জহির খন্দকার, ঈদগড় :

রামু উপজেলাের ঈদগড়ে অালোচিত মেজবাহ হত্যাকান্ডের ১৬ দিন পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন করা হয়েছে।
আজ ২৬ এপ্রিল বিকাল সাড়ে ৫ টায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রামু উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) চাই থোয়াইহলা চৌধুরীর উপস্থিতিতে রামু থানা পুলিশ ঈদগড় বদরমোকাম কবরস্থান থেকে নিহত হাসান মেজবাহ লাশ উত্তোলন করেন।
গত ১০ এপ্রিল ঈদগড় টুঠারবিল গ্রামের হাবিবুর রহমানের শিশু পুত্র হাসান মেজবাহ(৮)কে একই এলাকার দুদু মিয়ার বখাটে পুত্র নুরুজ্জামান (৩৩) পাখীর ছানা ধরে দেবার লোভ দেখিয়ে পাহাড়ে নিয়ে বলাৎকারের চেস্টা চালায়। বিষয়টি ফাঁস করে দেবার হুমকি দিলে নুরুজ্জামান শিশু মেজবাহকে গলাটিপে হত্যা করে নিজেই এলাকায় লাশ নিয়ে পানিতে পড়ে মেজবার মৃত্যু হয়েছে বলে দাবী করে তার আত্মীয়স্বজন নিয়ে তড়িগড়ি করে লাশ দাফন করে। বিষয়টি এলাকাবাসীর সন্দেহ হওয়ায় পুলিশকে জানালে পুলিশের সহযোগিতায় গত ১৩ এপ্রিল নুরুজ্জামানকে আটক করে থানা হাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার করে সে। নুরুজ্জামানের বিরুদ্ধে  ৩০২ ধারায় রামু থানায় হত্যা মামলা রুজু করা হয়।
আদালতের নির্দেশে আজ শিশু মেজবাহ এর লাশ উত্তোলন করা হয়।
এলাকাবাসী হত্যাকারী নুরুজ্জামানের ফাঁসি দাবী করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •