কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল: কমবে মামলা জট, বাড়বে সেবা

ইমাম খাইর, সিবিএন
কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বিচারক সংকটে দীর্ঘদিন ধরে ভোগান্তিতে ছিল বিচারপ্রাপ্তিরা। হাজিরা ফাইলেই সীমাবদ্ধ ছিল বছরের পর বছর। বিচারক সংকটের কারণে ১৫ বছর ধরে নিষ্পত্তি হচ্ছেনা এমন মামলাও রয়েছে নারী কোর্টে।
নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার জট কমিয়ে বিচারপ্রার্থীদের ভোগান্তি লাঘবে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল ভেঙ্গে এলাকা ভিত্তিক ৮ উপজেলা মিলিয়ে তিনটি পৃথক ট্রাইব্যুনাল গঠন করা হয়েছে। প্রতি দেড় হাজার মামলার সংখ্যা অনুপাতে সম্প্রতি আইন মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে এই নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
কক্সবাজার সদর ও চকরিয়া উপজেলার ট্রাইব্যুনাল-১, রামু, মহেশখালী ও কুতুবদিয়া উপজেলার ট্রাইব্যুনাল-২ এবং টেকনাফ, উখিয়া ও পেকুয়া উপজেলার জন্য ট্রাইব্যুনাল-৩। ইতিমধ্যে ৩ ট্রাইব্যুনালে তিনজন বিচারকও নিয়োগ দেওয়া হয়। আইন মন্ত্রণালয় ও ট্রাইব্যুনাল সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বর্তমানে অতিরিক্ত দায়িত্বে আছেন অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ওসমান গণি।
নবগঠিত ৩ ট্রাইব্যুনালে দায়িত্বপ্রাপ্ত বিচারকদের মধ্যে ট্রাইব্যুনাল-১ (কক্সবাজার সদর ও চকরিয়া) বরগুণার চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এমএইচএম মাহমুদুর রহমান, ট্রাইব্যুনাল-২ (রামু, মহেশখালী ও কুতুবদিয়া) নোয়াখালীর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ জেবুন্নাহার আয়েশা আগামী ৬ মে কর্মস্থলে যোগদানের কথা রয়েছে।
ইতিমধ্যে ট্রাইব্যুনাল-৩ (উখিয়া, টেকনাফ ও পেকুয়ার) এর বিচারক নোয়াখালীর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্টেট মো: নুর ইসলাম কর্মস্থলে যোগদান করেছেন বলে সংশ্লিষ্ট সুত্র নিশ্চিত করেছে।
নবগঠিত ৩ ট্রাইব্যুনাল নির্ধারিত উপজেলার এলাকা ভিত্তিক নারী ও শিশু নির্যাতন দমন এবং মানবপাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনের মামলা দায়ের ও বিচার হবে।
বর্তমান ভবনে ট্রাইব্যুনাল-১ এর কাজ চলবে। কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের তৃতীয় তলায় নবনির্মিত সম্প্রসারিত ভবনে ট্রাইব্যুনাল-২ ও ৩ এর কার্যক্রম চলবে। ২২ এপ্রিল সকালে ভবনের উদ্বোধনকালে জেলা ও দায়রা জজ মীর শফিকুল আলম এ ঘোষণা দেন।
সুত্র জানায়, কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বিচারাধীন মামলা রয়েছে ৮২৫৯টি। ৩৯৬টি মানবপাচার মামলা বিচারক সংকটের কারণে অগ্রগতি নেই। ৪৭/৯৬, ২২২/০৫সহ অনেক মামলা বিচারকশুণ্যতায় পড়ে আছে। ২০১৭ সালে ২৩০৭টি মামলা দায়ের হয়। নিস্পত্তি হয়েছে ১৪১৭টি। অধিকাংশ মামলার কোন অগ্রগতি নেই।
দেরিতে হলেও সরকার ট্রাইব্যুনাল গঠনের যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছে, তাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন আইনাঙ্গনে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। খুব শিগগির ট্রাইব্যুনালগুলো অনুমোদন পেয়ে প্রয়োজনীয় সংখ্যক বিচারক নিয়ে কাজ শুরু করবে বলে সবার প্রত্যাশা।
তবে, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি, কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মো. নূরুল ইসলাম এই সিদ্ধান্তকে ইতিবাচক হিসেবে নেননি।
জানতে চাইলে তিনি সিবিএনকে জানান, ট্রাইব্যুনাল গঠনে আইনজীবী সমিতি বা সংশ্লিষ্ট কারো মতামত নেয়া হয়নি। ১টি কোর্ট ভেঙে ৩টি করা দরকার ছিলনা। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন-২০০৩ এর প্রয়োজনীয় সংশোধন সমাপ্ত না করে এমন সিদ্ধান্তকে অযৌক্তিক মনে করেন তিনি।
মো. নূরুল ইসলাম জানান, অধিক মামলার ভারে অচল অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের প্রয়োজন ছিল। তা করে যেটা প্রয়োজন নেই সেটা বিভাজন করে আদালতের মানমর্যাদা রক্ষা হবে কিনা-তা নিয়ে তিনি সন্দিহান।
জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি প্রবীন আইনজীবী আবুল কালাম সিদ্দিকী সিবিএনকে জানান, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল তিন ভাগ করার চেয়ে বেশী প্রয়োজন ছিল পরিবেশ আদালত ও বিদ্যুৎ আদালত। এই দুইটি আদালতের অভাবে কক্সবাজারবাসীকে অবর্ণনীয় ভোগান্তি পোহাতে হয়। সংকট নিরসনে তিনি সংশ্লিষ্ট মহলকে বিবেচনার অনুরোধ করেন।

সর্বশেষ সংবাদ

মুহতামিম সিরাজের বিরুদ্ধে চেক প্রতারণা মামলা

চকরিয়ায় সাম্প্রতিক বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে মতবিনিময় সভা

গরুর মৃত্যুতে ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী, ৮ সরকারি কর্মকর্তা বরখাস্ত

খুটাখালী থেকে দুই যুবক অপহরণ

বদর মোকাম থেকে মাঝেরঘাট পর্যন্ত সড়কের সংস্কার করা হবে -মেয়র মুজিব

মিয়ানমারকে অবশ্যই রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

ডুলাহাজারায় একালাবাসীর অভিযানে ইয়াবা সহ যুবক আটক, পুলিশে সোপর্দ

রহস্যজনক ওয়ালরাইটিংয়ে আতঙ্কঃ তদন্তে নেমেছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী

যে কারণে টাখনুর নিচে কাপড় পরা নিষিদ্ধ

ভবিষ্যত পৃথিবীর জন্য প্রস্তুতির ক্ষেত্র কক্সবাজারে

পেকুয়ায় প্রবাহমান খাল থেকে ৩ টি বাঁধ অপসারণ

চট্টগ্রামে বিএনপির মহাসমাবেশ সফল করুন -সরওয়ার জাহান চৌধুরী

মুফতি মাওলানা হাবিব উল্লাহ জেলা জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীর

অন্যায়ভাবে কর্মী ছাটাই করেছে সিলেট যুব একাডেমি

চট্টগ্রামে অধ্যক্ষের বাসায় চকরিয়ার তরুণীর ঝুলন্ত মরদেহ

উল্লাপাড়ায় ট্রেনের ধাক্কায় বর-কনেসহ ৮ জন নিহত

কোর্ট পুলিশের হাতে আইনজীবি নাজেহাল !

চকরিয়ায় বানভাসী মানুষের সীমাহীন কষ্ট : চরম দুর্ভোগ

পুলিশের মাসিক কল্যাণ সভায় ২৫ জনকে অর্থ পুরষ্কার ও সম্মাননা

রাজনীতিতে এরশাদের ‘ডিগবাজি’