এম.এ আজিজ রাসেল :

সমাজে প্রতিবন্ধীদের আলাদা নজরে দেখা হয়। নানা সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয় তারা। কিন্তু প্রতিবন্ধীরাও অন্য দশজনের মতো মানুষ। তাই তাদেরকে নিয়ে নেতিবাচক মনোভাব দুর করতে হবে। সকলকে পরিবর্তন করতে দৃষ্টিকোণ। তাদের সহায়তায় বাড়িয়ে দিতে হবে হাত। বাড়াতে সরকারি বেসরকারি সুযোগ-সুবিধা। ২৮ ফেব্রুয়ারী বুধবার সকালে ঝিলংজা হর্টিকালচার সেন্টারে হিউম্যান রাইটস প্রোগ্রাম ইউএনডিপির সহযোগিতায় ইফসা আয়োজিত প্রতিবন্ধীতা বিষয়ে সিএসও এবং এনজিও প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় সভায় বক্তারা উপরোক্ত কথা বলেন। সভায় জানানো হয় সমাজে পিছিয়ে পড়া প্রতিবন্ধীদের নিরাপত্তা সামাজিক জীবন মান উন্নয়নে সদর ও রামুতে ইউএনডিপির সহযোগিতায় নানা উন্নয়নমূলক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে ইপসা। এ জন্য ২০০ জনের অধিক প্রতিবন্ধীদের নিয়ে ১০টি প্রতিবন্ধী স্বনির্ভর সংগঠন করা হয়েছে। এই ১০ সংগঠনের সদস্যদের সম্বনয়ে ২০ সদস্য বিশিষ্ট ২টি উপজেলা ফেডারেশন গঠন করা হয়। এই প্রক্রিয়ায় প্রতিবন্ধীদের অধিকার আদায় করা সম্ভব হবে। প্রতিবন্ধীরা এখনো সমাজে অবহেলিত। অর্থনৈতিকভাবে তারা অসচ্ছল। এছাড়া প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীর জন্য সরকার শিক্ষার গুরুত্ব দিলেও এখনো তারা শিক্ষা অর্জনে নানা বাধাঁর সম্মুখিন হচ্ছে। তাই ইপসার গৃহীত উদ্যোগ প্রতিবন্ধীদের পরনির্ভরশীলতা কমানোর পাশাপাশি আর্থিকভাবে সচ্ছল ও সুশিক্ষা অর্জনে সক্ষম হবে। আগামীতে এই পরিসর আরও বাড়বে। সদর ও মহেশখালী উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা মনজুর মোর্শেদের সভাপতিত্বে ও প্রোগ্রাম ম্যানেজার যীশু বড়–য়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিভিন্ন বিষয়ের উপর মতামত ব্যক্ত করেন ফিল্ড অফিসার আহসান উল্লাহ সরকার, ডাঃ কুতুবী, খুরুস্কুল ইউপির সচিব মোঃ এনামুল হক ও জান্নাতুল নাঈম মুন্না।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •