সিবিএন:

কক্সবাজারের বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মতবিনিময় করেছেন নবাগত জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন।

বুধবার (২১ মার্চ) সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সভায় জেলা প্রশাসক তার বক্তব্যের শুরুতে জাতির শ্রেষ্ট সন্তান শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণ করেন। এরপর উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শুভেচ্ছা ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, আমি নিজেই একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। রক্তের বিনিময়ে দেশ স্বাধীন হয়েছে বলেই আমি জেলা প্রশাসকের চেয়ারে বসতে পেরেছি।

বক্তব্যে তিনি বলেন, আমি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী কোন কাজ করবনা। সবার সাথে সমন্বয় রেখে নিজ দায়িত্ব পালনের চেষ্টা করে যাব। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য আমার দরজা সর্বদা উন্মুক্ত থাকবে।

মতবিনিময় সভায় জেলার প্রতি উপজেলা থেকে শতাধিক মুক্তিযোদ্ধা অংশ গ্রহণ করেন।

তবে, বেশ কয়েকজন সিনিয়র মুক্তিযোদ্ধা জেলা প্রশাসকের অনুষ্ঠানে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দাওয়াত করার অভিযোগ তুলে যোগদান করেননি।

উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধাদের আশ্বস্ত করে জেলা প্রশাসক বলেন- আমি প্রাথমিকভাবে অন্তত ৩ জন অসহায় মুক্তিযোদ্ধাকে চাকুরী, উপজেলা পর্যায়ের মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স দ্রুত সম্পন্নের ব্যবস্থা, রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানসমূহে মুক্তিযোদ্ধাদের যথাযথ সম্মান, জেলা প্রশাসনের প্রতিটি কমিটিতে মুক্তিযোদ্ধাদের রাখার চেষ্টা করবেন বলে জানান।

এছাড়া মহেশখালীতে মানবতা বিরোধীদের মামলার সাক্ষিদের নিরাপত্ত্বা জোরদার ও মহেশখালী থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের কক্সবাজার পারাপার বিনা ভাড়ায় ব্যবস্থা করার ঘোষণা দেন।

সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কাজি মোহাম্মদ আবদুর রহমান বক্তব্য রাখেন।

মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- কক্সবাজার জেলা পরিষদের প্রথম চেয়ারম্যান, মুজিব বাহিনীর মহকুমা কমান্ডার ও জাতীয় পার্টি (জেপি) এর প্রেসিডিয়াম সদস্য এএইচ সালাহ উদ্দিন মাহমুদ, ক্যাপ্টেন আবদুস সোবহান, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান নুরুল আবছার, মোহাম্মদ আলী, শাহজাহান, রনজিত কুমার প্রমুখ।

এএইচ সালাহ উদ্দিন মাহমুদ বলেন, দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে মুক্তিযোদ্ধের সপক্ষের শক্তিকে আবারো ক্ষমতায় আনতে হবে।

তিনি বলেন, যারা ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ বীর মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা হত্যাকারীরা ক্ষমতায় আসলে দেশ অনেক পিছিয়ে যাবে। অপশক্তির উত্থান মোকাবেলায় মুক্তিযোদ্ধাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •