মাতৃ ও শিশু স্বাস্থ্য সেবায় ‘হোপ হসপিটাল’ একটি রোল মডেল!

বিশেষ প্রতিবেদক:
রোহিঙ্গা শরণার্থী পূর্নবাসনে বাংলাদেশ সরকার জাতীয় এবং আন্তর্জাতিকভাবে যথেষ্ট সুনাম অর্জন করেছে আর এক্ষেত্রে স্থানীয় প্রশাসন, দেশী-বিদেশী সংস্থা, জনপ্রতিনিধি, সংবাদপত্র-মিডিয়া, সর্বস্তরের জনগনের সমর্থন ও সহযোগিতা সরকারের কার্যক্রমকে আরো বেশী গতিশীল করেছে। বাংলাদেশ সরকারের বহিরাগমন বিভাগ ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর ইতিমধ্যে ১১ লক্ষ ১৭ হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থীর (্সূত্র: প্রথম আলো, ১৭ মে ২০১৮) নিবন্ধনের কাজ সম্পন্ন করেছে, যারা বর্তমানে কক্সবাজারের টেকনাফ ও উখিয়া’য় অবস্থান করছে।

এত ব্যাপক জনগোষ্ঠীর খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, চিকিৎসা সেবা প্রদান করাটা সত্যিই একটি বড় চ্যালেঞ্জ কিন্তু সরকার সকলের সমন্বিত প্রচেষ্টায় সকল বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে সাফলতা দেখিয়েছেন। চিকিৎসা বঞ্চিত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে বিভিন্ন দেশী-বিদেশী সংস্থার পাশাপাশি ‘হোপ ফাউন্ডেশন’ বাংলাদেশ সরকার, ইউএনএফপিএ, এভরি মাদার কাউন্টস্-এর আর্থিক সহায়তায় শরণার্থী পূর্নবাসনের শুরু থেকেই মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করে আসছে। বর্তমানে হোপ ফাউন্ডেশন পাঁচ সরকারী স্বাস্থ্য সেন্টার, তিনটি অস্থায়ী হোপ স্বাস্থ্য ক্যাম্প এবং একটি স্থায়ী হোপ ফিল্ড হসপিটালের (রোহিঙ্গা শরণার্থী এলাকায় একমাত্র ফিল্ড হসপিটাল) মাধ্যমে চিকিৎসা সেবা প্রদান করছে। দেশী-বিদেশী চিকিৎকদের পাশাপাশি প্রায় ৫০ জন দক্ষ মিডওয়াইফ গর্ভবর্তী ও প্রসব পরবর্তী মায়েদের, নবজাতক ও শিশুর স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করেছে। হোপ ফাউন্ডেশন-ই একমাত্র বেসরকারী সংস্থা যেখানে বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশী সংখ্যক মিডওয়াইফদের কর্ম-সংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করতে পেরেছে। এখানে উল্লেখ্য যে, হোপ ফাউন্ডেশন বৃটিশ সরকারের অনুদানে এবং ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সহায়তায় ২০১২ সাল থেকে জাতীয় ও আর্ন্তজাতিক মানসম্পন্ন ‘ডিপ্লোমা ইন মিডওয়াইফারি’ কোর্সটি পরিচালনা করছে।

হোপ হসপিটালটি মুলত ‘হোপ ফাউন্ডেশন ফর উইমেন এন্ড চিলড্রেন অব বাংলাদেশ’ এর একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। ১৯৯৯ সাল থেকে হোপ হসপিটালটি কক্সবাজারের রামু উপজেলার চেইন্দা নামক স্থানে কাজ শুরু করেছে। ৪০ শষ্যাবিশিষ্ট হসপিটালটি শুরু থেকেই যথেষ্ট সুনামের সহিত স্বল্পমূল্যে এবং বিনামূল্যে মায়েদের, নবজাতকের ও শিশুর স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করে আসছে। প্রতি বছর এই হসপিটালটি গড়ে ১১ হাজার মহিলা এবং ৬০০০ নবজাতক ও শিশু চিকিৎসা সেবা প্রদান করছে।

কক্সবাজারের প্রত্যন্ত গ্রাম ও সুবিধাবঞ্চিত অঞ্চলের গর্ভবতী, নিরাপদ ডেলিভারী ও প্রসব পরবর্তী মায়েদের সেবা প্রদানের লক্ষ্যে হোপ ফাউন্ডেশন ইসলামিক ডেভলপমেন্ট ব্যাংক এর আর্থিক সহায়তায় পাঁচটি বার্থ সেন্টার চালু করেছে, যার মাধ্যমে সুবিধাবঞ্চিত অঞ্চলের গর্ভবতী ও প্রসব পরবর্তী মায়েরা, নবজাতক ও শিশুরা সেবা নিতে পারছে। মহেশখালীসহ অন্যান্য সুবিধাবঞ্চিত অঞ্চলে হোপ মেডিকেল সেন্টারসমুহ এবং বিভিন্ন হোপ হেলথ্ ক্যাম্প আয়োজনের মাধ্যমে কমিউনিটি পর্যায়ে মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করে আসছে।

