থাইল্যান্ডে

গুহায় আটকে পড়া থাই কিশোর ফুটবলারদের উদ্ধারে অভিযান শুরু

বিদেশ ডেস্ক:
থাইল্যান্ডের গুহায় আটকে পড়া ১২ কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচকে উদ্ধারে অভিযান শুরু হয়েছে। স্থানীয় সময় রবিবার সকাল দশটায় ডুবুরিরা গুহায় প্রবেশ করে। অভিযানের বিষয়ে জানানো হয়েছে তাদের পরিবারের সদস্যদের। উদ্ধারকারী দলের প্রধান নারোংসাক ওসাতানাকর্ন গুহার পাশে সমবেত সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ধারণা করা হচ্ছে প্রথম দলটিকে বের করে আনতে প্রায় ১১ ঘণ্টা সময় লাগবে। স্থানীয় সময় রাত নয়টার দিকে তাদের প্রথম দলটিকে বের করে আনা সম্ভব হবে বলে আশা করা হচ্ছে।
আটকে পড়া কিশোর ফুটবলারদের উদ্ধারে চূড়ান্ত অভিযান শুরু হয়েছে
২৩ জুন থাইল্যান্ডের স্থানীয় সময় বিকালে ১১ থেকে ১৬ বছর বয়সী ১২ ফুটবলার ও তাদের ২৫ বছর বয়সী কোচ থাইল্যান্ডের উত্তর অংশের প্রদেশ চিয়াং রাইয়ের ‘থাম লুয়াং নায় নন’ গুহায় প্রবেশ করেন। গুহাটি বিখ্যাত পাতায়া সৈকতের কাছে। বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় সেখানে আটকে পড়ে তারা। নয়দিন পর তাদের সন্ধান পাওয়া গেলেও উদ্ধার নিয়ে নানা শঙ্কা দেখা দেয়। বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় শনিবার এই উদ্ধার তৎপরতা স্থগিত করা হয়।

দীর্ঘদিন অন্ধকারে আর খাবার না খেয়ে থাকায় দলের সদস্যরা দুর্বল হয়ে পড়ে। সন্ধান পাওয়ার পর তাদের খাবার সরবরাহ করা হয়। গুহা থেকে বের করে নিয়ে আসতে অনেকটা পথ পানিতে ডুবে থাকায় তা সাঁতরে পাড়ি দিয়ে আসার দরকার পড়বে। তবে কিশোররা সাঁতার না জানায় তা নিয়ে শঙ্কা দেখা দেয়।

রবিবার সকালে উদ্ধারকারী দলের প্রধান নারোংসাক ওসাতানাকর্ন সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ছেলেরা যেকোনও চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। উদ্ধার অভিযান শুরুর আগে ডুবুরিদের দল ৩-৪ তিন অনুশীলন করে। রবিবার ভোর থেকেই ডুবুরিরা অভিযানের যাওয়ার জন্য চূড়ান্ত প্রস্তুতি নিয়ে অপেক্ষায় ছিলেন। গুহায় প্রবেশের আগে সেখানে জড়ো মানুষদের সরিয়ে দেওয়া হয়।

নারোংসাক জানান, অভিযানে ১৩ জন বিদেশি ডুবুরি, থাইল্যান্ডের ৫ জন ডুবুরি ও ৫জন নেভি সিল সদস্য অংশ নিচ্ছেন। থাইল্যান্ডের ছিয়াং রিয়া প্রদেশের গভর্নর নারোংসাক ওসাতানাকর্ন জানিয়েছেন,পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় গত সপ্তাহে শুরু হওয়া উদ্ধার প্রস্তুতিতে গত রাত থেকে তৎপরতা বাড়ানো হয়। তিনি বলেন, প্রস্তুতির চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছানোয় গত রাত নয়টা থেকে আমরা অনেক কিছু পরিস্কার করা শুরু করেছি।

এর আগে অভিযান শুরুর আগে উদ্ধার সংশ্লিষ্ট নন এমন মানুষদের গুহা এলাকা থেকে সরে যাওয়ার পরামর্শ দেন মায়ে সাই এলাকার পুলিশ কমান্ডার কোমসান সা-আর্দলুয়ান। লাউড-স্পীকারে তিনি বলেন, পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, উদ্ধার অভিযানের জন্য এলাকা খালি করে ফেলা দরকার। আটকে পড়াদের সহায়তা করতে এই এলাকা ব্যবহার করা প্রয়োজন।

গুহা এলাকায় জড়ো হয়েছেন বিপুল সংখ্যক সংবাদকর্মী। গুহার প্রবেশ মুখে প্রস্তুত রাখা হয়েছে অ্যাম্বুলেন্স।

থাইল্যান্ডের সেনাবাহিনীর এক মুখপাত্র জানিয়েছেন উদ্ধার অভিযান শেষ হতে তিন থেকে চারদিন সময় লাগতে পারে। এই অভিযান আবহাওয়ার উপরে নির্ভর করবে বলেও জানান তিনি। তবে গভর্নর নারোংসাক বলেছেন, আমরা যত দ্রুত সম্ভব উদ্ধার অভিযান শেষ করতে চাই। তবে তা নির্ভর করবে আবহাওয়ার ওপর।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

টেকনাফ উপজেলা যুবদলের সম্মেলনকে ঘিরে প্রাণচাঞ্চল্য : চাপিয়ে দেয়া কমিটি মানবে না!

 বিচার শুরুর অপেক্ষায় খালেদা জিয়ার আরও ৭ মামলা

অক্টোবর থেকে সেন্টমার্টিনে জাহাজ চলাচল শুরু

প্রধানমন্ত্রীকে আল্লামা শফীর অভিনন্দন

রাত ১০-১১টার পর ফেসবুক বন্ধ চান রওশন এরশাদ

আফগানদের কাছে বাংলাদেশের শোচনীয় পরাজয়

আজ পবিত্র আশুরা

দেশের স্বার্থেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন : প্রধানমন্ত্রী

সরকারের শেষ সময়ে আইন পাসের রেকর্ড

রাঙ্গামাটিতে ঘুম থেকে তুলে দু’জনকে গুলি করে হত্যা

শেখ হাসিনার গুডবুক ও দলীয় হাই কমান্ডের তরুণ তালিকায় যারা

মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার নিয়ে ‘ধোঁয়াশা’ কাটবে এ মাসেই

বিষাদময় কারবালার ইতিহাস

পবিত্র আশুরা : সত্যের এক অনির্বাণ শিখা

নবাগত জেলা জজ দায়িত্ব গ্রহন করে কোর্ট পরিচালনা করলেন

নজিব আমার রাজনৈতিক বাগানের প্রথম ফুটন্ত ফুল- মেয়র মুজিবুর রহমান

কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে  “শুদ্ধ উচ্চারণ, আবৃত্তি, সংবাদপাঠ ও সাংবাদিকতা” বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা 

রামুর কচ্ছপিয়াতে রুমির বাল্য বিবাহের আয়োজন

সরকার শিক্ষাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়েছে- এমপি কমল

আইসক্রিমের নামে শিশুরা কী খাচ্ছে?