আতঙ্ক আর উৎকণ্ঠায় পাহাড়

ডেস্ক নিউজ:
২৪ ঘণ্টা পেরুতে না পেরুতে পাহাড়ের দুই আঞ্চলিক দলের শীর্ষস্থানীয় দুই নেতাসহ ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের এই মৃত্যু ঘিরে নানান মহলে চলছে বিভিন্ন আলোচনা-সমালোচনা। জেএসএস (এমএনলারমা) কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমা এবং ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) আহ্বায়ক তপন জ্যোতি চাকমা ওরফে বর্মাকে হত্যা করা হয়েছে রাঙ্গামাটি জেলার নানিয়ারচর উপজেলায়। শীর্ষস্থানীয় এই দুই নেতার মৃত্যু ঘিরে জেলাজুড়ে সাধারণ মানুষের মনে আতঙ্ক বিরাজ করছে। যেকোন মুহূর্তে আরও ভয়াবহ কিছু হতে পারে এমন আতঙ্ক এখন মানুষের মনে।

অন্যদিকে একের পর এক এমন হত্যাকাণ্ডে উৎকণ্ঠা প্রকাশ করছেন সুশিল সমাজের নেতরা। রাঙ্গামাটি সুশিল সমাজের অন্যতম প্রতিনিধি জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক সদস্য নিরুপা দেওয়ান বলেন, পাহাড়ের এসব ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত। আমরা পার্বত্য এলাকার মানুষ শান্তিকামী। তাই প্রায় দীর্ঘ দুই যুগের অধিক সময় ধরে পার্বত্যাঞ্চলে চলা অরাজগতাকে দূর করে ১৯৯৭ সালে পাহাড়ে শান্তি চুক্তি করেছিলাম। শান্তি চুক্তির মধ্য দিয়ে আমরা আশা করেছিলাম পাহাড়ে শান্তি ফিরে আসবে। কিন্তু পাহাড়ে আবারও এমন অরাজগতা আমাদের ভাবিয়ে তুলছে। আমার মনে হয় শান্তি চুক্তি বাস্তবায়নের দীর্ঘ সময়ের জন্যে এমন অস্থিতিশীল পরিস্তিতি তৈরি হচ্ছে।

অন্যদিকে আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে একটি পক্ষ পাহাড়কে অস্থিতিশীল করে তুলতে চাচ্ছে এমন মন্তব্য করে বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সভাপতি প্রকৃত রঞ্জন চাকমা বলেন, ‘সামনে জাতীয় নির্বাচন। আর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এমন অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরির চেষ্টা চলতে পারে বলে আমি মনে করি। কারণ এমন কর্মকাণ্ড নির্বাচনে প্রভাব ফেলতে পারে।’

তিনি আরো বলেন, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে কোন পথ অবলম্বন করলে এমন পরিস্থিতি সামলানো যাবে। যদি এখনই এই সমস্যার সমাধান করা না হয় তাহলে সামনে পার্বত্য এলাকার মানুষের জীবনে এটা বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়াবে।

এদিকে রাঙ্গামাটিতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী জোরদার করা হয়েছে মন্তব্য করে পুলিশ সুপার মো.আলমগীর কবীর বলেন, জেলাজুড়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার জন্যে পুলিশ তৎপর রয়েছে। সর্তকতার সঙ্গে পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে।

তবে উৎকণ্ঠা কিংবা ভয়ের কারণ নেই মন্তব্য করে জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ জানান, রাঙ্গামাটি পরিস্থিতি বর্তমানে স্বাভাবিক রয়েছে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী নিরাপত্তার বিষয়ে সর্তক নজর রাখছে।

সর্বশেষ সংবাদ

কাবুলে বিয়ের অনুষ্ঠানে আত্মঘাতী হামলা, নিহত ৬৩

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে পরিষ্কার করে কিছু বলছে না সরকার

ছাত্রলীগ নেতা রায়হানের জামিন লাভ

লোহাগাড়ায় কার-মাহিন্দ্রা সংঘর্ষে নিহত ১: আহত ১৫

কোরবানির মাংস পেয়ে খুশিতে রোহিঙ্গা শিশুদের উচ্ছ্বাস!

চকরিয়ায় চিংড়ি জোনের শীর্ষ সন্ত্রাসী আল কুমাস গ্রেপ্তার

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন অনিশ্চিত : ট্রাস্কফোর্সের সভায় কোন সিদ্ধান্ত হয়নি

কোনোরকম যুদ্ধ ছাড়াই ভারতের ১১ যুদ্ধ বিমান বিধ্বস্ত!

লোহাগাড়ায় মেট্রেসের গোডাউনে আগুন

সিএমপি স্কুল এন্ড কলেজ : ‘মেধার সাথে ভালো মানুষ গড়ার পরিচর্চা করে’

ভারতে চিকিৎসা করাতে গিয়ে কলকাতা থেকে লাশ হয়ে ফিরল দুই বাংলাদেশী

মেসেঞ্জারের কথোপকথন শুনতো ফেসবুক কর্মীরা

কক্সবাজারে ডেঙ্গু রোগের প্রকোপ একটু কমেছে : জেলায় ১৫৮ জন রোগী সনাক্ত

কাবুলে বিয়ে বাড়িতে বোমা হামলায় নিহত ৬৩

কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে চ্যালেঞ্জ সাবেক সেনা কর্মকর্তার

‘ডেঙ্গু মোকাবিলায় আগামী সপ্তাহটা চ্যালেঞ্জিং’

বৃহস্পতিবার থেকে বন্ধ হচ্ছে ফেসবুক গ্রুপ চ্যাট

কাশ্মীর নিয়ে মোদির চতুর্মুখী নীলনকশা

খালেদার মুক্তিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে যাবে বিএনপি

কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন: পদ প্রত্যাশীদের দৌড়ঝাঁপ