শঙ্খ নদী গ্রাস করছে আমিলাইষের খান মোহাম্মদ সিকদার পাড়া

মোঃ নাজিম উদ্দিন, দক্ষিণ চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:
ঈদ আনন্দ নাই সাতকানিয়ার আমিলাইষের খান মোহাম্মদ সিকদার পাড়ার বাসিন্দাদের মাঝে। এই এলাকার বাসিন্দাদের বাড়িঘর প্রতিনিয়ত নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। টানা চারদিনের ভারি বর্ষনে পানির ¯্রােতে দক্ষিণ চট্টগ্রামের সহ¯্রাধিক বাড়ি-ঘর নদী ভাঙনের শিকার হয়েছে। ভাঙনকবলিত এলাকায় নেই কোনো প্রতিরোধ ব্যবস্থা। ফলে নদী ভাঙন ভয়াবহ আকার ধারন করেছে। গত মঙ্গলবার ও বুধবার দু’দিনে সিকদার পাড়ার ৭টি বাড়ি সম্পূর্ণ নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। এছাড়া ভাঙনের মুখে রয়েছে আরো ৮টি বাড়ি। এসব বাড়ি যেকোনো সময় বিলীন হয়ে যেতে পারে।

বৃহস্পতিবার সিকদার পাড়ায় সরেজমিনে ঘরে দেখা যায়, শঙ্খ নদীর টার্নি পয়েন্ট হওয়ায় পাহাড়ি ঢলের ¯্রােতে এই এলাকাটি নদীতে ভেঙ্গে যাচ্ছে। ভাঙনের মুখে যারা রয়েছেন, তারা বাড়ির জিনিসপত্র সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। এসময় ক্ষতিগ্রস্ত জামাল হোসেন বলেন, নদীর মাঝ খানে ছিল আমার বাড়ি। দুই বছর আগে সেই বাড়ি ভিটাই নদীতে বিলীন হয়ে গেলে এখানে এসে অনেক টাকা খরচ করে নতুন করে ঘর করি। এখন সেই বাড়িটিও গ্রাস করেছে নদী। পরিবার পরিজন নিয়ে প্রতিবেশীদের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছি। পরবর্তীতে কোথায় থাকবো সে দুশ্চিন্তাই দিন কাটাচ্ছি। সাবেক ইউপি সদস্য আহমদ হোসেন বলেন, গত বর্ষায় আমার নিজ বাড়ি ভিটাও নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। তখন থেকে আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে আশ্রয় নিয়ে আছি। পাহাড়ি ঢলে খান মোহাম্মদ সিকদার পাড়া এলাকায় নদী ভাঙন ভয়াবহ রুপ নিয়েছে। দু’দিনে সিএনজি চালক মো. শাহজাহান, আব্দুল করিম, আব্দুর রহমান, জামাল হোসেন, নুরুল আলম, নুর ই জান্নাত ও আবুল কালামের বাড়ি নদীতে ভেঙে গেছে। আমিলাইষের ৩নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোস্তাক আহমদ বলেন, খান মোহাম্মদ সিকদার পাড়ায় ভয়াবহ নদী ভাঙন শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে অনেকের বাড়ি নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। আমিলাইষ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এইচএম হানিফ জানান, এ অঞ্চলে আমিলাইষেই সবচেয়ে বেশি নদী ভাঙন দেখা দিয়েছে। কয়েকদিনের মধ্যে অনেক বাড়ি নদী গর্ভে হারিয়ে গেছে।
বৃহস্পতিবার বিকালে ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের আপতকালিন বরাদ্দ থেকে ১০০ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে চাল বিতরণ করা হয়েছে। সাতকানিয়া উপজেলা
নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোবারক হোসেন বলেন, খান মোহাম্মদ সিকদার পাড়ায় আমি বৃহস্পতিবার বিকালে নদী ভাঙন এলাকা পরিদর্শন করেছি। ওই এলাকার বাসিন্দারাই বেশি নদী ভাঙনের শিকার হয়েছে। আমরা তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ২০ কেজি করে চাল বিতরণ করেছি। নদী ভাঙনের বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

ছবির ক্যাপশান: সাতকানিয়ার আমিলাইষের খান মোহাম্মদ সিকদার পাড়ায় শঙ্খ নদীতে বিলীন হচ্ছে বাড়িঘর।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে সংবর্ধনা

বিমানবন্দর থেকে ইয়াবাসহ বরিশালের দুই তরুণী

ইয়াবা পাচারের দায়ে টেকনাফের যুবকের ১০ বছর জেল

মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনে আ. লীগের মনোনয়ন পাচ্ছেন সিরাজুল মোস্তফা!

উলঙ্গ থাকার বিধান কী?

গ্যারেজে চাকরি করা প্রবাসী, কাগজ ব্যবসায় কোটিপতি

হঠাৎ স্যামসাং স্মার্টফোন বিস্ফোরণ! তারপর…

হাটহাজারীতে পিকআপ-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ১

দেড় লাখ ইভিএম কেনার সিদ্ধান্ত

দেশে দারিদ্র্যের হার আরও কমেছে

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ১০ অক্টোবর

জাতীয়করণ হতে যাচ্ছে রাঙামাটির ৮০টি বিদ্যালয়!

চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের কমিটিতে পদ বঞ্চিতদের বিক্ষোভ

প্রধানমন্ত্রী সমীপে মহেশখালীর প্রবীণ রাজনীতিবিদ ডাঃ নুরুল আমিন জাহেদের খোলাচিঠি

টেকনাফে বিজিবি’র অভিযানে তিন কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার

নুরজাহান আশরাফী কুতুবদিয়া উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষিকা নির্বাচিত

প্রতিবন্ধী কোটা বহাল রাখার দাবী চবি শিক্ষার্থীদের

এবার স্কুলের দেয়াল পরিষ্কারে নেমেছেন কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগ

রোহিঙ্গা যুবতী প্রেমিকসহ আটক শীর্ষক সংবাদের সংশোধনী

“তিনি ‘শাসক’ নন, সেবক”