এক সপ্তাহে ৫ জনের প্রাণহানি

ফারুক আহমদ, উখিয়া।

রোড পারমিট ও ড্রাইভিং লাইন্সেস ছাড়াই দুই সহ¯্রাধিক মরণ ঘাতক ডাম্পার কিভাবে চলছে এমন প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে সচেতন মহলের। প্রতিদিন উখিয়ায় অহরহ সড়ক দুর্ঘটনায় রাজনৈতিক নেতা থেকে শুরু করে স্কুল ছাত্রী ও নিরহ পথচারী ডাম্পারের চাপায় পড়ে প্রাণ হারালেও প্রশাসন রয়েছে সম্পূর্ণ নিরব। ডাম্পারের বেপরোয়া গতিতে গত ১ সপ্তাহে পৃথক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় ৫ জন নিহত হয়েছে। বিক্ষুব্ধ জনগণ অবৈধ ডাম্পার চলাচল বন্ধে মানববন্ধন সহ নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে বলে জানা গেছে।

সরজমিন পরিদর্শনে দেখা যায়, উখিয়ায় হঠাৎ করে দুই সহ¯্রাধিকের অধিক ডাম্পার সড়কে যাতায়াত করছে। পাহাড় কেটে মাটি, অবৈধ বালি উত্তোলণ, পাথর ও ইট বোঝায় এবং বাঁশ সহ বিভিন্ন ধরনের পণ্য বহন করছে এসব পরিবহন। শত শত ডাম্পারের বেপরোয়া যাতায়াত ও মারমুখী বহর নিয়ে সাধারণ যাত্রীদের মনে সবসময় আতংক বিরাজ করছে।

খোঁজখবর নিয়ে জানা যায়, উখিয়া সদর, কোটবাজার, মরিচ্যা, সোনারপাড়া, থাইংখালী, বালুখালী, পালংখালী, কুতুপালং, ভালুকিয়া, জালিয়াপালং, ইনানী, সোনাইছড়ি, মনখালী, ছোয়াংখালীতে অসংখ্য ডাম্পার রয়েছে। তৎমধ্যে সিংহভাগ ডাম্পারের রোড পারমিট বা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নেই। এমন কি ড্রাইভারদের কোন প্রকারের লাইন্সেস নেই। অদক্ষ এবং অপ্রাপ্ত বয়স্ক ড্রাইভারেরা ডাম্পারগুলোর ড্রাইভিং করছে।

চৌধুরী পাড়া গ্রামের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী মোজাহের মিয়া সওদাগর সাংবাদিকদের জানান, অদক্ষ ড্রাইভার দিয়ে বেপরোয়া ভাবে ডাম্পার গাড়ি চালানোর কারণে উখিয়ায় প্রতিদিন সড়ক দুর্ঘটনা হচ্ছে। উক্ত সড়ক দুর্ঘটনায় বর্ষীয়ান রাজনৈতিক নেতা থেকে শুরু করে প্রতিভাবান শিক্ষার্থী ও নিরহ পথচারী নিহত হচ্ছে।

স্থানীয় জনসাধারণের অভিযোগ রোডপারমিট ও ড্রাইভিং লাইন্সেস ছাড়াই সড়কে বেপরোয়া ভাবে শত শত ডাম্পার চললেও উপজেলা প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনী দেখেও না দেখার ভান করছে। তারা আরও বলেন, পুলিশকে সাপ্তাহিক ও মাসিক মোটা অংকের মাসোহারা দিয়ে প্রকাশ্যে ডাম্পারগুলো বেপরোয়া ভাবে চলাচল করে আসছে। এদিকে এসব ডাম্পার দিয়ে সরকারী পাহাড় কর্তন করে মাটি ভর্তি করে বিভিন্ন জায়গায় সরবরাহ করছে সংঘবদ্ধ সিন্ডিকেট। এছাড়াও নদী থেকে অবৈধ ভাবে বালি উত্তোলণ করে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে যাচ্ছে এসব ডাম্পার।

উখিয়া মটর চালক সমবায় সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ শাহাজাহান বলেন, উখিয়া-টেকনাফ সড়কে ২ হাজারের অধিক ডাম্পার চলাচল করলেও অধিকাংশ যানবাহনের রোড পারমিট নেই। নেই কোন ড্রাইভিং লাইন্সেস। চালকরা যেমনি অদক্ষ তেমনি অপ্রাপ্ত বয়স্ক।

সুশীল সমাজের মতে সড়ক দূর্ঘটনায় প্রাণহানি কমাতে অবিলম্বে রোডপারমিট বিহীন ডাম্পারের বিরুদ্ধে সাড়াশি অভিযান পরিচালনা জরুরী হয়ে পড়েছে। সংশ্লিষ্ট প্রশাসন বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে নজর দেওয়ার জন্য এমন দাবী করেন সর্বস্তরের জনগণ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •