সুন্দরী বধূও আটকাতে পারেনি মাদকের নেশা

আব্দুল আলীম নোবেল:

মাদক অভিযানের গুরুত্ব কতটুকু, যার ঘরে একজন মাদকাসক্ত আছে সেই বুঝে মাদক কতটা ভয়ংকর, কতটা নির্মম। মাদক অভিযানে মানব নয় দানবের সংখ্যা কমে যাচ্ছে। মাদকই একটি সুখের সংসারকে ভেঙ্গে তচনচ করে দিতে পারে। সে রকমই একটি চোখে দেখা বাস্তব কাহিনীটি সময়ের প্রয়োজনে না লিখতে পারলাম না। (ওই পরিবারটি আমাকে মাফ করবেন) একজন সুস্থ মানুষ মাদকের নেশায়, বৃদ্ধ মা, দু সন্তান, সাজানো সাংসার, সুন্দরী বধূ কেউই তাকে আটকাতে পারেনি সে দিন। সময় ২০২০৪ সাল, কক্সবাজার টেকনাফ পৌরসভার বাজারপাড়া এলাকায় আমি দুই ছাত্রকে প্রাইভেট পড়াতে যেতাম। এই সুবাদে খুব কাছ থেকে ওই পরিবারের সকল বিষয়ে জানার সুযোগ হয়েছে আমার। এ পরিবারের প্রধানকর্তা ঢাকা লাইনে গড়ি চালক ছিলেন, যাকে আমারা ডেস্ট্রিক ড্রাইভার হিসেবে বলে থাকি। ওই হতভাগা ব্যক্তিই মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছিলেন তৎসময়। একজন মা, দুই সন্তান ও একজন সুন্দরী স্ত্রী নিয়ে ছিল সাজানো গোছানো একটি সুখের সংসার। ওই সময় সবে মাত্র মিয়ানমার থেকে ইয়াবা আসা শুরু করেছে। ওনি প্রথম দিকে হিরোইনে আসক্ত হলেও পরে ইয়াবা নেশায় জড়িয়ে পড়ছে অন্ধভাবে। এতে দিনের পর দিন নানা অশান্তির বার্তা নিয়ে দিন কাটে এই পরিবারের। দেখেছি আমার চোখের সামনে একটি পরিবার কিভাবে ধ্বংস হয়ে যেতে। সেই দিন সেটি দেখে আমার খুব খারাপ লাগতো। প্রায় সময় দেখতাম মা আর স্ত্রীার চোখের পানি। রক্তের সর্ম্পক না হলেও অনেকটা তাদের পরিবারের সদস্যের মতো ভাবতেন তারা আমাকে। সকল কিছুই শেয়ার করতেন আমার সাথে। মাদকাসক্ত তিনি বেশির ভাগ সময়ে রাতে বেলায় বাড়ি ফিরতেন না, এদিকে তার মা আর স্ত্রী সন্তান থাকতো অস্থির। যখন বাড়ি ফিরতো না তখন মা আর স্ত্রী তাকে মাদক গ্রহণের স্পটে গিয়ে ধরে নিয়ে আসতেন, একাধিকবার আমাকেও তাদের সাথে যেতে হয়েছে। রাতের বেলায় যখন মাদক গ্রহণের বিভিন্ন স্পটে স্পটে তাকে খুঁজতে যেতেন তার মা আর স্ত্রী, কতজন কতভাবে মিন করেছে, কত নাজেহাল হয়েছে সে কঠিন সময়ের রাস্বী। সংসার মূখি এই ঘরের হতভাগা সুন্দরী বধু তিনিই একমাত্র বুঝেছেন তার মাদকাসক্ত স্বামীার জন্য কতটা ত্যাগ করতে হয়েছে তাকে। আবারোও বলছি একজন সুস্থ মানুষ মাদকের নেশায়, বৃদ্ধ মা, দু সন্তান, সাজানো সাংসার,সুন্দরী বধু কেউই তাকে আটকাতে পারেনি। কতটা অশান্তির দাবনালে জ্বলেছে ভুক্তভোগি পরিবারেই ভাল জানে। পরে তিনি কক্সবাজার নোঙ্গর থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছে। সেই সময়ের পর থেকে আমি কক্সবাজার জেলা শহরে বসবাস করায় আজ কেমন আছেন জানি না সেই সময়ের হতভাগা পরিবারটি। বর্তমানে মাদক আগ্রাসনে ছড়িয়ে গেছে পুরো দেশ। মাদকের কালো থাবায় ধ্বংসের দ্বাপ্রান্তে আমরা। কঠিন সময় পার করছি, মাদক দুনিয়ার বিরুদ্ধে আরো বেশি শক্তহাতে আমাদের একযোগে দাঁড়াতে হবে।