অন্যদিকে বাড়ীতে অদক্ষ দাই/ধাত্রীর মাধ্যমে বাচ্চা প্রসব করানোর ফলে মা ও বাচ্চার মৃত্যুর ঝুঁকির পাশাপাশি নানান জটিলতার সৃষ্টি হয় আর এর মধ্যে অন্যতম জটিলতা হলো মায়েদের ’প্রসবজনিত ফিস্টুলা’। হোপ হসপিটাল অত্যন্ত দক্ষতার সাথে বিশেষজ্ঞ চিকিসকের মাধ্যমে বিনামূল্যে ফিস্টুলা’র চিকিৎসা সেবা প্রদান করে যাচ্ছে। প্রতি বছর গড়ে প্রায় ৮০ জন ফিস্টুলা রোগী হোপ হসপিটাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ জীবন যাপন করছে। খুব শীগ্রই হোপ ফাউন্ডেশন ফিস্টুলা ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহায়তায় ৭৫ শষ্যাবিশিষ্ট ‘হোপ মেটার্নিটি এন্ড ফিস্টুলা সেন্টার’ চালু করতে যাচ্ছে, যা বাংলাদেশে ফিস্টুলা’র অত্যাধুনিক চিকিৎসার ক্ষেত্রে একটি মাইলফলক হিসেবে কাজ করবে।

বাংলাদেশের মাতৃ, নবজাতক ও শিশু মুত্যুর হার কমিয়ে ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সরকারের এই সংশ্লিষ্ঠ কাজে সহায়তা করতে হোপ ফাউন্ডেশন সদা প্রস্তুত এবং সেই লক্ষ্যেই হোপ হসপিটাল কাজ করে যাচ্ছে। এ প্রসঙ্গে হোপ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট ডা. ইফতিখার মাহমুদ বলেন, কক্সবাজার জেলার সকল প্রত্যন্ত ও সুবিধাবঞ্চিত এলাকাসমুহ কর্মসূচীর আওতায় আনা হচ্ছে, সরকারের এবং বিদেশী দাতা সংস্থার সহায়তা পেলে শুধুমাত্র কক্সবাজার নয় বাংলাদেশের প্রতিটি জেলার প্রত্যন্ত ও সুবিধাবঞ্চিত এলাকায় হোপ হসপিটালের মতো মডেল হসপিটাল স্থাপন করে মাতৃমুত্যু, নবজাতক ও শিশু মৃত্যুর হার কমানো সম্ভব।

{হোপ হসপিটাল সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে লিখুন: [email protected]}

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

রামুতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ব্রিক ফিল্ডে ভাংচুর, হত্যার হুমকি

১২০ রানে মুমিনুলের বিদায়

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যা, বিএনপি নেতা গিয়াস কাদের কারাগারে

১৫ ডিসেম্বরের পর মাঠে কাজ করবে সশস্ত্রবাহিনী: সিইসি

ছেলে জয়কে স্কুলে পাঠিয়ে ভীষণ খুশি শাকিব-অপু

ডায়াবেটিস নিয়ে ভয়াবহ বিপদের আশঙ্কা

বিএনপির কর্মকাণ্ডে গৃহযুদ্ধের আশঙ্কা কাদেরের

৭৮০০ ইয়াবাসহ ‘সিএসবিডি’ এর গাড়ী জব্দ, আটক ১

কক্সবাজার প্রেসক্লাবে আলোচনা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত

১৫ ডিসেম্বরের পর সশস্ত্র বাহিনী মাঠে কাজ করবে: সিইসি

কেন অন্যদের চেয়ে এগিয়ে আনিসুল হক চৌধুরী সোহাগ?

কবি রেজাউদ্দিন স্টালিনের ৫৬তম জন্মদিনে শুভেচ্ছা

পেকুয়ায় লবণ বহনের নৌকা আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ

খুন করে প্রেমিকের মাংস রেঁধে লোকজনকে খাওয়ালেন নারী

মনোনয়নপ্রার্থীদের কাছে কী কী জানতে চান তারেক রহমান?

ইয়েমেনে ৪বছরে ৮৫ হাজার শিশু মৃত্যু, অপেক্ষায় আরো দেড় লাখ

পুলিশ কথা না শুনলে নির্বাচন কমিশন কী করতে পারে ?

১৫০ কোটি আইডি ‘ডিলিট’ করেছে ফেসবুক

প্রিয়াঙ্কা-নিকের ছয় দিনের বিয়ে উৎসব

এজেন্ট চিন্তায় বিএনপি