cbn  

মো: ফারুক , পেকুয়া :

পেকুয়ায় উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি কফিল উদ্দিন বাহাদুরের পিতা মাষ্টার মোহাম্মদ ইউসুফ ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নালিল্লাহি…..রাজেউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭০ বছর। ৪ মে ভোর ৪ টার দিকে বারবাকিয়া বাজারে তার ব্যবসা প্রতিষ্টানে পৃথিবীর শেষ নি:শ^াস ত্যাগ করে। শুক্রবার বেলা ১১ টার দিকে বারবাকিয়া ইউনিয়নের জালিয়াকাটা জামে মসজিদ সংলগ্ন মাঠে তার নামাজে জানাজা অনুষ্টিত হয়। পরে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হয়। মাষ্টার মোহাম্মদ ইউসুফ একজন শিক্ষক। পাশাপাশি একজন ব্যবসায়ী। আজীবন মানুষ তাকে অত্যন্ত শ্রদ্ধা করতেন। বারবাকিয়া বাজারে তিনি ফার্মেসী ব্যবসা করতেন। অত্যন্ত জনপ্রিয় ও সর্বজন প্রশংসনীয় শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি ছিলেন মাষ্টার ইউসুফ। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সংগঠন আওয়ামীলীগের একনিষ্ট সংগঠক ছিলেন। মুজিবাদর্শকে ধারন করতেন। তিনি রাজনীতির করতে গিয়ে অবিভক্ত বারবাকিয়া ইউনিয়ন অঅওয়ামীলীগের সভাপতি ছিলেন। তার ছেলে কফিল উদ্দিন বাহাদুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি। তার অপর ছেলে হেলাল উদ্দিন বারবাকিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক। বারবাকিয়া ইউনিয়নের জালিয়াকাটার নিবাসি মাষ্টার মোহাম্মদ ইউসুফ। তিনি ৩ ছেলে ও ২ মেয়ে স্ত্রীসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে যান। ওই দিন জানাজায় বিপুল পরিমান লোকজন অংশ নেয়। প্রিয় এ মানুষটিকে দেখতে ও শ্রদ্ধা জানাতে মানুষের বাঁধভাঙ্গা উপস্থিতি তার জানাজায়। আ’লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠন, বিএনপি,জামায়াতসহ সব রাজনৈতিক দলের অনুসারী। বিভিন্ন ব্যবসায়ীসহ সকল স্তরের মানুষ তার জানাজায় অংশ নেয়। এ দিকে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কফিল উদ্দিনের পিতা মাষ্টার মোহাম্মদ ইউসুফের মৃত্যুতে সর্বস্তরের মানুষ ও রাজনৈতিক পরিমন্ডল ব্যবসায়ী সংগঠন থেকে শোক জানানো হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •