কেউ দিল জুতার মালা! অাবার কেউ দিল ফুলের মালা!

রফিক মাহমুদ :

কেউ দিল জুতার মালা! অাবার কেউ দিল ফুলের মালা! পার্থক্য একটি জায়গায়। এশা ‘নারী’ তার পাশে থেকে যারা দীর্ঘদিন ছাত্রলীগ করেছে তারাও বেশির ভাগ নারী। পুরুষতান্ত্রিক সমাজে নারীদের নেতৃত্ত্ব চায়না এমন মানুষও সমাজে বাস করে। তারা অাবার সুযোগ বুঝে ক্ষমতাসীন দলের অাশ্রয় নিয়ে এশাদের মত নিয়মিত ছাত্রলীগ কর্মীর শ্লীলতাহানীতে উৎপেতে তাকে।
যারা বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে ছাত্র রাজনীতিকে পুঁজি করে নিজের অাখের  গোছানোতে ব্যস্ত তারাই সুযোগ বুঝে এশাদের গায়ে হাত দিতে পারে। কিংবা এশার মত নারীদের কাপড় টেনে হেছড়ে উল্লাস করে!
অামি অাগেই বলেছিলাম ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশকারীদের সংখ্যা বেড়ে গেছে। এই অনুপ্রবেশকারীদের লীপ্সার শিকার হতে হয়েছে নিয়মিত ছাত্রদের বারেবারে। যা এই সময়কার ছাত্রলীগের কর্মীরা বুঝেনা! যা বর্তমান কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতি ও সম্পাদকের কামখেয়ালি মনোভাব বলে অামি মনে করি।
একজন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া ছাত্রলীগের কর্মী হয়ত অামার চেয়ে কম বুঝে তা নয়। তবু বলতে হচ্ছে ছাত্রলীগের দায়িত্ববোধ ও কান্ডজ্ঞানহীন অাচরণ নিয়ে।
কোটা সংস্কারের অান্দোলনে অামার সর্মথন ছিল। যা দেশের বেশি ভাগ মানুষও সর্মথন দিয়েছে। কোটা সংস্কারের অান্দোলনে ছাত্রলীগের একটি অংশ সর্মথন দিলেও কেন্দ্রীয় সভাপতি সম্পাদকের অবস্থান ছিল বিপরীত। তাদের বিপরীত অবস্থান দেখে সুযোসন্দানীরা রাতের অাধারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভিসির বাসভবনে হামলা চালায় ও লোটপাট করে। যা ইতিহাসের সবচেয়ে বর্বরতা বলে দাবী করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমাজের নেতৃবৃন্দ।

তারাই ধারাবাহিতায় পরের দিন ছাত্রলীগকে কলংকিত করার জন্য যারা সুযোগের অপেক্ষায় ছিল তারাই এশাদের কাপড় খোলতে ব্যস্ত ছিল বৈ-কি?
ছাত্রলীগ বাচবিচার না করে এশাকে বহিষ্কার করে। কোন তদন্ত কমিটি গঠন না করে যখন বহিষ্কার হল এশা! তখন কেউ এশার নিরাপত্তা নিয়ে ভাবেনি। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সাথে ছাত্রদের বৈঠকে ফলপ্রসূতা না হওয়া, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীর সংসদে ঢালাও ভাবে ছাত্রদের রাজাকার বাচ্চা বলে বক্তব্য, এশার বহিষ্কার, ভিসির বাসভবনে হামলা, সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশের নির্যাতন সব মিলে ঢাকা সহ সারাদেশে চলছিল ছাত্র অান্দোলনের দাবানল।
যা বিচক্ষণ ভাবে মোকাবেলা করেছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সব কোটা বাতিলের ঘোষনা দিয়ে অান্দোলনকে থামিয়ে দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে সাোরণ ছাত্ররা প্রধানমন্ত্রীকে ‘মাদার অব এডুকেশন’ উপাধী দেয়। যার বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত অান্দোলনের ফলাফল বিষয়ে বলা দূরহ ব্যাপার।
তবে ফলাফল একটি জায়গায় এসেছে! ‘ এশা লাঞ্চিত হয়েছে! এশা বহিষ্কৃত হয়েছে! এশা জুতার মালা পেয়েছে! এশা অাবার ফুলের মালাও পেয়েছে!

দেশের চলমান বিচার ব্যবস্থায় ‘এশা, সত্যিকার অর্থে বিচার পাবে কিনা তা অামার জানা নেই। অামিও এশাকে শ্লীলতাহানীকারীদের শাস্তি চাই।

লেখক: রফিক মাহমুদ
সাংবাদিক ও এনজিও কর্মী

সর্বশেষ সংবাদ

ইয়াবার আগ্রাসন থেকে দেশ ও জাতিকে রক্ষা করতে হবে: অধ্যক্ষ হামিদ

উখিয়ায় ইয়াবাসহ আটক-৪ (আপডেট)

চকরিয়ায় শিশু ওয়াসী খুনের মামলার চার্জসিট ৬মাসেও দাখিল হয়নি

চকরিয়ায় এক স্কুল ছাত্র পেকুয়া থেকে ৩দিন ধরে নিখোঁজ

কক্সবাজার পরিবেশ ও মানবাধিকার উন্নয়ন ফোরামের ৫ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

কক্সবাজার সিটি কলেজে ব্লাড গ্রুপ নির্ণয় ও ব্লাড ডোনেটিং ক্যাম্প সম্পন্ন

কক্সবাজার সদর হাসপাতালকে ৫ শ’ শয্যায় উন্নীত করা হবে : স্বাস্থ্য মন্ত্রী জাহিদ

চট্টগ্রামে কলোনীতে আগুন লেগে মা-মেয়ের মৃত্যু

উখিয়ার বিশিষ্ট ঠিকাদার শাকের উদ্দিনের পিতা আর নেই

উখিয়ায় র‌্যাবের বিশেষ অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ২

লামায় তাজিংডং ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত

মহেশখালীতে ছাত্রলীগের আয়োজনে বঙ্গবন্ধু গোন্ডকাপ ফুটবল টূর্নামেন্ট শুরু

শহর দাপিয়ে বেড়াচ্ছে ভুয়া ও নকল লাইসেন্সধারী টমটম

মেধু বড়ুয়ার পিতার মৃত্যুতে জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের শোক

জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় আটক হলো মাদক ব্যবসায়ী দম্পতি

জেলা ছাত্রদলের শোকজ নোটিশের জবাব দিলেন মোঃ সানাউল্লাহ সেলিম

মাঝ সমুদ্রে পড়ে গেলেন প্রিয়াঙ্কা!

১৫ দিনের ভারী বর্ষণে ৫০ হাজার রোহিঙ্গা ক্ষতিগ্রস্ত, পাহাড়ধস ঠেকাতে ‘সেফ প্লাস’ কর্মসূচি

হাসতে হাসতে ২৫ ছাত্রী অজ্ঞান!

প্রতি কেজি পেঁয়াজ ১৬ টাকায় বিক্রি!