সেন্টমার্টিনে ইয়াবা উদ্ধার নিয়ে কথা-

এম কেফায়েত উল্লাহ খান :

২০১৮ ইং সালটা সেন্টমার্টিন দ্বীপ তথা দ্বীপবাসীর জন্য এক অভিশপ্ত সাল। এই দ্বীপ তথা দ্বীপবাসীর রয়েছে ঐতিহ্যগত বহুল প্রচারিত সুনাম ও দ্বীপের পবিত্রতা রক্ষক।

চলমান প্রেক্ষাপট একটা বিষয় নিজের বিবেককে বারবার নাড়া দিয়েই যাচ্ছে।

ফ্যাক্টঃ সেন্টমার্টিন দ্বীপে ইয়াবা উদ্ধার!

বড়ই অদ্ভুত বিষয়! মাঝ সাগরে গ্রেপ্তারবিহীন লক্ষ লক্ষ ইয়াবা উদ্ধার হয়, আর উদ্ধার করে টেকনাফ থেকে বিশেষ বাহিনী গিয়ে। এদিকে ইলেক্ট্রনিক, প্রিন্টিং, অনলাইন ইত্যাদি বিভিন্ন গণমাধ্যমে শিরোনাম হয় “সেন্টমার্টিনে (এত লক্ষ) ইয়াবা উদ্ধার”

আমার মতে এমন শিরোনাম দ্বীপবাসীর ঐতিহ্যগত সুনামকে ক্ষুণ্ণ করে। কেননা, আমিই দ্বীপবাসী হিসেবে বলা নয়, এই দ্বীপটি বাংলাদেশের একমাত্র ১০০% মুসলিমের এলাকা বা দ্বীপ।বসবাসকারী সবাই একে অপরের আত্মীয়তা।সকলেই আল্লাহ ভিতু ও ধর্ম প্রিয় মুসলিম। তাদের জীবিকা মৎস আহরণ ও পর্যটন ব্যবসার উপর নির্ভরশীল। যেখানে নেই কোন হানাহানি, রাহাজানি, খুনাখুনি, চোর, চিন্তাকারী, ডাকাতি ইত্যাদি।বলতে গেলে পুরো পৃথিবীর একমাত্র নিশ্চিন্ত চলাচলের স্বাধীন এলাকা।

এই দ্বীপে নেই কোন অট্টালিকা বড়লোক। সকলেই নিম্ন মধ্যভিত্তে ও নিম্নে ভিত্তে বাস করে।নেই কোন স্থানীয় মাদকদ্রব্যের বড় সিন্ডিকেট কিংবা ইয়াবার টপ গডফাদার। যেখানে নেই কোন সামর্থ্য বড় বড় ইয়াবার চালান আমদানি করার। তবে প্রশাসনিকভাবে তালিকাভুক্ত মুষ্টিমেয় স্থানীয় কয়েকজন কুচক্রী সদস্য ব্যতীত। তাও তারা টপ গডফাদারদের কন্টাক্টচুয়েল/সহযোগী হিসেবে অবৈতনিক কাজ চালিয়ে যায়।

কিছু সময় আগেও সেন্টমার্টিনের পরিচয় দিতেও বড়ই গর্ববোধ হত। কেননা, সেন্টমার্টিন পরিচয়ে ছিল ঐতিহ্যগত সুনাম, সেই সাথে সম্মান।

২০১৮ ইং সালে বিভিন্ন ব্যক্তিবিশেষ, প্রশাসন, জায়গা কিংবা যাতায়াতে সেন্টমার্টিন পরিচয় পেলেও তারা সেই লক্ষ লক্ষ ইয়াবা উদ্ধারের বাণী শুনিয়ে দেয়। তখন নির্লজ্জতা ও নীরবচারী হওয়া ছাড়া আর কোন পন্থা থাকেনা।

সকল গণমাধ্যমের সম্পাদক ও সাংবাদিক বন্ধুগণদের প্রতি শ্রদ্ধাবান অনুরোধ, আপনারা দেশের একমাত্র মুসলিম ও প্রবাল দ্বীপের ঐতিহ্যগত সুনাম অক্ষুণ্ণ রাখতে সংবাদ কভার, এডিটিং, প্রকাশনা বস্তুনিষ্ঠার সাথে করলে আমরা সেন্টমার্টিন বাসী আপনাদের কাছে মহান কৃতজ্ঞ থাকিব।

বিশেষ করে “শিরোনাম” সেন্টমার্টিনে ইয়াবা উদ্ধার না লিখে “সেন্টমার্টিনের দূরবর্তী/নিকটবর্তী সাগর থেকে উদ্ধার” লিখতে পারেন। শুধু পরামর্শক্রমে বলা। ভুল হলে ক্ষমাপ্রার্থনা।

আর সকল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীদের প্রতি আমার অন্তর্জলের অনুরোধ, আপনারা সাংবাদিকগণদের কাছে আটক/উদ্ধারের নির্দিষ্ট জায়গা উল্লেখ করে সুষ্ঠু ও সঠিক তথ্য জানান। আমাদের দ্বীপের ঐতিহ্যগত সুনাম ও পবিত্রতা রক্ষার্থে আপনাদের কাছে তালিকাভুক্ত হতে দ্বীপের সঠিক অপরাধীদের চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করুন।

এম কেফায়েত উল্লাহ খান
(বিবিএ, এমবিএ, এলএলবি)

সম্পাদক ও প্রকাশক
সেন্টমার্টিন বিডি নিউজ

সভাপতি
বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন, সেন্টমার্টিন শাখা

শিক্ষানবিশ আইনজীবী
ঢাকা জজকোর্ট।।

সর্বশেষ সংবাদ

ভারুয়াখালীতে স্কুলছাত্রকে অপহরণের চেষ্টা  ‘ভাই গ্রুপের’

আজ আন্তর্জা‌তিক মাতৃভাষা দিবস

মুজিবুর রহমান ও এমপি জাফরের দোয়া নিলেন ফজলুল করিম সাঈদী

মাতৃভাষার প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছে রাখাইনদের নতুন প্রজন্ম

শুদ্ধ সংস্কৃতির চর্চার মধ্য দিয়ে অপশক্তিকে রুখতে হবে- মেয়র মুজিব

একুশে ফেব্রুয়ারি : প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা

টেকনাফে সাড়ে ১৫ লক্ষ টাকার স্বর্ণালংকার উদ্ধার

চকরিয়ায় শিশু ও নারী নির্যাতন মামলার ৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার

২০ হাজার ইয়াবাসহ দুইজন আটক

এডভোকেট রানা দাশগুপ্তের সাথে কক্সবাজার জেলা নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়

ইসলামে মাতৃভাষার গুরুত্ব ও তাৎপর্য

ঈদগাঁওতে পুজা কমিটির সম্মেলন নিয়ে সংঘাতের আশংকা

কক্সবাজার সিটি কলেজে শিক্ষকদের জন্য আইসিটি প্রশিক্ষণ শুরু

উখিয়ায় হাতির আক্রমণে রোহিঙ্গা যুবকের মৃত্যু

এস আলম গ্রুপের ৩ হাজার ১৭০ কোটি টাকার কর মওকুফ

মালয়েশিয়ায় ভবনে আগুন : বাংলাদেশিসহ নিহত ৬

মহেশখালীতে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে মোস্তফা আনোয়ার

চকরিয়ায় ইয়াবাসহ দুই ব্যবসায়ী আটক

চকরিয়ার চেয়ারম্যান পদে ২ জনসহ ৫ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল

কোর্টরুমে সাংবাদিকদের প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করতে হবে : প্রধান বিচারপতি