চকরিয়ায় বালুর স্তুপে চলাচল সড়ক বন্ধ : যাতায়তে দুর্ভোগ

এম.মনছুর আলম,চকরিয়া :

কক্সবাজারের চকরিয়ায় ড্রেজিং মেশিন বসিয়ে ছড়াখাল থেকে অবৈধ বালি উত্তোলন করে চলাচল সড়কে বালির স্তুপ পরিণত হওয়ায় বন্ধ হয়ে গেছে সড়ক যাতায়ত।ওই সড়ক দিয়ে নিত্যদিন যাতায়ত করে আসছে ৫গ্রামের কয়েক হাজার জনগোষ্ঠী।এ ছড়াখাল থেকে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করার দায়ে ও পরিবেশ দূষণের পাশাপাশি কতেক মানুষের জায়গা-জমি নদীর গর্ভে বিলিন হয়ে যাচ্ছে। উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নস্থ এক শ্রেণীর ভূমিদস্যু ও প্রভাবশালীরা প্রশাসনের আইনকে তোয়াক্কা না করে দিব্যি চালিয়ে যাচ্ছে শান্তিরঘাট ডুলাহারছড়া খাল থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন। ছড়াখালে বসানো হয়েছে অবৈধ ড্রেজিং(সেলো)মেশিন। এ সেলো মেশিন দিয়ে বালি উত্তোলন করে রাখা হচ্ছে যাতায়তরত সড়কে। যাতায়তরত সড়কের উপরে বালি স্তুপ করে রাখার কারণে ভোগান্তির মধ্যে পড়েছে ইউনিয়নের ৫গ্রামের মধ্যে শান্তিরঘাট, উলুবনিয়া, কাটাখালী, পূর্বডুমখালী, রিজার্ভ পাড়া এলাকার কয়েক হাজার বাসিন্দা ও জনগোষ্ঠী।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ডুলাহাজারা ইউনিয়স্থ শান্তিরঘাটের ডুলাহারছড়া খাল থেকে এক শ্রেণীর প্রভাবশালীরা সরকারী নিয়মনীতির বাহিরে ও ইজারা বহির্ভূত ভাবে দিব্যি চালিয়ে যাচ্চে অবৈধ বালি উত্তোলন।ছড়াখাল থেকে অবৈধ ভাবে বালি উত্তোলনের নেতৃত্ব দিচ্ছে নাকি একসময়ের উলুবনিয়া গ্রামের বাসিন্দা ও বর্তমান শান্তিরঘাট এলাকার মৃত হাফেজ আহমদের ছেলে ছাবের আহমদ।বর্ণিত ডুলাহারছড়া খাল সংলগ্ন এলাকায় বালি উত্তোলনের ফলে একটি বসতভিটে ওই বালির স্তুপে পানিতে ডুবে যাচ্ছে।এছাড়াও অপর আরো একটি বসতঘরের তলদেশ থেকে বালু উত্তোলন করার কারণে পানির স্রোতে তলিয়ে যাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে বলে আশঙ্কা করেছে স্থানীয়রা।পার্শ্ববর্তী পূর্বডুমখালী এলাকার মৌলানা ফজল আহমদ নামক এক ব্যক্তি অভিযোগে জানান, ডুলাহারছড়া খালের সাথে সংযুক্ত তার বিএস খতিয়ানের দুই দাগের জমি রয়েছে। ইতোমধ্যে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় তার জমি সীমানার পাড় ভেঙ্গে প্রায় দশ শতক জমি খালের সাথে বিলিন হয়ে গেছে বলে জানায়। অবৈধ বালু উত্তোলনে কারণে জমি সংলগ্ন জায়গা খালে ভাঙ্গতে থাকায় বালি উত্তোলনে জড়িত ছাবেরকে নিষেধ করলে উল্টো তাকে অকথ্য ভাষায় উচ্চবাচ্য ও হুমকি প্রদর্শন করে বলে তিনি অভিযোগ করেন।সরকারী নীতিমালা ২০১০ সালের বালুমহাল আইনে সুস্পষ্ট বলা আছে, বিপণনের উদ্দেশ্যে কোনো উন্মুক্ত স্থান, বাগানের ছড়া বা নদীর তলদেশ থেকে বালু বা মাটি উত্তোলন করা যাবেনা।এ ছাড়া সেতু, কালভার্ট, ড্যাম, ব্যারাজ, বাঁধ, সড়ক, মহাসড়ক, বন, রেললাইন ও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ সরকারি-বেসরকারি স্থাপনা অথবা আবাসিক এলাকা থেকে বালু ও মাটি উত্তোলন সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

অভিযুক্ত ছাবের আহমদ বলেন, তার নিজের নামে বালি উত্তোলনের কোন ইজারা নেই।স্থানীয় যারা বালি উত্তোলনের ইজারা নিয়েছে তাদের সাথে সে চুক্তি করে বালু উত্তোলন করছে বলে তিনি জানান।

এ ব্যাপারে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান জানান, বিষয়টি এসিল্যান্ড সাহেবকে জানিয়ে দিচ্ছি। কেউ যদি ছড়া খাল থেকে ডেজার বা সেলো মেশিন বসিয়ে অবৈধ বালি উত্তোলন করে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

সর্বশেষ সংবাদ

আত্মসমর্পণের পর ইয়াবা ব্যবসায়ীরা আরো বেপরোয়া!

ফুলে ফুলে ভরে গেছে ঈদগাঁও কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার

ইটিএস ইয়ুথ ডেভেলমেন্টের ভাষা শহীদদের স্মরণে শ্রদ্ধাঞ্জলি ও দিনব্যাপী ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্প

শহীদ মিনারে জেলা আওয়ামীলীগের শ্রদ্ধান্ঞ্জলি

শহীদদের শ্রদ্ধা জানালো কক্সবাজার পৌরসভা

একুশের প্রথম প্রহরে শহীদদের শ্রদ্ধা জানালো জেলা বিএনপি

সাবেক ছাত্রদল নেতা হাবিব উল্লাহ ১০ হাজার ইয়াবাসহ আটক

নাইক্ষ্যংছড়িতে বিনম্র শ্রদ্ধায় ভাষা শহীদদের স্মরণ

পুরান ঢাকার আগুন নিয়ন্ত্রণে, ৬৫ লাশ উদ্ধার

‘দিনাজপুরে সপ্তম শ্রেণির মেয়েরা ইয়াবায় আসক্ত’

২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ হবে বাংলাদেশ

কক্সবাজারে ফুলে ফুলে অমর একুশের শহীদদের স্মরণ

পুরান ঢাকার চকবাজারে আগুন, ৫৬ লাশ উদ্ধার

ভারুয়াখালীতে স্কুলছাত্রকে অপহরণের চেষ্টা  ‘ভাই গ্রুপের’

আজ আন্তর্জা‌তিক মাতৃভাষা দিবস

মুজিবুর রহমান ও এমপি জাফরের দোয়া নিলেন ফজলুল করিম সাঈদী

মাতৃভাষার প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছে রাখাইনদের নতুন প্রজন্ম

শুদ্ধ সংস্কৃতির চর্চার মধ্য দিয়ে অপশক্তিকে রুখতে হবে- মেয়র মুজিব

একুশে ফেব্রুয়ারি : প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা

টেকনাফে সাড়ে ১৫ লক্ষ টাকার স্বর্ণালংকার উদ্ধার