সিরিয়ায় গ্যাস হামলায় নিহত ৭০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
সিরিয়ার স্থানীয় উদ্ধারকর্মী ও চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, পূর্বাঞ্চলীয় ঘৌতা শহরের দৌমা এলাকায় গ্যাস হামলার ঘটনায় কমপক্ষে ৭০ জন নিহত হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবী উদ্ধারকারী সংস্থা হোয়াইট হেলমেট এক টুইটে বেশ কিছু মরদেহ পড়ে আছে এমন একটি ভবনের ছবি প্রকাশ করেছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা ব্যক্ত করেছে সংস্থাটি। তবে অন্য কোনো উৎস থেকে এই তথ্য স্বাধীনভাবে যাচাই করা সম্ভব হয়নি।

সিরিয়া সরকার রাসায়নিক হামলার এই অভিযোগকে মিথ্যা বলে উল্লেখ করেছে। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, তারা সাম্প্রতিক ভয়াবহ হামলা সম্পর্কে তথ্য পর্যবেক্ষণ করছে। তারা আরও বলেছে, রাসায়নিক হামলা ব্যবহার করা হয়ে থাকলে সিরিয়ার মিত্র হিসেবে যুদ্ধ করা রাশিয়াকেই দায়ী করা উচিৎ।

পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় বলছে, নিজেদের লোকদের ওপরই রাসায়নিক অস্ত্র দিয়ে হামলার ইতিহাস রয়েছে রাশিয়ার। অগণিত সিরিয়ানদের ওপর রাসায়নিক হামলার দায় নিতে হবে রাশিয়াকে। মন্ত্রণালয় বলছে, তাদের ধারণা হামলায় কমপক্ষে ৪০ জন নিহত হয়েছে। তবে নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করা হয়েছে।

স্থানীয় বেশ কিছু মেডিক্যাল, পর্যবেক্ষণ সংস্থা এবং মানবাধিকার সংস্থা রাসায়নিক হামলার খবর নিশ্চিত করেছে। তবে হতাহতের সংখ্যা নিয়ে দ্বিমত দেখা গেছে। ওই অঞ্চলে আসলেই কি ঘটছে তা পরিস্কার নয়।

সরকার বিরোধী ঘৌতা মিডিয়া সেন্টার এক টুইট বার্তায় জানিয়েছে, এক হাজারের বেশী মানুষ রাসায়নিক হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ৭৫ জনের বেশি মানুষ রাসায়নিক গ্যাসের কারণে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় আক্রান্ত হয়েছে।

ওই হেলিকপ্টার থেকে ব্যারেল বোমা হামলা চালানো হয়েছে। এসব বোমায় বিষাক্ত নার্ভ এজেন্ট সারিন গ্যাস ছিল। এসব হামলায় ৭০ জন নিহত হওয়ার কথা নিশ্চিত করেছে দামেস্ক রুরাল স্পেশালিটি হসপিটাল।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

হোয়াইক্যং হাইওয়ে পুলিশের অভিযানে ৫হাজার ইয়াবা সহ আটক-২

এলাকার উন্নয়নই আমার স্বপ্ন -কাউন্সিলর সাহাব উদ্দিন সিকদার

শহীদ জাফর মাল্টিডিসিপ্লিনারী একাডেমিক ভবনের উদ্বোধন

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি কর্মীদের ন্যায় বিচার কোথায়?

আইনগত ভিত্তি পেলেই ইভিএম ব্যবহার : সিইসি

খাগড়াছড়িতে ব্রিজ ভেঙে ট্রাক নদীতে, নিখোঁজ ১

সাগরে বৈরি আবহাওয়ার কবলে পড়ে ফিশিং ট্রলার ডুবি

‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মুক্তগণমাধ্যমের জন্য বড় বাধা হয়ে দাঁড়াবে’

ফাইভ-জি মোবাইল নেটওয়ার্কে বিকিরণের ঝুঁকি বেশি?

রাখাইনে এখনো থামেনি সেনা ও মগের বর্বরতা

জাতীয় ঐক্য নিয়ে অস্বস্তিতে আ’লীগ

প্রধানমন্ত্রীর জাতিসঙ্ঘ সফরে প্রাধান্য পাচ্ছে রোহিঙ্গা ইস্যু

সাকা চৌধুরীর কবরের ‘শহীদ’ লেখা নামফলক অপসারণ করলো ছাত্রলীগ

তিন মাসের জন্য প্রত্যাহার আনোয়ার চৌধুরী

মনোনয়ন দৌড়ে শতাধিক ব্যবসায়ী

ফখরুল-মোশাররফ-মওদুদ যাচ্ছেন ঐক্য প্রক্রিয়ার সমাবেশে

এবার ভারতের কাছেও শোচনীয় হার বাংলাদেশের

রোহিঙ্গা শিশুদের শিক্ষায় ২০০ কোটি টাকা অনুদান বিশ্বব্যাংকের

বিরোধীরা সব জায়গায় সমাবেশ করতে পারবে

চাকরি না পেয়ে সুইসাইড নোট লিখে খুবি ছাত্রের আত্মহত্যা