিময়ে খাদ্য) বরাদ্দ নেই। পাকা রাস্তার পাশে মাটির কাজ করা যায় না। তবে এ ধরনের উন্নয়ন ও নির্মাণ কাজের মান রক্ষায় আরও বেশে তদারকি করবো। আমি পৌরবাসীর সুখে-দুঃখে সব সময় ছিলাম, আছি, থাকবো। তাদেরকে নিয়েই আমার পথ চলা।
আমি নির্বাচিত হলে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে পৌরবাসীর সব সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করে কক্সবাজার পৌরসভাকে উন্নয়নের মডেল হিসেবে গড়ে তুলবো। মুঠোফোনে এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপচারিতায় রফিকুল ইসলাম বলেন, সরকারের কাছ থেকে এবং বেসরকারি বড় বড় দাতা সংস্থার সাহায্য নিয়ে কক্সবাজার পৌরসভাকে ঢেলে সাজাতে হবে। পৌরসভা শুধু মেয়রের দ্বারা পরিচালিত হবে না। সে জন্য কাউন্সিলর এবং সংরক্ষিত আসনের মহিলা কাউন্সিলরদের কাজের সুযোগ দেওয়া হবে। পাশাপাশি পৌরবাসীর পরামর্শ নিয়ে পরিচালিত হবে পৌরসভা উন্নয়নের কর্মকা-।
আদর্শ পর্যটন রাজধানীতে পরিণত হওয়ার অযুত সম্ভাবনা রয়েছে কক্সবাজারে। শিক্ষা-সংস্কৃতির বিকাশ ও উন্নয়নমূলক কাজ সব সময়ই সবার পরামর্শ নিয়ে করবেন। যদি তিনি দক্ষ-অভিজ্ঞ-সৎ-নিষ্ঠাবানদের সঙ্গে নিয়ে উন্নয়নকাজে নিজেকে নিয়োজিত করেন, তাহলে কক্সবাজার একদিন সত্যিই আদর্শ শহরে পরিণত হবে।

কক্সবাজার শহরটি ভালো রাখার দায়িত্ব শহরের প্রত্যেক নাগরিকের। এই চেতনার উন্নয়ন জরুরি। এই চেতনাবোধ শুধু শহর পরিষ্কার রাখার প্রশ্নে নয়, সামগ্রিক বিবেচনায়। পৌরসভায় এমন একটি ফান্ড চালু করা প্রয়োজন, যেখানে সবাই উন্নয়নমূলক কাজে আর্থিক সহযোগিতা করবেন। এই ফান্ডের অর্থ ব্যয় ব্যবস্থাপনায় কক্সবাজার নির্ভরযোগ্য ব্যক্তিরাও থাকবেন।
কক্সবাজার পৌর কর্তৃপক্ষ নগরীকে সবুজ করে তুলতে পারে। নিজেদের ব্যবস্থাপনায় একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও করা সম্ভব। গরিব মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান, সম্মানজনক কাজের জন্য সম্মাননা প্রদানের ব্যবস্থা করতে পারে। কক্সবাজার পৌরসভার একটি আর্কাইভ থাকা খুবই জরুরি। এই আর্কাইভ হয়ে উঠতে পারে ইতিহাস-ঐতিহ্য সংরক্ষণ ও প্রদর্শনকেন্দ্র। নিজস্ব একটি মাসিক কিংবা ষাণ্মাসিক প্রকাশনাও থাকতে পারে। যেখানে শিল্প-সাহিত্য-ইতিহাস-ঐতিহ্য ও উন্নয়নমূলক লেখা থাকবে। একই সঙ্গে তাদের নিজস্ব অবস্থানও সেখানে তুলে ধরা থাকবে। এক কথায়, কক্সবাজার পৌরসভা হয়ে উঠবে শহরের নাগরিকদের প্রাণকেন্দ্র। তাই পৌরবাসীর প্রতি বিএনপি তথা-অসহায় নির্যাতিত-নিপীড়িত অসহায় জনগণের মনোনিত প্রার্থী জননেতা রফিকুল ইসলাম ২৫ জুলাই ধানের শীষে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করার জন্য পৌরবাসীর প্রতি আকুল আবেদন জানান।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

সংসদ নির্বাচনে কেন আসতে চাচ্ছে না বিদেশী পর্যবেক্ষকেরা?

জোট করা ছাড়া কি এবার জয় সম্ভব নয়?

বাংলাদেশের নির্বাচন : কেন কৌশল পাল্টাল ভারত?

কক্সবাজার সদর-রামু আসনে নৌকা পাচ্ছেন কে?

ভারতের রাজনীতিতে যেভাবে প্রভাব ফেলবে বাংলাদেশের নির্বাচন

চার পয়েন্টকে গুরুত্ব দিয়ে তৈরি হচ্ছে আ.লীগের ইশতেহার

মহেশখালীতে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার

দলের সিদ্ধান্ত কতটুকু মানবেন বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা?

মওলানা ভাসানীর ৪২তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

বিয়ের আগেই ৪৫০ কোটি টাকার বাংলো উপহার

ভারতের তামিলনাডুতে ‘গাজা’র আঘাতে প্রাণ গেল ৩০ জনের

প্রিন্স সালমানই খাশোগিকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছিলেন : সিআইএ

শতভাগ সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না: কবিতা খানম

নির্যাতিত হয়ে সৌদি আরব থেকে ফেরত আসলেন ২৪ নারী কর্মী

মিয়ানমারের মানবতাবিরোধী অপরাধের তদন্ত করবে জাতিসংঘ

চট্টগ্রামের প্রয়াত চারনেতার বিশেষত্ব ছিল এরা দুঃসময়ে সাহসী : নাছির

বদরখালীতে কিশোরের জুতার ভেতর থেকে ইয়াবা উদ্ধার

জাতীয়করণ হলো টেকনাফ এজাহার বালিকা উচ্চবিদ্যালয়

৪ বছরের শিশু নিহানকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন

অপরাধ দমনে চট্টগ্রামে আইপি ক্যামেরা বসাচ্ছে সিএমপি পুলিশ