নিজস্ব প্রতিবেদক:

কক্সবাজার সদর উপজেলার ভারুয়াখালীতে গুচ্ছগ্রাম প্রকল্পের জায়গাকে কেন্দ্র করে দু-পক্ষের সংঘর্ষে  ৪  জন আহত হয়েছে। শনিবার (৭এপ্রিল)  সকাল ৮টার দিকে ভারুয়াখালী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের হাজীপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।আহতরা হলেন, মোঃ ইসলামের পুত্র  ফরিদুল আলম (৫০) ও মোঃ রহমানের পুত্র  নবী আলমের (৩৫) ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রতিদিনের মতো আহত লবণ চাষি ফরিদুল আলিম, নবী ও তার চাষীরা লবণ মাঠে কাজ করতে গেলে ভারুয়াখালী ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান সিকদারের লোকজন তাদের বাধা দেয় এবং উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ

ইউপি সদস্য মুসলিম উদ্দিন জানান, গুচ্ছগ্রাম প্রকল্পের জায়গার উপর হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা থাকার পরও চেয়ারম্যানের লোকজন লবণ মাঠ ভরাট করছিল। এতে সাধারণ লবণচাষীরা বাধা দিলে চেয়ারম্যানের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তাদের উপর হামলা করে।

দীর্ঘদিন ধরে লবণের মাঠ চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করে ছাবের আহমদ (৫০)। তিনি বলেন, উক্ত জমিতে গুচ্ছগ্রাম করলে আমার পরিবার না খেয়ে থাকবে।

ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান মুঠোফোনে বলেন,  কক্সবাজার সদর ইউএনও’র নির্দেশে আমি শ্রমিক দিয়ে গুচ্ছগ্রাম প্রল্পের জায়গা ভরাট করছিলাম এতে কিছুলোক বাধা দেয় ও হামলা করে শ্রমিদের উপির। হাইকোর্টের নির্দেশের ব্যাপারে তিনি অবজ্ঞাত নন বলে জানান।

উল্লেখ্য, ৫০ হাজার ভূমিহীন পরিবারকে খাসজমিতে পুনর্বাসন করবে সরকার। সারা দেশে আড়াই হাজার গুচ্ছগ্রাম তৈরি করা হবে। এ জন্য ৯৪২ কোটি টাকার প্রকল্প নিয়েছে সরকার

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •