পেকুয়া উজানটিয়ায় ৭ পয়েন্টে বেড়িবাঁধ বিধ্বস্ত, জোয়ার ভাটা চলছে

রিয়াজ উদ্দিন, পেকুয়া:

পেকুয়া উজানটিয়ায় ৭ পয়েন্টে পাউবোর বেড়িবাঁধ বিধ্বস্ত হয়ে থমকে গেছে জনজীবন। এতে করে উপজেলার উপকুলবর্তী দুটি ইউনিয়নের আংশিক প্লাবিত হয়েছে। প্রচন্ড বৃষ্টিপাত ও আমাবস্যার ভরা তিথীতে সাগরে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। পানির প্রচন্ড ¯্রােত ও জোয়ারের ধাক্কায় উপজেলার উপকুলবর্তী উজানটিয়া ইউনিয়নের দক্ষিন অংশে টেকপাড়া পয়েন্টে বেড়িবাঁধ বিধ্বস্ত হয়েছে। একইভাবে রাজাখালী ইউনিয়নের নতুনঘোনা পয়েন্টে পাউবোর বেড়িবাঁধ বিলীন হয়। প্রায় ৫০ ফিট ওই পয়েন্টে বেড়িবাঁধ বিলীন হয়েছে। তাছাড়া রুপালীবাজারপাড়া, সুতাচোরা, সোনালীবাজার, ঠান্ডারপাড়া, করিয়ারদিয়া, কুমবাইশারীসহ ৭ টি পয়েন্টে বিলীন ওই অংশ দিয়ে গত দুই দিন ধরে সাগরের জোয়ারের পানি লোকালয়ে প্রবেশ করছে। এতে করে ওই ইউনিয়নের নতুনঘোনা, পালাকাটা, ও বদিউদ্দিনপাড়াসহ আশপাশের বেশ কিছু গ্রাম জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়। উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের ধারিয়াখালী পয়েন্টে বেড়িবাঁধের ২০ ফিট অংশ বিলীন হয়। ওই অংশ দিয়ে জোয়ারের পানি লোকালয়ে প্রবেশ করে। এ সময় মগনামা ইউনিয়নের ধারিয়াখালী কুমপাড়া, বাইন্নাঘোনা ও রকুরদিয়াসহ আশপাশের আরও কিছু গ্রামে পানি প্রবেশ করে। উজানটিয়া ইউনিয়নের দক্ষিন অংশে টেকপাড়া পয়েন্টে পাউবোর বেড়িবাঁধ বিলীন হয়েছে। বেড়িবাঁধের পৃথক অংশ বিলীন হয়েছে। স্থানীয় সুত্র জানায়, এ অংশে প্রায় ৭শ ফিট বেড়িবাঁধ বিলীন হয়ে যায়। বিলীন ওই অংশ দিয়ে উজানটিয়া খালের পানি সরাসরি লোকালয়ে প্রবেশ করছে। এতে করে টেকপাড়া, পূর্ব উজানটিয়া, সুন্দরীপাড়া,রুপালীবাজারপাড়া, মালেকপাড়া মিয়াজি পাড়া, নুরীরপাড়া, গোদারপাড়, আতরআলী পাড়া, মিডারপাড়া, ঠান্ডারপাড়া, ঘোষালপাড়া, ঘোরাঘোনা, করিয়ারদিয়া, ফেরাসিঙ্গাপাড়া, পাশ্চিম উজানটিয়াপাড়াসহ এ ইউনিয়নের বিস্তীর্ন এলাকা পানিতে প্লাবিত হয়। একই ইউনিয়নের বিচ্ছিন্ন দ্বীপ করিয়ারদিয়ায় পাউবোর বেড়িবাঁধ বিধ্বস্ত হয়েছে। স্থানীয় সুত্র জানায়, করিয়ারদিয়ায় গুদামপাড়া নামক স্থানে বেড়িবাঁধের ৩০ ফুট বিলীন হয়। ইউপি সদস্য জাফর আলম সহ স্থানীয় পর্যায় থেকে দ্রুত ছুটে গিয়ে বিধ্বস্ত অংশ মাটি ভরাট করে পানি আটকানো হয়েছে। একই ইউনিয়নের সুতাচোরা পয়েন্টে বেড়িবাঁধ বিলীন হয়েছে। এ অংশ দিয়ে মাতামুহুরী নদীর ঢলের পানি উজানটিয়ায় প্রবেশ করছে। এ সময় এ ইউনিয়নের পূর্ব ও উত্তর অংশে আংশিক প্লাবিত হয়েছে। গত কয়েক দিনে অবিরাম বৃষ্টিপাত হচ্ছে। নদী অববাহিকায় পানির উচ্চতা বৃদ্ধি পেয়েছে। মাতামুহুরী নদীসহ এর শাখা নদী সমুহতে পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। মাতামুহুরী নদীর পানি উপচিয়ে লোকালয়ে প্রবেশ করছে। উপজেলার সদর ইউনিয়নের দক্ষিন ও পূর্ব অংশের অধিক গ্রামে নতুন করে প্লাবিত হওয়ার শংকা দেখা দেয়। এ ছাড়া বৃষ্টির পানিতে উপজেলার মগনামা, বারবাকিয়া, রাজাখালী, টইটং ও শিলখালী ইউনিয়নে ব্যাপক জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। পাহাড়ী তিন ইউনিয়নে বিপুল গ্রাম পানিতে তলিয়ে গেছে। এ সব ইউনিয়নের বহু শাক সবজি পানিতে তলিয়ে গেছে। প্রবাহমান ছড়া সমুহ এর উপর দিয়ে পানির প্রচন্ড স্রোতধারা তৈরী হয়েছে। ছড়ার কুল উপচিয়ে পানি লোকালয়ে প্রবেশ করে। রাস্তাঘাট ও গ্রামীন অবকাঠামো পানিতে তলিয়ে যায়। উপজেলার উজানটিয়া ইউনিয়নের এর সাথে পেকুয়ার সরাসরি সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে। ধারিয়াখালী অংশে বেড়িবাঁধ বিলীন হয়েছে। ওই অংশ দিয়ে পানি ঢুকছে। এতে করে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। পূর্ব উজানটিয়া বিপুল এলাকায় জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। চিংড়ি ঘের পানিতে তলিয়ে যায়। টেকপাড়া অংশে জোয়ারের পানি আটকানোর প্রচেষ্টা চলছে। মৎস্য চাষীদের সমন্বয়ে স্থানীয়রা পানি আটকাতে ব্যক্তিগত উদ্যোগ নেয়। স্থানীয় মালেকপাড়ার আনোয়ারুল হোসেন এমজারুল নামের এক মৎস্য খামারী বাঁধ সংষ্কারের উদ্যোগ নেয়। তবে উজান থেকে নেমে আসা ঢলের পানি ও সাগরের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় মাটি ভরাট কাজ কঠিন হয়েছে। এমজারুল জানায়, আমরা চেষ্টা করছি। তবে এ পরিস্থিতির জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডের গাফিলতি সবচেয়ে দায়ী। উজানটিয়া ৮ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জয়নাল হাজারী জানায়, স্থানীয় মৎস্য চাষীদের অপরিকল্পিত আরসিস পাইপ বসানোর কারনে এবং পাউবোর কর্মকর্তাদের দায়িত্বহীনতার কারনে প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে উজানটিয়ায় সাধারন জনগনের উপর এ দুর্দশা ভর করে। উজানটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম চৌধুরী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বর্ষা শুরুর কয়েকমাস আগে থেকে পাউবোর কর্মকর্তাদের বার বার তাগাদা দেয়া স্বত্তেও তারা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ না নেয়ায় আজকের দুর্দশা। তিনি আরো জানান, গত ৬ মাস আগে পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়সহ বিভিন্ন দপ্তরে বেড়িবাঁধের দুর্দশার কথা জানিয়ে আবেদন করা হয়েছে। তাদের আচরনে মনে হয় বিএনপি জামায়াতের সাথে আতাঁত করে সাধারন জনগনকে দুর্ভোগে পতিত করে। সরকারের বিরুদ্ধে জনগনকে ফুসিয়ে তোলার চেষ্টা চালাচ্ছে।

