মসজিদের দানবাক্সে ৮৯ দিনে ৮৯ লাখ টাকা

জাগো নিউজ:

কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক পাগলা মসজিদের দানবাক্সে এবার ৮৮ লাখ ২৯ হাজার ১৭ টাকা পাওয়া গেছে। শনিবার সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে বিকেল সাড়ে ৪টায় গণনা শেষে এ টাকার হিসাব পাওয়া যায়। টাকা ছাড়াও দানবাক্সে অনেক স্বর্ণালঙ্কার পাওয়া যায়।

হিসাব অনুযায়ী দানবাক্সে দৈনিক কমপক্ষে ১ লাখ টাকা করে জমা হয়েছে। গত মে মাসে ওই দানবাক্সগুলোতে চুরির ঘটনা না ঘটলে আরও বেশি টাকা পাওয়া যেত বলে জানিয়েছেন মসজিদ কমিটির সদস্যরা।

এই মসজিদের দানবাক্স থেকে বছরে পাওয়া যায় প্রায় ৪ কোটি টাকা। মসজিদে রয়েছে লোহার তৈরি বড় ৬টি দানবাক্স। প্রতি তিন মাস পর পর এগুলো খোলা হয়।

jagonews24

তিন মাস পর শনিবার সকালে খোলা হয় মসজিদের ৬টি লোহার দানবাক্স। টাকাগুলো বস্তায় ভরে নেয়া হয় মসজিদের দ্বিতীয় তলায় নামাজের ঘরে। সেখানে সকাল ৯টায় শুরু টাকা গণনা। সিসি ক্যামেরার নিচে জেলা প্রশাসনের ১০ জন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার নেতৃত্বে বিভিন্ন ব্যাংকের ৫০ জন কর্মকর্তা, শতাধিক মাদরাসা ছাত্রসহ প্রায় দুইশ মানুষ একটানা টাকা গণনায় অংশ নেন। টাকা গণনা শেষ হয় বিকেলে সাড়ে ৪টায়।

কিশোরগঞ্জ কালেক্টরেটের সিনিয়র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু তাহের মো. সাঈদের তত্ত্বাবধানে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মো. আক্তার জামিল, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আলমগীর হোসাইনসহ ১০ জন ম্যাজিস্ট্রেট টাকা গণনার কাজ তদারকি করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- মসজিদ পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাবেক পৌর মেয়র মাজহারুল ইসলাম ভূঁইয়া কাঞ্চন, জেলা সচেতন নাগরিক কমিটির সভাপতি সাংবাদিক সাংফুল হক মোল্লা দুলু, ক্যাবের সভাপতি সাংবাদিক আলম সারোয়ার টিটু ও রূপালী ব্যাংকের সহকারী মহাব্যবস্থাপক মো. আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

jagonews24

কিশোরগঞ্জ কালেক্টরেটের সিনিয়র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু তাহের মো. সাঈদ বলেন, তিন মাস পর পর মসজিদের ৬টি বড় লোহার দানবাক্স খোলা হয়। গণনা শেষে এসব দানবাক্সে এবার ৮৮ লাখ ২৯ হাজার ১৭ টাকা পাওয়া যায়। এছাড়া আড়াইশ গ্রাম স্বর্ণের গহনাসহ বেশকিছু বৈদেশিক মুদ্রা পাওয়া যায়। টাকা গণনা করতে সময় লেগেছে প্রায় সাড়ে ৭ ঘণ্টা। গণনা শেষে টাকাগুলো রূপালী ব্যাংকের মসজিদ শাখায় জমা রাখা হয়। গত মে মাসে চুরির ঘটনা না ঘটলে আরও বেশি টাকা পাওয়া যেত।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কিশোরগঞ্জ শহরের গাইটাল এলাকার নরসুন্দা নদীর তীরে অবস্থিত এই মসজিদের দানবাক্স খুলে প্রতিবারই কোটি টাকার ওপরে পাওয়া যায়। প্রতিদিন জেলার বাসিন্দারা ছাড়াও দূর-দূরান্ত থেকে অসংখ্য মানুষ মসজিদের দানবাক্সগুলোয় অর্থ ছাড়াও স্বর্ণালঙ্কারসহ বিভিন্ন ধরনের জিনিসপত্র দান করেন।

jagonews24

সর্বশেষ গত ৩১ মার্চ পাগলা মসজিদের দানবাক্সগুলো খোলা হয়। তখন ৮৪ লাখ ৯২ হাজার টাকা পাওয়া যায়। নগদ টাকা ছাড়াও বিভিন্ন বৈদেশিক মুদ্রা ও অনেক স্বর্ণালঙ্কার পাওয়া যায়। এর মধ্যে গত মে মাসে মসজিদের দানবাক্স চুরির ঘটনা ঘটে।

চলতি বছরের ৬ জানুয়ারি বাক্সগুলো খুলে ১ কোটি ২৭ লাখ ৩৬ হাজার ৪৭১ টাকা পাওয়া যায়। যা ছিল এ যাবতকালের সর্বোচ্চ। এর আগে গত বছরের ২৬ আগস্ট মসজিদের দানবাক্সগুলো খুলে ১ কোটি ১৫ লাখ ৫৯ হাজার টাকা পাওয়া যায়।

সর্বশেষ সংবাদ

হিন্দু কলেজ ছাত্রীকে কোরান বিলির নির্দেশ ভারতের আদালতের

মিন্নির পাশে কেউ নেই! পুলিশ সুপারের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ

রুবেল মিয়ার মেজ ভাইয়ের মৃত্যুতে সদর ছাত্রদলের শোক প্রকাশ

হালদা দূষণের অপরাধে বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ রাখার নির্দেশ : জরিমানা ২০ লাখ টাকা

তরুণ সাংবাদিক হাফিজের শুভ জন্মদিন আজ

চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান সাঈদী’র বরাদ্দ থেকে ১৫০০ পরিবারে চাউল বিতরণ

কলেজ আমার কাছে দ্বিতীয় পরিবার

রামু উপজেলা ছাত্রদল যুগ্ম আহবায়ক সানাউল্লাহ সেলিম কে শোকজ

No more than 2500 Easy Bikes in the city, Acting D.c Ashraf

An awaiting repatriation

25 elites relate to Yaba, SP Masud Hussain

উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই : সড়ক বিভাগের জমিতেই নান্দনিক ৪ লেন সড়ক

কক্সবাজারে এইচএসসিতে পাসের হার ৫৪.৩৯%

নিজেকে চেয়ারম্যান ঘোষণা করতে পারেন কাদের

ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করবেন যেভাবে

নিমিষেই এনআইডি যাচাই করবে ‘পরিচয়’

মনের শক্তিতে জিপিএ-৫ পেলো পটিয়ার সাইফুদ্দিন রাফি

হজে এবার ৮০০ কোটির ওপরে আয় করবে বিমান

ধর্মীয় নেতাদের উসকানিমূলক বক্তব্য নিয়ন্ত্রণের প্রস্তাব ডিসি সম্মেলনে

ওসি খায়েরের চ্যালেঞ্জ ছিল রোহিঙ্গা, মনসুরের চ্যালেঞ্জ ইয়াবা