আর কত সুবিধা চান সরকারি চাকুরেরা : অর্থমন্ত্রী

আর কত সুবিধা চান সরকারি চাকুরেরা : অর্থমন্ত্রী

ডেস্ক নিউজ:

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ‘সরকারি চাকুরেদের যেসব সুযোগ-সুবিধা বর্তমান সরকার দিয়েছে এর আগে তারা জীবনে তা চোখেও দেখিনি। বেতন ৪০ হাজার থেকে ৭৫ হাজার টাকায় উন্নীত করা হয়েছে। ইনক্রিমেন্টের ব্যবস্থা করা হয়েছে। স্বল্প সুদে গৃহনির্মাণ ঋণ দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়েছে।’

এরপরও তারা (সরকারি চাকরিজীবীরা) আর কত সুবিধা চান- বলে প্রশ্ন করেন মুহিত।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ‘সমৃদ্ধ আগামীর পথযাত্রায় বাংলাদেশ’ স্লোগানে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের আকার ধরা হয় ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকা। এর মাধ্যমে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে চান অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

প্রস্তাবিত বাজেটে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘সম্প্রতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সরকারি কর্মচারীদের গৃহনির্মাণ ঋণকে বাস্তবসম্মত পর্যায়ে উন্নীত করার নির্দেশনা দেন। সরকারি কর্মচারীরা বিশেষত নবীন কর্মকর্তারা যেন একটি ফ্ল্যাট বা গৃহের মালিক হতে পারেন সে দিক লক্ষ রেখে আমরা ব্যাংকিং ব্যবস্থার মাধ্যমে গৃহ নির্মাণ ঋণ প্রদানের বিষয়ে একটি নীতিমালার খসড়া প্রণয়ন করেছি। আগামী অর্থবছরেই তা কার্যকর হবে বলে আশা রাখি।

তিনি বলেন, এ নীতিমালার আওতায় একজন সরকারি কর্মচারী দেশের যে কোনো স্থানে গৃহনির্মাণ বা ফ্ল্যাট ক্রয়ের জন্য ঋণ নিতে পারবেন। সহনীয় ও পরিশোধযোগ্য সুদে ব্যাংকিং ব্যবস্থার মাধ্যমে এই ঋণ সরকারি কর্মচারীদের দেয়া হবে। ঋণের প্রকৃত সুদের অবশিষ্ট অর্থ সরকার ভতুর্কি বাবদ বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে পরিশোধ করবে। আশা করি, এই ব্যবস্থা চালু হওয়ার পর সরকারি সেবা প্রদানে কর্মচারীরা আরও উদ্যমী হবেন এবং সর্বত্র সুশাসন প্রতিষ্ঠায় সচেষ্ট হবেন।

অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, চূড়ান্ত নীতিমালা অনুযায়ী সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য পাঁচ শতাংশ সুদহারে গৃহঋণের নীতিমালা চূড়ান্ত করেছে এ সংক্রান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটি। চূড়ান্ত নীতিমালার আওতায় জাতীয় বেতন স্কেলের গ্রেড ভেদে সর্বোচ্চ ৭৫ লাখ এবং সর্বনিম্ন ৩০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ নেয়া যাবে। এই ঋণের মোট সদুহার ১০ শতাংশ। তবে এই ১০ শতাংশ সুদের ৫ শতাংশ সরকার এবং বাকি ৫ শতাংশ ঋণগ্রহীতা পরিশোধ করবে। ছয় মাস গ্রেস পিরিয়ডসহ (ঋণ পরিশোধ শুরুর সময়) ২০ বছর মেয়াদে এই ঋণ পরিশোধ করতে হবে।

সর্বশেষ সংবাদ

ইসরাইল প্রতিরোধে আসছে এরদোগানের ‘ ইসলামিক আর্মি’

মেয়েদের ধনী হওয়ার প্রধান মাধ্যম বিয়েঃ মার্কিন গবেষক

চকবাজারে অক্ষত সব কোরআন-হাদিসের বই

ডাকসুর জন্য শীর্ষ নেতাদেরই বেছে নিচ্ছে ছাত্রলীগ

এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছেন ‘এমএ পাস’ ওসি

চকবাজারের ঘটনায় রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করা হবে : প্রধানমন্ত্রী

ডুলাহাজারার সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আবদুর রহিমের পিতা ইন্তেকাল

জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন যেন গণতন্ত্রের নির্ভেজাল চর্চা

চট্টগ্রামে আজ মহেশখালী পেশাজীবি সমিতির সংবর্ধনা অনুষ্ঠান

নির্বাচনী প্রচারণায় সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল আরজু

আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা ঢাকায়

কক্স সোসাইটির জেলা ভিত্তিক প্রতিযোগিতা মার্চে

চকবাজারের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের শোক

ফাহিম কাঁদছে রোগের ঘোরে, হৃদয়বানরা চোখ মেলে চাও

টেকনাফে দুর্বৃত্তদের গুলিতে রোহিঙ্গা নিহত

মদ পানে ৩২ জনের মৃত্যু

আজ বার্ন ইউনিটে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

ঢাকায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক প্রাণহানিতে ইসলামী ছাত্রসমাজের শোক

উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ শুরু

জার্মান সাংবাদিকদের ক্যামেরা পাসপোর্টসহ ছিনিয়ে নেওয়া মালামাল উদ্ধার