প্রকাশিত সংবাদে পশ্চিম বাহারছড়ার কেরামত আলীর প্রতিবাদ

গত ২৯ মে কক্সবাজারের বহুল প্রচারিত অনলাইন পত্রিকা কক্সবাজার নিউজ ডট কম এ (সিবিএন) প্রকাশিত ‘কক্সবাজার শহরের ইয়াবা ব্যবসায়ীরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে‘ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। সংবাদে আমাকে ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িয়ে মানহানিকর তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও মানহানিকর। আমি উক্ত ভূঁয়া সংবাদের তীব্র নিন্দা ও জোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

প্রকাশিত সংবাদে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘এলাকার ফেন্সিডিল ব্যবসায়ি কালুর আটকের পর তার ব্যবসায় হাল ধরেছে তারই শালা কেরামত আলী। গত বছর কালুর বিরুদ্ধে বাহারছড়াবাসি তীব্র আন্দোলন করার পর পুলিশ কালুকে ফেন্সিডিল সহ আটক করে এবং তার আস্তানা গুড়িয়ে দেয়। মাস দেড়েক ব্যবসা বন্ধ থাকার পর তার শালা কেরামত পুনরায় বাংলা মদ ও ফেন্সিডিল বিক্রি শুরু করে। কবে তার বিবুদ্ধে ইয়াবা বিক্রির কোন অভিযোগ নেই বলে দাবি এলাকাবাসির। শুধুমাত্র বাহারছড়ায় রয়েছে ১৫/২০ জনের মাদক সিন্ডিকেট। তাদেও চলাচল এবং বেশ ভুষা হঠাৎ পরিবর্তনের কারনে স্বল্প সময়ের মধ্যে বড় দালানের কারনে স্থানীয়দের মনে সন্দেহ তীব্র আকার ধারন করছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। যা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ছাড়া কিছুই নয়। প্রকৃত পক্ষে আমি একজন দরিদ্র কৃষক। বাড়িতে কয়েকটি গরু রয়েছে তা লালন পালন করেই জীবিকা নির্বাহ করি।

অপরাধ মাদক ব্যবসায়ী কালু আমার ভগ্নিপতি হওয়াটাই আমার জীবনে কাল হয়ে দাড়িয়েছে। কালুকে একালাছাড়া করতে এলাকার মানুষের আন্দোলনে আমিও জোর সমর্থন জানাই। যার কারতে তার সিন্ডিকেটের সদস্যরা ক্ষিপ্ত হয়ে আমি এবং আমার পরিবারের বিরুদ্ধে উঠে পড়ে লেগেছে। আমি মাদক ব্যবসাতো দূরের কথা মাদক কখনও চোঁখেও দেখিনি। আমি এখনও আমার পৈত্রিক ভিটা বাড়িতেই থাকি। কারণ আমার নিজস্ব জায়গা জমি ক্রয় করার মতো কোন অর্থ নেই। শুধু কয়েকটা গরুই আমার সম্ভল। আমার পরিবারে এখনও নুন আনতে পান্তা ফুরিয়ে যায়, তারমধ্যে আমার নাকি ১৫/২০ জনের সিন্ডিকেট রয়েছে। পুরো একটা কাল্পনিক কাহিনী সাঁজানো হয়েছে আমার মতো একজন নিরীহ ব্যক্তির বিরুদ্ধে। আমি কি করি না করি প্রশাসন অবশ্যই তার বিষয়ে অবগত রয়েছে। তাই আমাকে ষড়যন্ত্রের হাত থেকে রক্ষা করতে প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করছি। আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করে আমি এবং আমার পরিবারের মানহানি করা হয়েছে। যা জাতির বিবেক সাংবাদিক ভাইদের কাছে আশা করিনি। আমি আবারও মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন সংবাদের জোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি স্থানীয় জনসাধারণ ও প্রশাসনকে মিথ্যা সংবাদে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী

মোহাম্মদ কেরামত আলী

পিতা- মৃত ফজলুল করিম, সাং- পশ্চিম বাহারছড়া, পৌরসভা কক্সবাজার।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

জিএম রহিমুল্লাহর ইন্তেকালে নেজামে ইসলাম পার্টি ও ইসলামী ছাত্রসমাজের শোক

আদর্শ নেতৃত্ব সৃষ্টির জন্য সৎকর্মশীলদের সান্নিধ্য অপরিহার্য

শেষ মুহূর্তে তারুণ্যের শক্তি দেখাতে চান সফল উদ্যোক্তা আনিসুল হক চৌধুরী সোহাগ

রামুতে মাসব্যাপী পণ্য প্রদর্শনী মেলা উদ্বোধন

রামুতে জেএসসিতে এ-প্লাস ও বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা

’সুজন’ চকরিয়া উপজেলা কমিটি গঠিত

বদির স্ত্রীকে আ. লীগের প্রার্থী ঘোষণা

প্রেমে বাঁধা দেওয়ায় ছাত্রীর মাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে গৃহশিক্ষক

কক্সবাজারে অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার

জিএম রহিমুল্লাহর মৃতুতে জেলা বিএনপির শোক

জিএম রহিমুল্লাহ’র মৃত্যুতে কক্সবাজার পৌর পরিষদের শোক

বিশ্বের সর্বোচ্চ ১৫০ বছর বয়সের জীবিত মানুষ খুটাখালীর সিকান্দর!

আলোকচিত্রী শহিদুল আলম কারামুক্ত

৩০ নভেম্বর কক্সবাজারে অনুষ্ঠিত হবে ‘ওয়াকাথন ২০১৮’

কক্সবাজারের ৪টি আসনেই লড়বে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ

রাঙামাটিতে ৯৪দিন পর অপহৃত চাকমা তরুনী উদ্ধার : আটক-৩

জিএম রহিমুল্লাহর মৃত্যুতে জামায়াতের শোক

বিএনপি জামায়াতের ১০ নেতার আগাম জামিন লাভ

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদকের রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল

রাঙামাটির সাংবাদিক নাজিমের মায়ের ইন্তেকাল, সাংবাদিকদের শোক