ময়লা-আবর্জনার স্তুপ ঈদগাঁও নদী

মোহাম্মদ মিজানুর রহমান আজাদ, ঈদগাঁও:

জেলার বাণিজ্যিক রাজধানী নামে খ্যাত ঈদগাঁও বাজারের প্রবেশদ্বার তথা বাসস্টেশনস্থ ঈদগাঁও নদীটি ময়লা আবর্জনার স্তুপে পরিণত হয়েছে। অথচ বৃহত্তর ঈদগাঁওর একাংশ জনগণের নিত্য দিনের সঙ্গী এ ঈদগাঁও নদীটি। যুগ যুগ ধরে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন প্রবহমান পানি থেকে আমাদের মা-বোন কিংবা পিতাসহ সর্বশ্রেণীর লোকজন গোসলসহ যাবতীয় কাজে এ নদীটি ব্যবহার করে আসলেও সম্প্রতি ঈদগাঁও বাসস্টেশন ও আশেপাশের কাঁচামাল ব্যবসায়ীসহ নদীর উপর গড়ে উঠা অবৈধ হোটেল- চায়ের দোকানের ময়লা-আবর্জনাতেই নদীর পানিগুলি ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

বিশেষ করে খাবার হোটেল কিংবা চায়ের দোকানের প্র¯্রাবখানা ও টয়লেট নদীর উপরে প্রতিষ্ঠিত হওয়ায় এবং পুরো বাসস্টেশনের ফলমূল ও কাঁচামাল ব্যবসায়ীরা সন্ধ্যা কিংবা রাতের আঁধারে নষ্ট হওয়া ফলমূল ও ময়লা-আবর্জনা ঐ বাসস্টেশনের ব্রীজ থেকে নদীর পানিতে ফেলে দেয়। তাছাড়া চটপটি কিংবা চনামুড়ির দোকানের ময়লাযুক্ত পানিগুলি নদীতে প্রতিনিয়ত নিক্ষেপ করায় নদীর পানি থেকে এক প্রকার দূর্গন্ধ বের হচ্ছে। অন্যদিকে মাংস ব্যবসায়ী ও সাধারণ জনগণ মৃত কুকুর বা মুরগীগুলিও নদীর পানিতে ফেলে দেয়ায় পুরো পানিগুলি অপরিস্কার ও দূর্গন্ধে পরিণত হয়েছে। অথচ বাসস্টেশন বা বাজারের একাংশে নদীর উপর প্রতিষ্ঠিত খাবার কিংবা চায়ের দোকানগুলি পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন কিংবা চা বিক্রি করে ঐ পানি দিয়ে। ফলে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে জনগণ।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, অবৈধভাবে গড়ে উঠা দোকানগুলি পাইপের নালী দিয়ে ময়লাযুক্ত পানিগুলি ব্যবহার করে স্থানীয় ক্রেতাদের কাছে খাবারসহ বিভিন্ন নাস্তা বিক্রি করছে। আবার ঐসব খাবার কিংবা নাস্তাগুলি ঢাকনাবিহীন হওয়ায় মাছিসহ বিভিন্ন পোকামাকড় এবং ধুলাবালিগুলি খাবারের উপর জমে থাকে। মূলত এসব খাদ্য থেকেই রোগের উৎপত্তি বলে জানান বিশেষজ্ঞরা।

সচেতন মহলের দাবী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বাজারের ন্যায় বাসস্টেশনে অবৈধভাবে নদীর উপর গড়ে উঠা ময়লাযুক্ত খাবার হোটেল, চায়ের দোকান গুলি উচ্ছেদের পাশাপাশি বাসস্টেশনের ময়লা-আবর্জনাযুক্ত চটপটি কিংবা চনামুড়ির দোকানে অভিযান এবং মহাসড়কের কিংবা ডিসি সড়কের উপর অবৈধভাবে গড়ে উঠা কাঁচামাল তথা পঁচাযুক্ত ফল ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে। অন্যথায় পুরো নদীর পানিগুলি ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়বে।

সদর উপজেলা নির্বাহীর হস্তক্ষেপ কামনা করে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, শীঘ্রই তদন্ত পূর্বক কাঁচামাল ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে খাবার হোটেল, নাস্তা ও চনামুড়ির দোকানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সর্বশেষ সংবাদ

বাঁকখালী উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা

ছাত্রলীগ নেতার সহযোগিতায় মোটরসাইকেল চোর সিন্ডিকেটের প্রধান আটক

কক্সবাজার সিটি কলেজ ছাত্রলীগ সংগঠক শাহাদাত অপহরণের শিকার !

সাংবাদিক ইমরুলকে দেয়া কউকের লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহারের দাবি

বিমানের চেয়ারম্যান হলেন সাজ্জাদুল হাসান

সরকারি গেজেটে কক্সবাজার ‘ব্যয়বহুল’ শহর

লিগ্যাল এইড আইন দেশের সর্বোত্তম আইন : জেলা জজ হাসান মোঃ ফিরোজ

ঈদগাঁওতে লোকালয় থেকে অজগর সাপ উদ্ধার

চকরিয়া পৌর এলাকায় বসানো হয়েছে ১০০টি সিসি ক্যামেরা

‘টেকনাফে চিহ্নিত মাদককারবারির গায়ে পুলিশের পোশাক’ শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ

চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার আবদুল মান্নানের সচিব পদে পদোন্নতি

গর্ভবতী গাভীর মাংস বিক্রির দায়ে ২০ হাজার টাকা জরিমানা

মাওলানা আজহারীর কাছে মুসলমান হওয়া ১১ জনকে ভারতে ফেরত

জেলা জাসদের কাউন্সিল: সভাপতি টুটুল সম্পাদক এড. কালাম

চকরিয়া পৌরসভায় ভাসমান দোকান উচ্ছেদ

ঝরেপড়া থকে সুবিধা পাচ্ছে কক্সবাজারের ৪৯৫৭ জন শিক্ষার্থী

সিনিয়র সচিব হলেন কক্সবাজারের হেলালুদ্দীন আহমদ

চট্টগ্রামের নতুন বিভাগীয় কমিশনার এবিএম আজাদ

ফ্রান্সে সাগর বড়ুয়ার একক সংগীতানুষ্ঠান

অবহেলায় যাতে একটি সম্ভাবনা ঝরে না পড়ে -ইউএনও জামিরুল ইসলাম