ব্রীজ আছে সড়ক নেই,  দেখার কেউ নেই

এম আবুহেনা সাগর, ঈদগাঁও:

কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁওর মেহের ঘোনা হয়ে মাইজপাড়া যাতায়াতের হাজীরকুম সড়কটি দীর্ঘমাস ধরে সংস্কারের অভাবে অযন্তে অবহেলায় পড়ে রয়েছে। এটি দেখার কেউ না থাকায় হতাশ হয়ে পড়েছেন এ সড়ক দিয়ে চলাচলকারী অসংখ্য লোকজন। প্রাপ্ত তথ্য মতে ২০১৫ -২০১৬ অর্ধ বছরে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের সেতু / কালভার্ট নির্মান প্রকল্পে ঈদগাহ মাইজ পাড়া হাজীরকুম খালের উপর ব্রীজ নির্মান উদ্বোধন করেন – ককসবাজার সদর -রামু আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল। এটি বাস্তবায়ন করেছে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের আওতাধীন সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস। ব্রীজ নির্মানের দীর্ঘমাস পার হলেও এ সড়কটি এখনো আলোর মুখ থেকে বঞ্চিত। যার ফলে হতাশ হয়ে পড়েছেন বৃহত্তর এলাকার বিপুল জনগোষ্ঠী। এদিকে এ সড়ক যদি নির্মান করা হয়, তাহলে লোকজনের যাতাযাত অনেকটা সহজতর হতো। ঈদগাঁওর বৃহত্তর মাইজ পাড়া ও জালালাবাদের পালাকাটা বটতলী পাড়াসহ বিভিন্ন এলাকার লোকজন অতিসহজে এ গ্রামীন সড়ক পার হয়ে প্রয়োজনীয় কাজেকর্মে অল্প সময়ের ব্যবধানে ককসবাজারে আসা যাওয়া সম্ভব হতো। এছাড়াও বিশাল এলাকার বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা পড়ুয়া ছাত্রছাত্রীরা অনায়াসে এই রাস্তা দিয়ে চলাফেরা করতে পারতো। অপর দিকে রোগীদের জন্য অতি সহজতর হতো  সড়কটি। বাজার এলাকা হয়ে ঘুরে আসার ক্ষেত্রে সময় ও অর্থ অপচয় কম হত। ঈদগাঁও ইউনিয়নের মেহের ঘোনাস্থ মহাসড়কের লাগোয়া থেকে প্রায় ২/৩ কিলোমিটার পযন্ত অযন্তে অবহেলায় পড়ে থাকা সড়কটি যদি সংস্কার করা হয়, তাহলে এলাকাবাসীর জন্য বিশেষ সুযোগ সুবিধা সৃষ্টি হবে।

এ বিষয়ে দক্ষিন মাইজ পাড়ার ব্যবসায়ী জিল্লুল এহেচান ভুলু জানান, এ গ্রামীন সড়কটি মেরামত হলে সর্বশ্রেনী পেশার লোক জনের চলাচলের ক্ষেত্রে সহজ হবে এবং অযথা দূর্ভোগ থেকে মুক্তি পাবে ও এলাকাবাসী দ্রুত সময়ে মহাসড়কে অবস্থান করতে পারবে।

অন্যদিকে উত্তর মাইজ পাড়ার কয়েকজন পথচারী জানান,দীর্ঘ সময় ধরে পড়ে থাকা সড়কটি যদি সংস্কারের মুখ দেখে,তাহলে বিশাল এলাকার লোকজনদেরকে ঈদগাঁও বাজার পেরিয়ে মহাসড়কে আসতে আধঘন্টা সময় প্রযোজন হলেও, সে ক্ষেত্রে ১০/১৫ মিনিটে পায়ে হেটে সরাসরি মহাসড়কে পৌছানো সম্ভবপর হয়ে উঠবে। তাছাড়া সময় ও অর্থ সাশ্রয় হবে।