প্রেরক

রিয়াজ উদ্দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক, পেকুয়া

০১৮১৪৯৪৩৮০৪

তাং ১৮-০৬-১৮

সর্বশেষ সংবাদ

‘একটিবার নতুন জীবন ভিক্ষা দিন, ইয়াবামুক্ত সমাজ উপহার দেব’

অবশেষে ইয়াবা ডন শাহাজান আনসারির আত্মসমর্পণ

বামপন্থী থেকে ইসলামী ধারা: আল মাহমুদের অন্য জীবন

ইয়াবা ব্যবসায়ীদের নিস্তার হবে না হবে না হবে না- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নতুন দুই মামলায় কারাগারে যাবে আত্মসমর্পণকারীরা

জামায়াত ভাঙছে, তারপর কী?

কক্সবাজারে মালয়েশিয়া পাচারের সময় ১৭ রোহিঙ্গা আটক

বিশ্বের ২৭২৯টি দলকে হারিয়ে নাসার প্রতিযোগিতায় বিশ্বচ্যাম্পিয়ন শাবি

আত্মসমর্পণ করেছে ১০২ ইয়াবা ব্যবসায়ী

আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে তালিকাভুক্ত ইয়াবা কারবারিরাও!

আত্মসমর্পণ করছে তালিকাভুক্ত ৩০ ইয়াবা গডফাদার

মঞ্চে আত্মসমর্পণকারী ইয়াবাকারবারিরা

৯ শর্তে আত্মসমর্পণ করছে ইয়াবা ব্যবসায়ীরা

শুরু হচ্ছে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের আত্মমসমর্পণ অনুষ্ঠান

জনপ্রিয় হয়ে উঠছে পার্চিং পদ্ধতি

ঈদগড়ের সবজি দামে কম, মানে ভাল

রক্তদানে তরুণদের এগিয়ে আসতে হবে

যে মঞ্চে আত্মসমর্পণ

লামার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইসমাইল আর নেই

আজ আত্মসমর্পণ করবে টেকনাফের ১০২ ইয়াবা ব্যবসায়ী