রামুর গর্জনিয়া কচ্ছপিয়ার ২০ হাজার মানুষ পানি বন্দি : ভেসে গেছে ১ জন

হাবিবুর রহমান সোহেল, নাইক্ষ্যংছড়ি :

নাইক্ষ্যংছড়ির পার্শবর্তী রামু উপজেলার গর্জনিয়া কচ্ছপিয়াতে টানা কয়েক দিনের বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের পানি বন্দি হয়ে পড়েছে এলাকার ২০ হাজারেরও বেশি মানুষ। এতে বানের পানিতে ভেসে গেছে এক শিশু। ভেসে যাওয়া শিশুটি রামুর গর্জনিয়া ইউনিয়নের পশ্চিমবোমাংখিল গ্রামের তিন বছরের এক শিশু। মঙ্গলবার (১২জুন) বেলা সাড়ে ১২টায় এ ঘটনা ঘটে। শিশুটির নাম মোহাম্মদ জুনায়েদ। আর তার বাবা হলেন একই গ্রামের নুরুল হুদা। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য নুরুল আলম মুঠোফোনে বলেন, বন্যার পানি বেড়ে যাওয়ায় নিচু এলাকা থেকে নিরাপদ আশ্রয়ে ছুটছিলেন নুরুল হুদার পরিবার। এরই মধ্যে তাঁর শিশু সন্তান জুনায়েদ পানিতে ডুবে যায়। পরিবারের সদস্যরা অল্পক্ষণ পর তাকে উদ্ধার করে গর্জনিয়া বাজারের একটি বেসরকারী ক্লিনিকে নিয়ে গেলে ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে টানা বর্ষন ও পাহাড়ি ঢলে গর্জনিয়া কচ্ছপিয়ার নিম্ন এলাকা তলি গেছে। ডুবে আছে উপজেলার একাধিক ইউনিয়নের গ্রামীণ যাতায়াতের পথ। তলিয়ে গেছে বিভিন্ন গ্রামীণ সড়ক। এতে করে চরম দূর্ভোগে পড়েছে এখানকার হাজারো জনসাধারণ। বিদ্যুৎ বিহীন হয়ে পড়েছে গর্জনিয়া বাজার, কচ্ছপিয়াসহ কয়েকটি ইউনিয়নের সর্বসাধারণ।

বিশেষ করে বৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলে ওই এলাকার নিন্মাঞ্চল কচ্ছপিয়া ইউনিয়ানের তিতার পাড়া, ডিককুল, দৌছড়ি, জামছড়ি, মৌলভির কাটা, শুকমুনিয়াসহ গর্জনিয়া ইউনিয়নের বড় বিল, পূর্ব জুমছড়ি, টাইম বাজার, পশ্চিম জুমছড়ি, গর্জনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের আশপাশের গ্রামের বসত বাড়িতে পানি উঠেছে। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ১২ মঙ্গলবার দিবাগত রাত হতে অতিবৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলে রামু উপজেলার কচ্ছপিয়ার তিতার পাড়া, গর্জনিয়া বাজার, শুকমুনিয়া ও গর্জনিয়া ইউনিয়নে কয়েকটি গ্রাম, পুর্ব বুমাংখিল, গর্জনিয়া বাজার হতে চাকমার কাটা গুরুর বাজার পর্যন্ত সড়কসহ কযেকটি গ্রামে পানি উঠে যাতাযত করতে পারছেনা জনসাধারণ। গর্জনিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল জানান, হঠাৎ করে প্রবল বর্ষনে বন্যার ফলে বাকঁখালী ব্রীজের ভাংঙ্গ সৃষ্টি হয়েছে। তিনি এলাকার সকল শ্রেনী পেশার মানুষ সহ সংশ্রিষ্ট কর্তৃপক্ষকে এগিয়ে আসার আহবান জানান। নুরুল আলম মেম্বার জানান, মঙ্গলবার দিবাগত রাত হতে গর্জনিয়ার ইউনিয়নের টাইম বাজার হতে সিকদার পাড়া, পূর্ব জুমছড়ি, বড় বিল এবং শাহ সুজাঁ সড়কে পানি বিপদ সীমার উপরে বেড়ে যাওয়ায় সকাল হতে কোন জনসাধারণের চলাচল করে পারছেনা । এছাড়া ও গর্জনিয়া বাজারে সোমবার সন্ধ্যা হতে বিদ্যুৎ বিহীন অবস্থায় দিন যাপন করছে মানুষ। এদিকে এভাবে বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে বন্যার আশংকা করছেন বিশ্লেষকরা। অন্যদিকে প্রবল বৃষ্টির ফলে রামুতে থমকে পড়েছে ঈদের বাজার। বৃষ্টির ফলে বসত বাড়িতে পানি উঠায় ঈদ আনন্দ নিয়ে সংশয় জানিয়েছেন অনেকেই।

সর্বশেষ সংবাদ

ড. সলিমুল্লাহ খানের ভিডিও ভাইরাল, উদ্বিগ্ন মহেশখালীর মানুষ

কুতুবদিয়া : যার সৃষ্টি পলিমাটি থেকে

কোস্ট গার্ডের সহায়তায় বাড়ি ফিরেছে সমুদ্রসীমানায় হারিয়ে যাওয়া ১৭ বাংলাদেশী

সাংবাদিকদের চাকরির নিশ্চয়তাসহ আইনী সুরক্ষা দেবে সরকার : তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ

বিয়ের পর বদলে গেল মিথিলার নাম

লোহাগাড়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় পেকুয়ার ২ যুবক আহত

স্লোগান, বিশৃঙ্খলা, মাস্তানি করে নেতা হওয়ার দিন শেষ-ওবায়দুল কাদের

চকরিয়ায় পাচারকালে বনের কাঠভর্তি গাড়ি জব্দ

‘পার্বত্য ভূমিকে নিয়ে প্রতিমুহুর্তে ষড়যন্ত্র হচ্ছে’

সিবিআইইউ’র আইন বিভাগের র‌্যাগ ডে উৎসব

সিবিআইইউতে আইকিউসি’র উদ্যোগে কর্মশালা অনুষ্ঠিত

খালেদা জিয়ার জামিন নিয়ে সরকার জঘন্য নাটক করছে

ভালোই আছেন খালেদা জিয়া, ভুগছেন শুধু গিরার ব্যথায়

সুন্দরী নারীরা পুরুষের হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বাড়ায়!

পেকুয়া দিগন্ত ফাউন্ডেশনের তাফসীরুল কোরআন মাহফিল সম্পন্ন, দুই অমুসলিমের ইসলাম গ্রহণ

আমরা চাঁদাবাজ-দুর্নীতিমুক্ত নেতা নির্বাচন করব -ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ

মহেশখালী হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

গোমাতলীর হাজী ফজলের ইন্তেকাল, বাদ আছর জানাজা

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বাড়ছে অপরাধ, মারধরে গুরুতর আহত রোহিঙ্গা দম্পতি

চট্টগ্রাম শাহ আমানতে ২১৬ কার্টন সিগারেটসহ যাত্রী আটক