চলে যায় যুদ্ধে মাদকের বিরুদ্ধে এই শ্লোগানকে সামনে রেখে অভিযানে নেমেছে র‌্যাবসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিীনি। ফেইসবুক দুনিয়া(সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে) মাদকের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষের যে পজেটিভ সাড়া মেলেছে খুবই দারুণ। এত বুঝা যায়, এই দেশে থেকে মাদকের নির্মূল চায় জনগণ। তবে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে বিনিয়নের সাথে অনুরোধ থাকবে যারা মাদকের সাথে জড়িত এবং প্রকৃত অপরাধীদের তাদেরকে আইনের আওতায় এনে কঠিন শাস্তি প্রদান করুন। এখন সবচেয়ে ভয়ংকর মাদক হচ্ছে ইয়াবা। শারীরিকভাবে এর ক্ষতি মারাত্মক। বিশেষজ্ঞদের মতে, এটি কেউ দীর্ঘদিন ব্যবহার করলে তার মধ্যে মানবিক গুণাবলি বলে কিছু অবশিষ্ট থাকে না। খুন-খারাবিসহ এমন কোনো অপকর্ম নেই, যা তারা করতে পারে না। এই মাদক অভিযানে সকল শ্রেণীর মানুষের সহযোগিতা পেলে বেশি দিন লাগবে না মুখতুবুড়ে পড়বে আপনার পায়ে তাদের মাদক সা¤্রজ্য। প্রতিনিয়ত অভিভাবকরা আতঙ্কিত, উৎকণ্ঠিত কখন মাদকের নেশার জালে আটকা পড়তে পারে তাদের প্রিয় সন্তান। সর্বনাশা মাদক এখন দেশব্যাপী আরো ছড়িয়ে পড়েছে। সর্বগ্রাসী এ মরণ নেশার কারণে দেশের লাখ লাখ মানুষ বিশেষ করে তরুণ ও যুব সমাজ বিপথগামী হয়ে পড়ছে। তবে শুধু তরুণরা নয়, এখন কিশোর, এমনকি কিশোরীরাও মাদকাসক্ত হচ্ছে। সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে ছড়িয়ে পড়ে ধ্বংস করে দিচ্ছে আমাদের তরুণ ও যুব সমাজকে। মাদকের বিষাক্ত ছোবলে অকালে ঝরে পড়ছে তাজা প্রাণ। শূন্য হচ্ছে কত মায়ের বুক। গেল কদিন আগে চ্যানেল আইয়ের একটি টকশোতে এক বক্তা বললেন, গত বছর আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ইয়াবা আটক করেছে ৪ কোটি ৭৫ লাখ, আর চলতি বছরের কয়েক মাসে আড়াই কোটির বেশি ছাড়িয়ে গেছে। এত বুঝা যায় মাদক কতটা দ্রুত হারে আমাদের দেশে ঢুকে পড়ছে। কিন্তু সমাজ, দেশ ও জাতিকে সুস্থ রাখতে হলে সর্বনাশা এ কারবার জরুরিভিত্তিতে বন্ধ করা প্রয়োজন। যে যুদ্ধে নেমেছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী তা মাদকের সা¤্রাজ্য শেষ না হওয়া পর্যন্ত চালিয়ে যেতে হবে। তাই দেশের স্বার্থে, ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে রক্ষায় অবশ্যই অভিযান অব্যহত থাকুক এমনটি দাবী রাখছি।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

মহেশখালীতে আদিনাথ ও সোনাদিয়া পরিদর্শন করলেন মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার

পেকুয়া জীম সেন্টারের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন

২৩ সেপ্টেম্বর ওবাইদুল কাদেরের আগমন উপলক্ষে পেকুয়ায় প্রস্তুতি সভা সম্পন্ন

পেকুয়ায় ৬দিন ধরে খোঁজ নেই রিমা আকতারের

রে‌ডি‌য়েন্ট ফিস ওয়ার্ল্ডের মাধ্য‌মে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য নতুন প্রজ‌ন্মের কা‌ছে পৌঁছা‌বে -মোস্তফা জব্বার

অনূর্ধ ১৭ ফুটবলে সহোদরের ২ গোলে মহেশখালী চ্যাম্পিয়ন

টাস্কফোর্সের অভিযানঃ ৪৫০০ ইয়াবাসহ ব্যবসায়ী আটক

টেকনাফে ৭৫৫০টি ইয়াবাসহ দুইজন আটক

এলোমেলো রাজনীতির খোলামেলা আলোচনা

কক্সবাজারে হারিয়ে যাওয়া ব্যাগ ফিরে পেলেন পর্যটক

সুষ্ঠু নির্বাচনে জাতীয় ঐক্য

সঠিক কথা বলায় বিচারপতি সিনহাকে দেশত্যাগে বাধ্য করেছে সরকার : সুপ্রিম কোর্ট বার

সিনেমায় নাম লেখালেন কোহলি

যুক্তরাষ্ট্রের কথা শুনছে না মিয়ানমার

তানজানিয়ায় ফেরিডুবিতে নিহতের সংখ্যা শতাধিক

যশোরের বেনাপোল ঘিবা সীমান্তে পিস্তল,গুলি, ম্যাগাজিন ও গাঁজাসহ আটক-১

তরুণদের এগিয়ে নিয়ে যাওয়াটা অনেক বেশি জরুরি- কক্সবাজারে মোস্তফা জব্বার

চলন্ত অটোরিকশায় বিদ্যুতের তার, দগ্ধ হয়ে নিহত ৪

খরুলিয়ায় বখাটেকে পুলিশে দিলো জনতা, রাম দা উদ্ধার

টস হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