cbn  

ইউপি সদস্য ও আ.লীগ নেতা কুদরত উল্লাহ সিকদারের বিরুদ্ধে আ.লীগ নেত্রী নাজনীন সরওয়ার কাবেরীর ফেসবুকে ভুয়া পাহাড় কাটার ছবি ও বাজে স্ট্যাটাস নিয়ে তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি আমি কুদরত উল্লাহ। কাবেরীর এমন মিথ্যা অপপ্রচার খুবই দুঃখজনক বলে মনে করি আমি। মূলত ২২ মার্চ সাংবাদিক মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম তার আইডি থেকে দুইটি ছবি পোস্ট করে স্ট্যাটাস দেন, ‘উখিয়া-বালুখালী সড়ক নির্মাণের জন্য ব্যবহৃত হচ্ছে এই মাটি।” ছবিটি উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পাহাড় কাটার ছবি। কিন্তু জেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাবেরী তার আইডি থেকে ২৩ মার্চ ওই পাহাড় কাটার ছবি থেকে একটি ছবি পোস্ট দিয়ে স্ট্যাটাস দেন, “সমুদ্র জনপদ কক্সবাজারের লিংকরোড এলাকার করুন দৃশ্য। জড়িত আছেন উচ্চক্ষমতাধরের সাথে জনৈক ইউনুস ভূট্টো, কুদরতউল্লাহ, এফাজউল্লাহ, আজিজুল হক বাহিনী। আওয়ামীলীগ এর মতো আদর্শিক সংগঠনের নাম অপব্যহারে কেড়ে নিচ্ছে রাষ্ট্র, প্রতিষ্ঠান ও মানুষের সম্পত্তি।” কেন তিনি আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে। তার মিথ্যা অপপ্রচারে আমার সুনাম ক্ষুন হচ্ছে। তিনি আ.লীগের নেত্রী হয়ে কিভাবে আ.লীগের বিরুদ্ধে কথা বলতে পারে। তাও আবার ভুয়া মিথ্যা বানোয়াট তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করে যাচ্ছে।

বর্তমানে আমি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সম্পাদক ও ঝিলংজা ইনিউয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছি। এছাড়া মুহুরীপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও দক্ষিণ মুহুরীপাড়া জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি, মহুরীপাড়া কমিউনিটি ক্লিনিক ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি, ঝিলংজা কমিউনিটি পুলিশিং এর সভাপতির দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি। এমনকি লিংক রোড় ব্যবসায়ী সমিতির যুগ্ম সম্পাদক, জাতীয় শ্রমিক লীগ কক্সবাজার জেলার সদস্য ও মাইক্রো বাস শ্রমিক ইউনিয়ন লিংক রোডের সভাপতি এবং মুহুরীপাড়া কেন্দ্রীয় কবরস্থান পরিচালনা কমিটির সভাপতির দায়িত্বও পালন করে যাচ্ছি সুনামের সাথে।

কিন্তু আমার বিরুদ্ধে উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে একটি পাহাড় কাটার ছবি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিভ্রান্ত ছড়াচ্ছে কাবেরী। যা খুবই দু:খজনক। এমনকি এই নেত্রীর ফেসবুকের দেয়া ছবি ও স্ট্যাটাসটি স্থানীয় দৈনিক একটি প্রত্রিকায় আমরা কয়েকজন জড়িত বলে চাপিয়ে দেন। যা একটি হাস্যকর মাত্র। তবে বিনা কারণে বিনা দোষে আমার সম্মান নিয়ে খেলা করছে কেন তা বুঝতে পারছিনা। যা নোংরা খেলার মতো। আমি এখনো বুঝতে পারছিনা; কেন একজন শীর্ষ আ.লীগ নেত্রী আমার মতো ত্যাগী আ.লীগ নেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে। বিষয়টি আমি জেলা আ.লীগের শীর্ষ নেতা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। এবং প্রশাসন ও সাংবাদিক ভাইদের বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি। এমন অপপ্রচার থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি কাবেরী আপাকে। আমার মানসম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য প্রয়োজনে আমি আইনের আশ্রয় নিবো।

প্রতিবাদকারী

কুদরত উল্লাহ সিকদার
সদর উপজেলা আ.লীগ যুগ্ম সম্পাদক ও ঝিলংজা ইনিউয়ন আ. লীগের সাধারণ সম্পাদক।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •