প্রকাশিত সংবাদে পশ্চিম বাহারছড়ার কেরামত আলীর প্রতিবাদ

গত ২৯ মে কক্সবাজারের বহুল প্রচারিত অনলাইন পত্রিকা কক্সবাজার নিউজ ডট কম এ (সিবিএন) প্রকাশিত ‘কক্সবাজার শহরের ইয়াবা ব্যবসায়ীরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে‘ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। সংবাদে আমাকে ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িয়ে মানহানিকর তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও মানহানিকর। আমি উক্ত ভূঁয়া সংবাদের তীব্র নিন্দা ও জোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

প্রকাশিত সংবাদে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘এলাকার ফেন্সিডিল ব্যবসায়ি কালুর আটকের পর তার ব্যবসায় হাল ধরেছে তারই শালা কেরামত আলী। গত বছর কালুর বিরুদ্ধে বাহারছড়াবাসি তীব্র আন্দোলন করার পর পুলিশ কালুকে ফেন্সিডিল সহ আটক করে এবং তার আস্তানা গুড়িয়ে দেয়। মাস দেড়েক ব্যবসা বন্ধ থাকার পর তার শালা কেরামত পুনরায় বাংলা মদ ও ফেন্সিডিল বিক্রি শুরু করে। কবে তার বিবুদ্ধে ইয়াবা বিক্রির কোন অভিযোগ নেই বলে দাবি এলাকাবাসির। শুধুমাত্র বাহারছড়ায় রয়েছে ১৫/২০ জনের মাদক সিন্ডিকেট। তাদেও চলাচল এবং বেশ ভুষা হঠাৎ পরিবর্তনের কারনে স্বল্প সময়ের মধ্যে বড় দালানের কারনে স্থানীয়দের মনে সন্দেহ তীব্র আকার ধারন করছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। যা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ছাড়া কিছুই নয়। প্রকৃত পক্ষে আমি একজন দরিদ্র কৃষক। বাড়িতে কয়েকটি গরু রয়েছে তা লালন পালন করেই জীবিকা নির্বাহ করি।

অপরাধ মাদক ব্যবসায়ী কালু আমার ভগ্নিপতি হওয়াটাই আমার জীবনে কাল হয়ে দাড়িয়েছে। কালুকে একালাছাড়া করতে এলাকার মানুষের আন্দোলনে আমিও জোর সমর্থন জানাই। যার কারতে তার সিন্ডিকেটের সদস্যরা ক্ষিপ্ত হয়ে আমি এবং আমার পরিবারের বিরুদ্ধে উঠে পড়ে লেগেছে। আমি মাদক ব্যবসাতো দূরের কথা মাদক কখনও চোঁখেও দেখিনি। আমি এখনও আমার পৈত্রিক ভিটা বাড়িতেই থাকি। কারণ আমার নিজস্ব জায়গা জমি ক্রয় করার মতো কোন অর্থ নেই। শুধু কয়েকটা গরুই আমার সম্ভল। আমার পরিবারে এখনও নুন আনতে পান্তা ফুরিয়ে যায়, তারমধ্যে আমার নাকি ১৫/২০ জনের সিন্ডিকেট রয়েছে। পুরো একটা কাল্পনিক কাহিনী সাঁজানো হয়েছে আমার মতো একজন নিরীহ ব্যক্তির বিরুদ্ধে। আমি কি করি না করি প্রশাসন অবশ্যই তার বিষয়ে অবগত রয়েছে। তাই আমাকে ষড়যন্ত্রের হাত থেকে রক্ষা করতে প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করছি। আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করে আমি এবং আমার পরিবারের মানহানি করা হয়েছে। যা জাতির বিবেক সাংবাদিক ভাইদের কাছে আশা করিনি। আমি আবারও মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন সংবাদের জোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি স্থানীয় জনসাধারণ ও প্রশাসনকে মিথ্যা সংবাদে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী

মোহাম্মদ কেরামত আলী

পিতা- মৃত ফজলুল করিম, সাং- পশ্চিম বাহারছড়া, পৌরসভা কক্সবাজার।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার- ১৩

পেকুয়ায় পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু

পেকুয়ায় ইয়াবা সহ যুবক আটক

চকরিয়ায় সাজাপ্রাপ্তসহ ৪ আসামি গ্রেফতার

নাইক্ষ্যংছড়িতে পরিচ্ছনতা অভিযান

কক্সবাজারে কিন্ডার গার্ডেন এসোসিয়েশন’র বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান সম্পন্ন

দুর্নীতিবাজ, ঘুষখোর ও হত্যা চেষ্টাকারীরা সরকারের পতন ঘটাতে চায় : নিউইয়র্কে শেখ হাসিনা

মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম’র জরুরী সভা

রামুর গর্জনিয়ায় অপহরণ ১

টেকনাফ উপজেলা যুবদলের কমিটি গঠিত

সাপ্তাহিক মাতামুহুরী’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন

টেকনাফে র‌্যাবের পৃথক অভিযানে বিদেশী মদ বিয়ারসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক

টেকনাফে হত্যা ও মানব পাচার মামলার আসামী গ্রেফতার

চকরিয়ায় ছুরিকাঘাতে যুবক খুন

খালেকুজ্জামান বেঁচে আছেন জনতার মাঝে

মরহুম এড. খালেকুজ্জামান স্মরণে ৫ম দিনেও বিভিন্ন মসজিদে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

`রাঙামাটির রূপ দিনদিন হারিয়ে যেতে চলেছে’

বান্দরবানে শ্রেষ্ঠ উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা কালাম হোসেন

বর্তমান সরকারই পাহাড়ের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে : বীর বাহাদুর এমপি

কুতুবদিয়ায় শহীদ উদ্দিন ছোটনসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ফের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা