গত ২৭ ফেব্রুয়ারী কক্সবাজার অনলাইন নিউজ র্পোটাল কক্সবাজার নিউজ ডটকম পত্রিকায় টেকনাফে প্রকাশ্যে দখল হচেছ সরকারী জায়গা শীর্ষক প্রকাশিত সংবাদটি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। উক্ত সংবাদে যে সরকারী জায়গা দখলের কথা উল্লেখ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। এই জমিটি আমি ক্রয় সূত্রে মালিক হয়। উক্ত সংবাদে এই জমি অতি পুরাতন, গাড়ী পার্কিং ও সপ্তাহে দুইদিন সুপারী বাজারেরও কথা বলা হয়েছে। আমার জমিতে কোন দিন গাড়ী পার্কিং ও সুপারী বাজার হয়নি। আমার জমি ও পৌরসভা কার্যালয়ের সামনে একটি বড় জায়গায় গাড়ী পাকিং ও সুপারী বাজার হয়ে আসছে। তা এখনো বিদ্যমান রয়েছে। তবে একটি মহল আমার বিরুদ্ধে নানা কুৎসা রচনা করে বিভ্রান্তির পায়তারা করছে। আমি উক্ত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
মূলত, টেকনাফ মডেল থানা ও পৌরসভা কার্যালয়ের সামনে টেকনাফের অধীনে ৮১৫/৫৭০ নং আর, এস খতিয়ানের ও ৮১৮ নং বি, এস খতিয়ানের রেকডীয় মালিক আব্দু জলিলের ছেলে ওয়ালী আহম্মদ। সে লোকান্তরে তারই ওয়ারিশ সব্বির আহম্মদের নামে ২৮২৯ নং দিয়ারা খতিয়ান সৃজিত হয়। পরে সব্বির আহম্মদ লোকান্তরে তারই ওয়ারিশ গন হইতে গত ২০১৩ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর টেকনাফ রেজিঃ কার্যালয়ে ২২১২ নং কবলা মূলে আমি মোহাম্মদ ইসহাক ০.০১৩৪ একর জমি ক্রয় করি। আমার নামে ৩৫৪৫ নং দিয়ারা খতিয়ান সৃজিত হয়। পরে জমির মালিক দখল বুঝিয়ে দেয়। এই জমিতে আমার মালিকানাধীন টিন সেট ৪টি দোকান ঘর রয়েছে। এদিকে আমার ক্রয়কৃত জমিতে দোকান করা হলে একটি মহল তা নিয়ে নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। আমার মালিকানাধীন জমিকে সরকারী জমি উল্লেখ করে সাংবাদিক ভাইদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে আমার বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করা হয়। আমি উক্ত সংবাদে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কাউকে বিচলিত না হওয়ার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী

মোহাম্মদ ইসহাক ,
অলিয়াবাদ, টেকনাফ পৌরসভা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •