মাতামুহুরী নদীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন

আবদুল মজিদ, চকরিয়া:

পরিবেশ আইন লঙ্ঘন করে চকরিয়ায় বেতুয়াবাজারস্থ মাতামুহুরী নদী থেকে ড্রেজার মিশিন বসিয়ে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করছে প্রভাবশালী মহল। কিন্তু সংশ্লিষ্ট প্রশাসন তা দেখেও না দেখার ভান ধরেছে। এনিয়ে স্থানীয়রা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

জানাগেছে, চকরিয়া উপজেলাসহ পৌরসভার বিভিন্ন পয়েন্টে অবৈধভাবে ড্রেজার মিশিন বসিয়ে বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করায় অনেকটা নিষ্ক্রিয় ভূমিকায় রয়েছে বালু উত্তোলনকারী অসাদু মহল। কিন্তু এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের বেতুয়াবাজার পয়েন্টে মাতামুহুরী নদীতে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করে চলেছে স্থানীয় ছুট্টো নামে এক ব্যক্তি। এছাড়াও চকরিয়ায় উপজেলার মাতামুহুরী নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে ফের শুরু হয়েছে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের প্রতিযোগিতা। নদী থেকে বালু উত্তোলন বন্ধে সরকারি নীতিমালা থাকলেও জড়িত বালু দস্যুরা তা অমান্য করে বহাল তবিয়তে চালাচ্ছে এ ব্যবসা। এসব বালু উত্তোলন মেশিন জব্দ করে কার্যক্রম বন্ধ রাখার জন্য প্রশাসনের কাছে হস্তক্ষেপ চেয়েছেন এলাকাবাসী।

এদিকে চকরিয়া উপজেলায় বালু উত্তোলনকারীরা জানিয়েছেন, প্রশাসনের কাছ থেকে বিপুল টাকা রাজস্ব দিয়ে তারা বালু মহাল ইজারা নিলেও মাতামুহুরী নদী থেকে এভাবে অবৈধ বালু উত্তোলন পূর্বক ব্যবসা চালু থাকার কারণে তারা আর্থিকভাবে ক্ষতির শিকার হচ্ছেন। এব্যাপারে প্রশাসন অভিযুক্ত অবৈধ বালু লুটেরাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা না নিলে ব্যবসা মন্দার কারণে ইজারাদাররা সরকারি বালু মহাল ইজারা নিতে অনীহা জানাবেন।

অপরদিকে পাউবো’র নির্মাণ কাজে জড়িত ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের লোকজন অভিযোগ করেছেন, প্রতিরক্ষা উন্নয়ন কাজের প্রকল্প এলাকা ঘেষে মাতামুহুরী নদী থেকে বছর ধরে এভাবে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের কারনে গেল বর্ষা মৌসুমে প্রকল্প এলাকায় নদী তীরে ব্যাপক ভাঙ্গনের শুরু হয়। এ অবস্থার কারনে ঠিকাদারী প্রতিষ্টান বিপুল টাকা খরচ করে অনেক চেষ্টা করেও নির্মাণ কাজটি চলতিবছর জুনমাসে সমাপ্ত করার কথা থাকলেও তা করতে পারেনি।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নুরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এক শ্রেণির প্রভাবশালী ব্যক্তি মাতামুহুরী নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করে আসছিল। সম্প্রতি অভিযান চালিয়ে তা অনেকটা বন্ধ করা হয়েছে। নতুন করে মেশিন বসিয়ে কেউ বালু উত্তোলন করে থাকলে তাদের বিরুদ্ধে খুব শীঘ্রই ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং ব্যবহৃত মিশিন জব্ধ করা হবে।

সর্বশেষ সংবাদ

অগ্নিকান্ডে মৃতের সংখ্যা ৬৮, হস্তান্তর ৩৪টি : তদন্ত কমিটি গঠন

একুশের প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের শ্রদ্ধা নিবেদন

সুন্দর হস্তলিপিতে প্রথম সাংবাদিকপুত্র উমামা

অগ্নিকাণ্ডে নিহতরা শহীদ : আল্লামা আহমদ শফী

বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে রামু আজিজুল উলুম মাদ্রাসায় মাতৃভাষা দিবস পালিত

রায় বাংলায় লিখতে বিচারকদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান

দৈনিক কক্সবাজার পত্রিকায় ‘জমি দেব ঘুষ দেব না’-শীর্ষক সংবাদের আংশিক প্রতিবাদ

একুশের প্রভাতে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের শ্রদ্ধাঞ্জলি

হুফফাজুল কুরআন সংস্থার উদ্যোগে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

অপহরণকারী গুজবে ৩ জার্মান সাংবাদিকের উপর রোহিঙ্গাদের হামলা

চকরিয়ায় হেলিকপ্টারে এসে মাদ্রাসা উদ্বোধন করলেন আল্লামা আহমদ শফি

বেনাপোল নোম্যান্সল্যান্ডে দু‘বাংলার হাজার হাজার ভাষাপ্রেমী মানুষের মিলন মেলা

শহীদ মিনারে ইইডি কক্সবাজার জোনের শ্রদ্ধা নিবেদন

মানবপাচারের মামলায় চৌফলদন্ডী ছাত্রলীগ নেতা জিকু গ্রেফতার

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে রামু লেখক ফোরামের আলোচনা সভা

শহীদ মিনারে জেলা পরিষদের শ্রদ্ধা নিবেদন

একুশ তুমি

চট্টগ্রাম শহীদ মিনারে কক্সবাজার সমিতির শ্রদ্ধা নিবেদন

শহীদ মিনারে আইনজীবী সমিতির শ্রদ্ধা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

শহীদ মিনারে জেলা পুলিশের শ্রদ্ধা নিবেদন