তবে উক্ত সড়ক দিয়ে দৈনিক যাতাযাত করা মহিলারা হতাশ কন্ঠে জানান, চলাচল সড়ক মেরামত না করে দীর্ঘদিন পূর্বে হাজীরকুম পয়েন্টে একটি ব্রীজ নির্মান করে রেখেছে। তাতে এ সড়কটি পরিপূর্ণ সংস্কার না হওয়ায় জন ও যানবাহন চলাচল করতে পার ছেনা কোনভাবেই। তাই উধ্বতর্ন কতৃপর্ক্ষের নিকট আকুল আবেদন যে, অবিলম্বে অযোগ্য সড়কটি যোগ্যতায় স্থান করে দিয়ে বৃহত্তর এলাকার জনগোষ্ঠীর দৈনিক চলাফেরার জন্য নানাবিদ সুযোগ সুবিধা সৃষ্টি করা হোক।

আবার স্থানীয় মেম্বার বজলুর রশিদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি নির্মিত ব্রীজটির কারনে সড়কটি সংস্কার করা হচ্ছেনা বলেও জানান। অন্যদিকে সদর উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক  রাজিবুল হক চৌধুরী রিকো জানান, উক্ত সড়কটি মাটি ভরাট করে ব্রিক সলিন আকারে চলাচলের বিকল্প মাধ্যম হিসেবে রাস্তা সংস্কার চাই ।

এদিকে ঈদগাঁও আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক তারেক আজিজ জানান, মেহেরঘোনা হয়ে হাজীরকুম পয়েন্ট দিয়ে মাইজপাড়া আসা যাওয়ার সড়কটির সংস্কার হলে দৈনিক ৪/৫ হাজার মানুষ যাতাযাত করতে পারবে সহজে ও অল্প সময়ে। তবে সচেতন মহলের মতে, বর্তমানে ব্রীজ থাকলেও সড়ক নেই।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

বিএনপি নেতা রফিকুল ইসলাম মিয়া গ্রেফতার

তিন মাস পর কারামুক্ত শহিদুল আলম

কাবুলে ঈদে মিলাদুন্নবীর জমায়েতে বোমা হামলায় নিহত ৪০

হেফাজত কাউকে সমর্থন দেবে না : আল্লামা শফী

কক্সবাজার শহরে যানজট নিরসনে জেলা পুলিশের চেকপোস্ট স্থাপন

নির্বাচনী সমীকরণ : আসন কক্সবাজার-৪

জিএম রহিমুল্লাহর ইন্তেকালে নেজামে ইসলাম পার্টি ও ইসলামী ছাত্রসমাজের শোক

আদর্শ নেতৃত্ব সৃষ্টির জন্য সৎকর্মশীলদের সান্নিধ্য অপরিহার্য

শেষ মুহূর্তে তারুণ্যের শক্তি দেখাতে চান সফল উদ্যোক্তা আনিসুল হক চৌধুরী সোহাগ

রামুতে মাসব্যাপী পণ্য প্রদর্শনী মেলা উদ্বোধন

রামুতে জেএসসিতে এ-প্লাস ও বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা

’সুজন’ চকরিয়া উপজেলা কমিটি গঠিত

বদির স্ত্রীকে আ. লীগের প্রার্থী ঘোষণা

প্রেমে বাঁধা দেওয়ায় ছাত্রীর মাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে গৃহশিক্ষক

কক্সবাজারে অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার

জিএম রহিমুল্লাহর মৃতুতে জেলা বিএনপির শোক

জিএম রহিমুল্লাহ’র মৃত্যুতে কক্সবাজার পৌর পরিষদের শোক

বিশ্বের সর্বোচ্চ ১৫০ বছর বয়সের জীবিত মানুষ খুটাখালীর সিকান্দর!

আলোকচিত্রী শহিদুল আলম কারামুক্ত

৩০ নভেম্বর কক্সবাজারে অনুষ্ঠিত হবে ‘ওয়াকাথন ২০১৮’