আলিঙ্গন এর অপরাধে কলকাতা মেট্রোতে যুগলকে গণধোলাই!

অনলাইন ডেস্ক : শুধুমাত্র আলিঙ্গনের মতো গুরুতর ‘পাপ’ করায় তরুণী-তরুণীকে গণধোলাইর শিকার হতে হয়েছে। মার খেতে হয়েছে ‘নীতি পুলিশ’দের হাতে। সোমবার রাতে কলকাতা মেট্রোতে ঘটেছে এই ঘটনা।

দমদমগামী মেট্রো ট্রেনে আসছিলেন দুই তরুণ-তরুণী। ভিড়ের ট্রেনে ঝাঁকি থেকে রক্ষা পেতে পরস্পরকে জড়িয়ে ধরে দাঁড়িয়েছিলেন। আর এই দৃশ্য সহ্য হয়নি সহযাত্রীদের। ট্রেনের মধ্যেই শুরু হয়ে যায় নানারকমের কটাক্ষ। প্রতিবাদ করেছিলেন ওই তরুণ। তাতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন সহযাত্রীরা।

একজন প্রত্যক্ষদর্শী প্রতিবেদককে জানান, ‘দমদমে মেট্রোর দরজা খুলতেই ওই যুগলকে হিড় হিড় করে টেনে প্ল্যাটফর্মে নামালেন অতি উৎসাহী জনতা। তারপর শুরু হলো গণধোলাই। প্ল্যাটফর্মের দেয়ালে ঠেসে ধরে শুরু হলো বেদম মার। সঙ্গী তরুণকে বাঁচাতে তখন অসহায়, উদভ্রান্ত তরুণী বাধা দিতে চেষ্টা করেন। কিল, চড়, ঘুষি, লাথির মাঝে ঢুকে পড়ে সামনে থেকে জাপটে ধরলেন তরুণকে, আড়াল করার চেষ্টা করলেন। কিন্তু তাতেও থামল না অতি উৎসাহী জনতার ভিড়। তরুণীর পিঠের ওপরেই পড়তে থাকল কিল আর চড়। সেই ফাঁকফোকর দিয়ে মার চলল তরুণের ওপরেও। আমি নিজে মার খেয়েও ঠেকানোর চেষ্টা করেছিলাম। পারিনি।’

তিনি আরো জানান, ‘যারা এই গণধোলাইতে অংশ নিয়েছিলেন, তাদের প্রায় প্রত্যেকেই কিন্তু মধ্যবয়সী বা প্রৌঢ় বা প্রবীণ। অনেক বেশি সংযত, পরিশীলিত আচরণ প্রত্যাশিত যাদের থেকে, তাদের আচরণই সবচেয়ে উশৃঙ্খল হয়ে উঠেছিল। ওই সময় ত্রাতা হিসেবে এগিয়ে এলেন কয়েকজন তরুণ এবং নারী। মেট্রোরই অন্য কামরায় ছিলেন ওরা। উত্তপ্ত ভিড়টার মাঝে ঢুকে পড়ে কোনও রকমে আটকে দিলেন মারধর। তারপর ভিড়ের মাঝখান থেকে উদ্ধার করে সিঁড়ির নিচের দিকে কিছুটা এগিয়ে দিলেন তরুণ-তরুণীকে।’

সামান্য আলিঙ্গনের জেরে এভাবে মেজাজ হারানোয় স্বভাবতই প্রশ্ন উঠছে নাগরকি সমাজ অসহায়তা নিয়ে।

এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে সংগীত শিল্পী নচিকেতা বলেন, ‘আমি অনেক দিন আগেই গান লিখেছিলাম, প্রকাশ্যে চুমু খাওয়া এই দেশে অপরাধ, ঘুষ খাওয়া কখনই নয়। এই যে লোকগুলো এই জঘন্য কাজটা করল, তারা নিজেদের কর্মজীবনে কোনও অপরাধ করেনি? তারা কখনও ঘুষ খায়নি? কোনও অন্যায় সুবিধা নেয়নি? পুলিশের উচিত, এই লোকগুলোকে খুঁজে বের করে জেলে ঢোকানো। এদের শাস্তি হওয়া দরকার।’

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

হোয়াইক্যং হাইওয়ে পুলিশের অভিযানে ৫হাজার ইয়াবা সহ আটক-২

এলাকার উন্নয়নই আমার স্বপ্ন -কাউন্সিলর সাহাব উদ্দিন সিকদার

শহীদ জাফর মাল্টিডিসিপ্লিনারী একাডেমিক ভবনের উদ্বোধন

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি কর্মীদের ন্যায় বিচার কোথায়?

আইনগত ভিত্তি পেলেই ইভিএম ব্যবহার : সিইসি

খাগড়াছড়িতে ব্রিজ ভেঙে ট্রাক নদীতে, নিখোঁজ ১

সাগরে বৈরি আবহাওয়ার কবলে পড়ে ফিশিং ট্রলার ডুবি

‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মুক্তগণমাধ্যমের জন্য বড় বাধা হয়ে দাঁড়াবে’

ফাইভ-জি মোবাইল নেটওয়ার্কে বিকিরণের ঝুঁকি বেশি?

রাখাইনে এখনো থামেনি সেনা ও মগের বর্বরতা

জাতীয় ঐক্য নিয়ে অস্বস্তিতে আ’লীগ

প্রধানমন্ত্রীর জাতিসঙ্ঘ সফরে প্রাধান্য পাচ্ছে রোহিঙ্গা ইস্যু

সাকা চৌধুরীর কবরের ‘শহীদ’ লেখা নামফলক অপসারণ করলো ছাত্রলীগ

তিন মাসের জন্য প্রত্যাহার আনোয়ার চৌধুরী

মনোনয়ন দৌড়ে শতাধিক ব্যবসায়ী

ফখরুল-মোশাররফ-মওদুদ যাচ্ছেন ঐক্য প্রক্রিয়ার সমাবেশে

এবার ভারতের কাছেও শোচনীয় হার বাংলাদেশের

রোহিঙ্গা শিশুদের শিক্ষায় ২০০ কোটি টাকা অনুদান বিশ্বব্যাংকের

বিরোধীরা সব জায়গায় সমাবেশ করতে পারবে

চাকরি না পেয়ে সুইসাইড নোট লিখে খুবি ছাত্রের আত্মহত্যা